ঢাকা ২৯.৯৯°সে ২৩শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

নীলফামারীতে জামায়াতের ২৮ নেতাকর্মীর জামিন নামঞ্জুর করে কারাগারে প্রেরন

নীলফামারীর ডোমার উপজেলায় পুলিশের দায়ের করা একটি মামলায় ২৮ জন জামায়াতের নেতা কর্মীকে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে। সোমবার নীলফামারী স্পেশাল ট্রাইব্যুনাল ও জেলা ও দায়রা জজ আদালতে ৩০ জন জামায়াত নেতাকর্মী আত্মসমর্পন করে জামিনের আবেদন করলে উক্ত আদালতের বিচারক মোঃ রেজাউল করিম অসুস্থ্য বিবেচনায় কেকতিবাড়ি  ইউনিয়নের সভাপতি আশিকুর রহমান, কেকতিবাড়ি ইউনিয়নের কর্মী ইনছান আলী ২ জনের জামিন মঞ্জুর করে বাকীদের জেল হাজতে প্রেরণের নির্দ্দেশ প্রদান করেন।
আটককৃত আসামীগন হলেন ডোমার সদর ইউনিয়নের আমীর মাওলানা আব্দুল কুদ্দুস, ডোমার সদর ইউনিয়নের কর্মী তফিজ উদ্দিন, আবু বক্কর, মজিবর মুন্সি, আনারুল ইসলাম, ভোগডাবুড়ি ইউনিয়ন কর্মী মোঃ মাসুদ শাহ্, মশিয়ার রহমান, রফিকুল ইসলাম, সাইফুল্লাহ, কেকতিবাড়ি ইউনিয়নের সাবেক সভাপতি আব্দুল বারী, ইউনিয়নের কর্মী আব্দুল হালিম, ডোমার পৌরসভার কর্মী দেলোয়ার হোসেন, আব্দুল্লাহ মুন্সি, বোড়াগাড়ি ইউনিয়ন কর্মী আব্দুস সাত্তার, আলম ইসলাম, গোমনাতি ইউনিয়ন কর্মী মো: আপেল ও ময়নুদ্দিন ওরফে মালু, রশিদুল ইসলাম, মোস্তাকিম ইসলাম, জোড়াবাড়ি ইউনিয়ন আমীর লিয়াকত আলী, ইউনিয়নের কর্মী কারিমুল ইসলাম, পাঙ্গা ইউনিয়ন সভাপতি আব্দুল রাজ্জাক, ইউনিয়নের কর্মী মাওলানা আব্দুল হালিম, বামুনিয়া ইউনিয়নের কর্মী আইয়ুব আলী, সোনারায় ইউনিয়নের কর্মী নজরুল ইসলাম, হরিনচড়া ইউনিয়নের কর্মী নিজামুদ্দিন মুন্সি, এছাহাক আলী, সাদেক হোসেন।
আদালত সূত্র জানায়, একাদশ সংসদ নির্বাচন বানচাল এবং সরকারী সম্পত্তি ক্ষতিসাধনের লক্ষ্যে ২০১৮ সালের ১২ সেপ্টেম্বর পুলিশ বাদী হয়ে ২২ জনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাত আরো ৭০/৮০ জনের নামে ডোমার থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। পরবর্তীতে এই মামলায় ৭৯ জনের নামে আদালতে চার্জসীট দাখিল করা হয়। ২৮ আসামীকে বিকেল পাঁচটায় নীলফামারী জেলা কারাগারে পাঠানো হয়েছে এবং ওই মামলায় আরো ২১ আসামী এখনো পলাতক রয়েছে।




আপনার মতামত লিখুন :

এক ক্লিকে বিভাগের খবর


x