Durnitibarta.com
ঢাকাবুধবার , ১৮ জানুয়ারি ২০২৩
আজকের সর্বশেষ সবখবর

ঈশ্বরগঞ্জ-আঠারবাড়ী সড়কের সারি সারি রডগুলো যেন মরন ফাঁদ

প্রতিবেদক
Homayoun Kabir
জানুয়ারি ১৮, ২০২৩ ১০:৩৫ অপরাহ্ণ
Link Copied!

ঈশ্বরগঞ্জ প্রতিনিধিঃ

ঈশ্বরগঞ্জ-আঠারবাড়ী নির্মাণাধীন সড়কটি যেন মরণ ফাঁদে পরিণত হয়েছে। সারি বেঁধে রড বের হয়ে থাকা সড়কটি দিয়ে ঝুঁকি নিয়েই চলছে পথচারী ও বিভিন্ন যানবাহন। স্কুল, কলেজ, মাদ্রাসাসহ প্রায় অর্ধশত শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থী ছাড়াও ৪টি ইউনিয়নের নানা শ্রেণি পেশার কয়েক লাখ মানুষ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স, রেলওয়ে স্টেশন ও পৌর শহরে নিয়মিত যাতায়াত করে এ রাস্তাটি দিয়ে।

সরেজমিনে দেখা যায়, দীর্ঘদিন ধরে নির্মাণ কাজ থমকে যাওয়া এ সড়কটির ঈশ্বরগঞ্জ পৌরসভার কিছু কিছু অংশে একপাশের কাজ হলেও অন্যপাশ দেবে আছে বেহাল দশায়। আর ওই কাজ করা অংশেই উঁকি দিয়ে আছে সারি সারি রড। ফলে সড়কটি দিয়ে চলাচল ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে পড়েছে জনসাধারণের। উপর দিকে বাঁকানো এসব রড যেকোন সময় হতে পারে হতাহতের কারণ। চরম ঝুঁকিপূর্ণ রডগুলো যেন দৃষ্টিগোচর হচ্ছে না কর্তৃপক্ষের।

জানা যায়, সড়ক ও জনপথ বিভাগের অধীনে ২০২০ সালের মার্চ মাসে শুরু হয় ১১৫ কোটি ৫৯ লাখ টাকা ব্যয়ে আঠারবাড়ী-ঈশ্বরগঞ্জ ১৫ কিলোমিটার সড়কের নির্মাণ কাজ। আর তা পরবর্তী ২ বছরের মধ্যে সম্পন্ন করার কথা ছিল। কিন্তু পৌর এলাকার কিছু অংশে অধিগ্রহণ জটিলতায় দীর্ঘদিন ধরে আটকে আছে সড়কটির কাজ। ফলে বিভিন্ন স্থানে সৃষ্টি হয়েছে বড় বড় গর্ত।

উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে যাতায়াতের একমাত্র রাস্তাটির এমন বেহাল দশা হওয়ায় রোগী নিয়ে যেতেও পোহাতে হচ্ছে চরম দুর্ভোগ। পাশাপাশি সুস্থ মানুষও হয়ে পড়ছে অসুস্থ।

পথচারী আসাদুজ্জামান রানা বলেন, বাজারে আসার আর কোন পথ না থাকায় ঝুঁকি নিয়েই চলাচল করছি এ রাস্তা দিয়ে।
স্থানীয় ব্যবসায়ী জাহাঙ্গীর আলম বলেন, দীর্ঘদিন ধরে রাস্তার কাজ বন্ধ থাকায় ব্যবসার চরম ক্ষতি হচ্ছে।
স্থানীয় ছফিউল্লাহ ফুআদ বলেন, রডগুলোর জন্য প্রতিনিয়ত আতঙ্কে যাতায়াত করছি। এতদিন ধরে রডগুলো এভাবে রয়েছে এতে কর্তৃপক্ষের কোন ভ্রæ-ক্ষেপ নেই।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে সওজের উপ-সহকারী প্রকৌশলী শেখ মোজাম্মেল হক জানান, ভেবেছিলাম ধারাবাহিকভাবে সম্পূর্ণ কাজ করাতে পারবো, তাই ওই রডগুলো বের করে রাখা হয়েছিলো। কিন্তু কিছু কিছু জমির মালিক অধিগ্রহণের টাকা ছাড়া কাজ করতে না দেওয়ায় রডগুলো এভাবেই রয়ে গেছে। চলাচলের ক্ষেত্রে রডগুলো যেন কোন প্রকার বাঁধা সৃষ্টি না করে এ বিষয়ে দ্রæত ব্যবস্থা নিব ।