লকডাউন শিথিল বলে, অপ্রয়োজনে ঘোরাঘুরি নয়- ওসি বোরহান উদ্দিন

0

ফারুক আহাম্মদ :
করোনাভাইরাস পরিস্থিতিতে সাধারণ ছুটি শেষে সারা দেশের মতো ময়মনসিংহের গৌরীপুরে রোববার (৩১মে) সরকারি-বেসরকারি অফিস-আদালত, ব্যাংক-বীমা, সব ধরনের দোকান,মার্কেট খুলেছে। সড়কে বেড়েছে যানবাহন চলাচল। সব খানে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার কথা থাকলেও তা পরিপূর্ণভাবে কোথাও প্রতিপালন করতে দেখা যায়নি।গৌরীপুরবাসী লকডাউন অবস্থা থেকে মুক্ত হয়ে স্বাভাবিক জীবনযাত্রা শুরু করলেও করোনা সংক্রমন রোধে বর্তমান অবস্থায় স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার ব্যাপারে কতটুকু সচেতন? লকডাইন শিথিলের পর পুলিশের ভুমিকার ব্যাপারে গৌরীপুর থানা অফিসার ইনচার্জ (ওসি)বোরহান উদ্দিনের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, অদৃর্শ্য এক ভাইরাসের বিরুদ্ধে আমরা যুদ্ধ করছি। পৃথিবীর কোন দেশ করোনা ভাইরাসের হাত থেকে মুক্ত থাকেনি। করোনা থেকে সুরক্ষায় – আমার সুরক্ষা আমার কাছে। এটি যদি অনুধাবন করতে না পারি আরেকজনকেতো জোর করে সুরক্ষা দেয়া কঠিন। জনগনের স্বার্থের কথা চিন্তা করে সামাজিক শারিরিক দুরত্ব বজায় রেখে সরকার স্বাস্থ্যবিধি মনে চলে চলাফেরার আদেশ জারি করেছেন, এখন আপনি অপ্রয়োজনে ঘোরাঘুরি করবেন, অকারণে বের হবেন, জনসমাগম করবেন তা কিন্তু হবে না। বর্তমানে প্রতিদিনই করোনা করোনা রোগীর সংখ্যা বৃদ্ধি পাচ্ছে। তাই অহেতুক ঘর থেকে বের হয়ে ঘোরাঘুরি করা যাবে না।সবাইকে চিন্তা করতে হবে আমরা একটি উন্নয়নশীল দেশে বাস করি। এখানে জীবন জীবিকা দুটিই রক্ষা করতে হবে। সরকারের নির্দেশ অনুযায়ী সবাইকে বাধ্যতা মুলক মাক্স পরে বের হতে হবে, শারিরিক ও সামাজিক দুরত্ব বজায় রেঝে চলতে হবে। পাবলিক যানবাহনে শারিরিক দুরত্ব বজায় রেখে প্রত্যেক যাত্রী ও ড্রাইভার হেলপারের মাক্স পড়তে হবে এবং গাড়ীতে জীবানুনাশক চিঠাতে হবে। এব্যাপারে আমাদের এলাকার হাইওয়ে ও উপজেলার বিভিন্ন জনবহুল স্থানে আমাদের টহল সহ সরকারি নির্দেশনায় চলাফেরায় আমাদের কার্যক্রম অব্যাহত আছে।
এটি একটি বৈশ্বিক দূর্যোগ, সবার সহযোগীতা নিয়েই আমরা এই পরিস্থিতির মোকাবেলা করতে চাই। তাই আসুন আমরা সবাই সরকারি বিধি নিষেধ মেনে চলি।নিজ এলাকা ও দেশকে করোনা মুক্ত রাখি।

%d bloggers like this: