৮ সহকারী নিয়ে শুটিংয়ে, ফের বিতর্কে মিষ্টি জান্নাত

0
বিনোদন প্রতিবেদক, 

প্রেক্ষাগৃহ খোলার খবরে পুরোদমে শুরু হয়েছে সিনেমার শুটিং। ব্যস্ততা বাড়ছে শুটিং সংশ্লিষ্ট সবার। তারই ধারাবাহিকতায় গত ২ অক্টোবর ফরিদপুরে শুরু হয়েছে ‘বীরত্ব’ ছবির শুটিং। চলবে ২০ অক্টোবর পর্যন্ত। সাইদুল ইসলাম রানার পরিচালনায় এ ছবির কেন্দ্রীয় চরিত্রে রয়েছেন চিত্রনায়ক ইমন ও চিত্রনায়িকা সালওয়া।

‘বীরত্ব’ প্রযোজনা করছে পিংপং এন্টারটেইনমেন্ট। এই সংস্থার পরবর্তী ছবিতে অভিনয় করতে হলে ‘বীরত্ব’-এর আইটেম গানে পারফর্ম করতে হবে- এমন শর্তে রাজি হন আলোচিত চিত্রনায়িকা মিষ্টি জান্নাত। সম্প্রতি সেই আইটেম গানের শুটিংয়ে অংশ নিতে আটজন সহকারী নিয়ে হাজির হন মিষ্টি।

একজন নায়িকার এভাবে লোকের বহর নিয়ে শুটিং সেটে হাজির হওয়ার ঘটনায় বিব্রত উপস্থিত সবাই। স্বাভাবিক ভাবেই অনেকে প্রশ্ন তুলেছেন, ‘একদিনের শুটিংয়ের জন্য আইটেম গার্ল হিসেবে অভিনয় করা একজন অভিনেত্রীর যদি আটজন সহকারী সঙ্গে নিতে হয়, তাহলে ছবিতে প্রধান নায়িকা হলে তিনি কতজন সহকারী নিতেন?’

করোনাকালে লোক সংখ্যা কমিয়ে স্বাস্থ্যবিধি মেনে শুটিং করার নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। ‘বীরত্ব’ ছবিতে থাকা মিষ্টি জান্নাতের আইটেম গানটির শুটিং হয়েছে দৌলতদিয়া পতিতা পল্লীতে। এই এলাকা এমনিতেই ব্যাপক জনবহুল। কাজেই সেখানে মিষ্টি জান্নাতের লোকের বহর নিয়ে শুটিংয়ে যাওয়ায় স্বাস্থ্যবিধির ব্যাপারটাও প্রশ্নবিদ্ধ হয়েছে।

কিন্তু আটজন সহকারী নিয়ে শুটিংয়ে কেন? মিষ্টির বক্তব্য, ‘রাত ৯টা থেকে পরদিন সকাল ১০টা পর্যন্ত টানা শুটিং ছিল। ঢাকা থেকে অনেক দূর, আম্মুও ছিল না। তাই এত লোক নিয়ে যাওয়া। তাছাড়া মানুষ আমাকে মাঝে মধ্যে হুমকি দেয়। পরিবারের সবাই এ জন্য ভয়ে থাকে। তাই ঢাকার বাইরে শুটিং থাকলে একটু বাড়তি প্রোটেকশন রাখি।’

কয়েকদিন আগে একটি বেসরকারি টেলিভিশন চ্যানেলে হাজির হয়েও বিতর্কের জন্ম দেন মিষ্টি জান্নাত। সেখানে তিনি মন্তব্য করেন, তার বাংলা ছবি ভালো লাগে না। নিজের ছাড়া অন্য কারো ছবিই পছন্দ না। তিনি মনে করেন সেসব ছবির শিল্পীরা তার লেভেলের না। নিজেকে তিনি সর্বোচ্চ লেভেলের বলে দাবি করেন।

%d bloggers like this: