মেসির সঙ্গে তার পিতার তুলনা মানতে নারাজ ম্যারাডোনা পুত্র

0

ক্রীড়া ডেস্ক,

ফুটবল বিশ্বে যারা আর্জেন্টিনাকে চিনিয়েছেন তাদের মধ্যে অন্যতম দিয়েগো ম্যারাডোনা। আর বর্তমানে মোটামুটিভাবে একাই আর্জেন্টিনাকে বিশ্ব ফুটবলে জিইয়ে রেখেছেন লিওনেল মেসি। ফলে খুব স্বাভাবিকভাবেই তাদের দুজনের মধ্যে তুলনামূলক বিচার চলে আসে। কিন্তু ম্যারাডোনা পুত্র দিয়েগো সিনাগ্রা তা মানতে নারাজ। জানালেন মেসির সঙ্গে তার বিশ্বকাপজয়ী পিতার তুলনা চলে না।

চ্যাম্পিয়ন্স লিগে নাপোলির বিরুদ্ধে মরণ-বাঁচন ম্যাচের আগে লিওনেল মেসির উদ্দেশে বার্তা দিলেন ম্যারাডোনা পুত্র। পরিষ্কার বলে দিলেন, মেসি দারুণ। কিন্তু মানুষ। আমার বাবা ঈশ্বর। তাই কোনও তুলনাই হতে পারে না।

যে নাপোলিকে ম্যারাডোনাই বিখ্যাত করেছিলেন, কাকতালীয় ভাবে ইতালির সেই ক্লাবের বিরুদ্ধেই চ্যাম্পিয়ন্স লিগের শেষ ষোলোয় দ্বিতীয় পর্বে শনিবার পরীক্ষা দিতে নামছেন মেসি। প্রথম পর্বে বার্সা তারকা নিষ্ক্রিয় ছিলেন নাপোলি ম্যানেজার জেন্নারো গাত্তুসোর রণকৌশলে। ১-১ ড্র করেছিল বার্সা। ম্যাচের চব্বিশ ঘণ্টা আগে ম্যারাডোনা পুত্রের এই বার্তা যথেষ্ট তাৎপর্যপূর্ণ।

তিনি বলেছেন, ‘আমার বাবার সঙ্গে কারও তুলনা হয় না। আসলে কোনও মানুষের সঙ্গে ভিনগ্রহের কারও কী ভাবে আপনি তুলনা করবেন?’ তবে মেসির প্রশংসাও করেছেন তিনি। বলেছেন, ‘মেসিও এক বিস্ময়। আমরা এটা বলতেই পারি যে ম্যারাডোনা হচ্ছে ফুটবলের ঈশ্বর। আর মানবসমাজের মধ্যে শ্রেষ্ঠ মেসি। দুঃখের সঙ্গে বলতে হচ্ছে, কারও ক্ষমতা নেই, আমার বাবার উচ্চতায় পৌঁছনোর। তা অসম্ভব।’

নাপোলিতে খেলার সময়, সিনাগ্রার মায়ের সঙ্গে সম্পর্কে জড়ান ম্যারাডোনা এবং জন্মের বহু বছর পরে তাকে ছেলে হিসেবে স্বীকৃতি দেন বিশ্বকাপজয়ী আর্জেন্টিনার অধিনায়ক। সিনাগ্রা ইতালিতে থাকলেও আর্জেন্টিনায় মেসি ও তার বাবাকে নিয়ে কী হচ্ছে, সব খবরই তিনি রাখেন!

সিনাগ্রাও একসময় চুটিয়ে ফুটবল খেলেছেন। ইতালির অনূর্ধ্ব-১৭ দলেও ছিলেন। এখন অবশ্য ‘বিচ-ফুটবল’ খেলাই তার পেশা।

ম্যারাডোনার স্মৃতিবিজরিত নাপোলির বিরুদ্ধে ম্যাচের আগে বার্সা শিবিরের অন্দরমহলের পরিস্থিতি খুব একটা স্বস্তিদায়ক নয়। প্রথম পর্বের ফল ১-১ ছিল। এ বার লড়াই ঘরের মাঠ ক্যাম্প ন্যু-তে। অন্য সময় হলে ফুটবল পণ্ডিতেরা মেসিদেরই এগিয়ে রাখতেন কিন্তু বার্সা শিবিরের অশান্তি পরিস্থিতিটাই বদলে দিয়েছে।

ম্যানেজার কিকে সেতিয়েনের ফুটবলারদের সম্পর্ক তলানিতে। ব্রাজিলীয় মিডফিল্ডার আর্থার মেলো ক্ষোভে বার্সেলোনার অনুশীলনে নামাই বন্ধ করে দিয়েছেন। নির্বাসিত থাকায় আর্তুরো ভিদাল, সের্খিয়ো বুস্কেৎস-ও নেই। তবে চোট সারিয়ে দলে ফিরছেন আঁতোয়া গ্রিজ়ম্যান।

এত কিছুর পরেও সেতিয়েনের উপরে আস্থা হারাননি বার্সা প্রেসিডেন্ট জোসেপ মারিয়া বার্তোমেউ। আগামী মৌসুমেও তাকে রাখার কথা ঘোষণা করে দিয়েছেন তিনি। যদিও ফুটবল বিশেষজ্ঞেরা মনে করছেন, নাপোলি ম্যাচের উপরেই নির্ভর করছে সেতিয়েনের ভবিষ্যৎ।

%d bloggers like this: