সরকারি প্রকল্পের টাকা আত্মসাতের অভিযোগ সোনাবাড়িয়া চেয়ারম্যান মনিরুল ইসলাম এর বিরুদ্ধে

0

কলারোয়া(সাতক্ষীরা)প্রতিনিধি: সাতক্ষীরার কলারোয়া উপজেলার ৬নং সোনাবাড়িয়া ইউনিয়ন চেয়ারম্যান মনিরুল ইসলামের বিরুদ্ধে ব্যাপক দুর্নীতির অভিযোগে উপজেলা সমন্বয় কমিটির পক্ষ থেকে তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। সুবিধা বঞ্চিতদের লিখিত অভিযোগের প্রেক্ষিতে এই কমিটি গঠন করে উপজেলা প্রশাসন।

দোস্ত সোনাবাড়িয়া গ্রামের আফছদ্দিন গাইনির ছেলে আবুল খায়ের ও মাদরা গ্রামের আব্দুস সাত্তার মোল্লার ছেলে মেহেরুল্লাহর লিখিত বক্তব্যের অভিযোগ নামায় জানা যায়। কলারোয়া উপজেলার ৬নং সোনাবাড়িয়া ইউনিয়নের বিভিন্ন এলাকায় ২০১৭-১৮,২০১৮-১৯,২০১৯-২০২০ অর্থ বছরের টি আর, কাবিখা, কাবিটা ও এলজি এসপি ৯টি প্রকল্পের মোট ৭ লাখ ৬০ হাজার টাকা ও ১৫ মেট্রিক টন গম/ চাউলের কাজ না করে সমুদয় টাকা আত্মসাত করেন ৬নং সোনাবাড়িয়ার চেয়ারম্যান মনিরুল ইসলাম।

গত (১৩ সেপ্টেম্বর) তাদের সেই লিখিত অভিযোগ নামা গুলি জেলা প্রশাসক, জেলা ত্রাণ কর্মকর্তা, ডিডি এলজি ও কলারোয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বরাবর দাখিল করা হয়।

গতকাল মঙ্গলবার(১৫ সেপ্টেম্বর) উপজেলা মাসিক সমন্বয় কমিটি ঐ দুই ব্যক্তির অভিযোগ নামা গুলি আমলে নিয়ে তদন্ত কমিটি গঠনের সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়।

এ ব্যাপারে ৬নং সোনাবাড়িয়া চেয়ারম্যান মনিরুল ইসলাম মুখ খুলতে রাজি হননি তবে তিনি এত টুকু বলেছেন, প্রকল্পের কাজ না করে কি টাকা উঠানো যায়।

কলারোয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মৌসুমী জেরিন কান্তা বলেন, তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। তদন্ত শেষে বিস্তারিত হাম্বাদিক দের জানানো হবে। তদন্তে ঐ সকল প্রকল্পের চেয়ারম্যান সহজে টাকা আত্মসাতের সাথে জড়িত থাকুক প্রত্যেকেই আইনের আওতায় আনা হবে বলে তিনি জানান।

এদিকে কলারোয়া উপজেলার দুই বারের নির্বাচিত ভাইস চেয়ারম্যান এবং বর্তমান উপজেলা চেয়ারম্যান আমিনুল ইসলাম লালটু বলেন, উপজেলা সমন্বয় মিটিং এ মনিরুল চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে সরকারি প্রকল্পের টাকা আত্মসাতের অভিযোগ পাওয়া গেছে। তদন্ত করে দেখা হবে, তদন্তে দোষী সাব্যস্ত হলে চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে যথাযথ আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

উল্লেখ্য: গত ১০ই সেপ্টেম্বর বেনাপোল কাস্টম হাউজ এর সম্মুখে সাংবাদিকদের মানববন্ধন কর্মসূচিতে সোনাবাড়িয়া ইউনিয়ন চেয়ারম্যান মনিরুল ইসলামের বিরুদ্ধে প্রধানমন্ত্রী গৃহায়ন প্রকল্পে ব্যাপক দুর্নীতির অভিযোগের কথা ওঠে। তার দুর্নীতির বিষয়টি মিডিয়ায় প্রকাশিত হলে চেয়ারম্যান ক্ষিপ্ত হয়ে কলারোয়া থানায় সাংবাদিকদের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা করেন। এ নিয়ে মিডিয়া অঙ্গনে চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে ব্যাপক আলোচনার ঝড় বয়। চেয়ারম্যানের এই এহনো মিথ্যা মামলায় সাংবাদিক মহল ক্ষুদ্ধ এবং ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন। তারা এ মানববন্ধনে অনতিবিলম্বে চেয়ারম্যানের দায়ের করা মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের দাবি জানান।

%d bloggers like this: