মুক্তাগাছায় ভোগদখলকৃত সংখ্যালঘু অনন্ত চন্দ্র মহানায়কের পরিবারের জমি দখলের পায়ঁতারা

0
নিজস্ব প্রতিবেদক :
ময়মনসিংহের মুক্তাগাছা উপজেলার চন্দনীআটা  এলাকায় এক হিন্দু পরিবারের জমি জোরপূর্বক বেদখলের অভিযোগ উঠেছে । জানাগেছে, চন্দনীআটা গ্রামের মৃতঃ মফিজ উদ্দিন মন্ডলের পুত্র আজিতউল্লা একই গ্রামের মৃত ধীরেন্দ্র চন্দ্র মহানায়ক এর সর্বকনিষ্ঠ পুত্র অনন্ত চন্দ্র মহানায়ক এর পৈতৃক ভোগ দখলীয় জমি দখলের পায়তাঁরা করে আসছে।
স্হানীয়সূত্রে আরো জানাযায়, আজিতউল্লাহ’র ক্রয়কৃত জমি( যাহার দাগ নং বি আর এস – ৬৭৪ দাগে ৭শতাংশ, বি আর এস – ৫১০ দাগে ৩ শতাংশ, বি আর এস – ৬৭১ দাগে আড়াই শতাংশ) তার এবং তার ভাইদের দখলে থাকা সত্বেও ধীরেন্দ্র চন্দ্র মহানায়ক পুত্র অনন্ত চন্দ্র মহানায়কের বি আর এস ৭৩৪ দাগের জমি দখল করার উদ্দেশ্যে গত সোমবার সকালে ধান ক্ষেতে গরু ছেড়ে দেন। এদিকে আজিতউল্লাহ’র সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, আমার ধান ক্ষেত আমি গরু দিয়ে খাওয়াব তারপর কচু রোপন করবো।
তবে  আজিতউল্লাহ এর দলিলকৃত জমির পুরোটাই তাদের দখলে রয়েছে বলে জানান স্হানীয়রাও। স্হানীয় ইউপি সদস্য মজিবর রহমান ফরাজী বলেন,আজিতউল্লাহ’র ক্রয়কৃত জমি তাদের দখলেই রয়েছে তারপরও অনন্ত চন্দ্র মহানায়কের ৭৩৪ দাগের জমি দখল করার জন্য চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন আজিতউল্লাহ গং রা, যা সম্পূর্ণ বেআইনী । আর স্হানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গদের নিয়ে একাধিক শালিস করার পরও  এর সমাধান করা সম্ভব হয়নি আজিতউল্লাহদের পরিবারের লোভ এবং একটি মহলের ইন্ধনে।
অনন্ত চন্দ্র মহানায়ক বলেন, আমরা তার কাছে জমি বিক্রয় করিনি কিন্তু তাদের ভাষ্য মতে আমার বাবা তাদের কাছে জমি বিক্রয় করেছিল কিন্তু দলিল করে দেননি, তাই আমরা বাবার ঋণ শোধ করতে তাদের নামে দলিল করে দেই। দলিল করার পূর্বে আজিতউল্লাহ ও তার পরিবারের পক্ষ থেকে বলা হয় জমি তাদের দখলেই রয়েছে শুধু আমরা দলিল করে দিলেই হবে। তাদের কথা অনুযায়ী আমরা ঐ জমি দলিল করে দেওয়ার পর এখন আমার দখলীয় ৭৩৪ দাগের জমি বেদখল করার চেষ্টা করছেন। এই বিষয়ে আমি মামলার প্রস্তুতি নিচ্ছি।
এই বিষয়টি মুক্তাগাছা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ওসি বিপ্লব কুমার বিশ্বাসকে অবহিত করা হলে তিনি বলেন, অভিযোগ পেলে তদন্ত সাপেক্ষে প্রয়োজনীয় আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

%d bloggers like this: