loading...

চট্টগ্রামের ভিক্টোরীয়ার জুট মিলের আগুন নিয়ন্ত্রণে আসেনি

0

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ চট্টগ্রামের একে খাঁন এলাকার বন্ধ ভিক্টোরীয়া জুট মিলের বিভিন্ন পণ্যভর্তি গুদামে  আগুন লাগা  নিয়ন্ত্রণ করা যায়নি। রাত পৌনে ৯টায় এই রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত ফায়ার সার্ভিসের ১৫টি গাড়ি পানি দিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণের চেষ্টা চালাচ্ছে।

এদিকে আগুনে জুট মিলের ভিতরে থাকা আরএফএল, ইউনিলিভার, তুলার গুদাম ও চাউলে গুদামসহ ৮টি গোডাউন সম্পূর্ণ ভস্মিভুত হয়ে প্রায় শত কোটি টাকার ক্ষয়ক্ষতি হবে বলে ধারণা করছে প্রতিষ্ঠানগুলো কর্মকর্তারা।

এর আগে আজ শুক্রবার বিকেল পাঁচটার দিকে নগরীর পাহাড়তলী থানার থানার ভিক্টোরীয়া জুট মিলের এসব গোডাউনে বৈদ্যুতিক শর্ট সার্কিট থেকে আগুন লাগার ঘটনা ঘটে।

ঘটনাস্থল থেকে চট্টগ্রাম বিভাগীয় ফায়ার সার্ভিস অফিসের সহকারী পরিচালক মো. জসিম উদ্দিন জানিয়েছেন, বিকেল ৫টার দিকে আগুন লাগার খবর পাওয়ার পর তারা দ্রুত ঘটনাস্থলে যান। ফায়ার সার্ভিসের পাঁচটি স্টেশনের ১৫টি গাড়ি অগ্নি নির্বাপন কাজে অংশ নেয়।  রাত পৌনে ৯টার দিকে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনা সম্ভব হয়নি।  আমরা চেষ্টা করছি আগুন নিয়ন্ত্রণ করার। আমাদের কর্মী এবং এলাকাবাসী কাজ করছে।

জানা গেছে, ইস্পাহানী গ্রুপ অব কোম্পানির ভিক্টোরিয়া জুট মিলের খালি জায়গা ভাড়া নিয়ে সেখানে গুদাম হিসেবে ব্যবহার করছিলো বহুজাতিক কোম্পানি ইউনিলিভার, ইউনিটেক্স, আরএফএলসহ আটটি প্রতিষ্ঠান। বিকেলে আরএফএলর গোডাউন থেকে আগুনের সূত্রপাত হয়।

ঘটনার বর্ণনা দিয়ে প্রত্যক্ষদর্শী স্থানীয় কাউন্সিলর নেছার আহমদ মঞ্জু বলেন, ইস্পাহানীর মালিকানাধীন ভিক্টোরিয়া জুট মিলে ভেতর থাকা আরএফএলের গোডাউনে বিকেল ৫টার দিকে আগুন লাগে। গোডাউনের ভেতর প্লাস্টিকসহ দাহ্য পদার্থ থাকায় আগুন দ্রুত ছড়িয়ে পড়ে এবং দাউ দাউ করে জ্বলতে থাকে। ধোঁয়ায় ছেয়ে যায় গোডাউন এলাকা। আগুন ছড়িয়ে পড়ে ইউনিলিভার ও ইউনিটেক্সের গুদামেও। তবে সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে আরএফএল। বিদ্যুতের শর্ট সার্কিট থেকে আগুনের সূত্রপাত হয়েছে বলে মনে হচ্ছে। অগ্নিকাণ্ডে শতকোটি টাকার ক্ষয়-ক্ষতি হতে পারে।

তিনি বলেন, অগ্নিকাণ্ডের কারণ ও ক্ষয়ক্ষতি পরিমাণ তাৎক্ষণিক ভাবে বলা যাচ্ছে না।ফায়ার সার্ভিসের উপ-সহকারী পরিচালক পূর্ণ চন্দ্র মুৎসুদ্দী জানান, ফায়ার সার্ভিসের বন্দর, আগ্রাবাদ, নন্দন কানন, কুমিরা ও বায়েজিদ ইউনিটের ফায়ারম্যানরা আগুন নিয়ন্ত্রণে কাজ করছে।

 

loading...