হালুয়াঘাটে কৃষকদের মধ্যে বিনামূল্যে শাক-সবজির বীজ বিতরণ

0

মোঃরফিকুল্লাহ চৌধুরী মানিক হালুয়াঘাট ময়মনসিংহ প্রতিনিধি ;

উপজেলায় ক্ষুদ্র ও প্রান্তিক কৃষকদের মধ্যে বিনামূল্যে শাক-সবজির বীজ বিতরণ করেন ইউএনও রেজাউল করিম। ময়মনসিংহ হালুয়াঘাট উপজেলায় মৌসুমি প্রণোদনা কর্মসূচির আওতায় বন্যা ও অতিবৃষ্টির ক্ষতি পুষিয়ে নিতে ক্ষুদ্র ও প্রান্তিক কৃষকদের মধ্যে বিনামূল্যে শাক-সবজির বীজ বিতরণ করা হয়েছে। এ কর্মসূচির আওতায় উপজেলার ৫০ কৃষকের মধ্যে ১৩ জাতের শাক ও সবজির বীজ বিতরণ করা হয়।

আজ বৃহস্পতিবার দুপুরে উপজেলা কৃষি ভবনের ফটকে কৃষি বিভাগ আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে কৃষকদের হাতে এইসব বীজ তুলে দেন অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো: রেজাউল করিম, অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা কবিরুল ইসলাম বেগ, , পৌর মেয়র খাইরুল আলম ভূঞা, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান মিসেস ঝর্ণা ঘোষ , ধুরাইল ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান ওয়ারিছ উদ্দিন সুমন, উপজেলা প্রানী সম্পদ কর্মকর্তা শহিদুল ইসলাম সহ উপজেলা কৃষি অফিসের বিভিন্ন পর্যায়ের কর্মকর্তাবৃন্দ।

এর আগে উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মাসুদুর রহমানে সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে ইউএনও কৃষকদের জমিসহ প্রতিটি বাড়ির আঙিনায় যেন শাক-সবজির আবাদ করা হয়, সে তাগিদ দেন।

এ প্রসঙ্গে ইউএনও বলেন, মহামারি করোনাকালের শুরুতে সরকার মানুষের জন্য ত্রাণ সহায়তার ব্যবস্থা করেছে। বাড়ি বাড়ি খাদ্যসামগ্রী পৌঁছে দিয়েছে। এখন দিচ্ছে বীজ, সার ইত্যাদি। নগদ টাকা না দিয়ে এসব দেওয়া হচ্ছে উৎপাদন বাড়াতে। যাতে কৃষকরা তাদের চাহিদা মিটিয়ে বাজারে বিক্রি করে লাভবান হতে পারে। অন্যদিকে এলাকাবাসী সেগুলো কিনে তাদের চাহিদা মেটাতে পারে। তাই আপনারা সরকারি বরাদ্দের এসব সামগ্রী ঘরে না ফেলে রেখে সুন্দর ও যত্নের সঙ্গে আবাদ করবেন। দেশের উৎপাদন ও অর্থনীতিতে অবদান রাখবেন।

পৌর মেয়র বলেন, ‘আমার বাসভবনের সামনে আমি নিজে বিভিন্ন শাক-সবজির আবাদ করেছি। দীর্ঘ তিন মাস ধরে সেখানে উৎপাদিত টাটকা শাক-সবজি আমি খাচ্ছি পরম তৃপ্তির সঙ্গে।’ এ সময় তিনি কৃষক ছাড়াও উপস্থিত সবাইকে বাসা-বাড়ির আঙিনার খালি জায়গায় শাক-সবজি আবাদ করার আহ্বান জানান।

এ সময় অন্যদের মধ্যে আলোচনা সভায় বক্তব্য দেন কৃষি সম্প্রসারণ কর্মকর্তা মাসুদুর রহমান প্রমুখ।

%d bloggers like this: