ঢাকা ৩৬°সে ১৩ই এপ্রিল, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

প্রবাসী স্ত্রীর টাকা-স্বর্ণালঙ্কার নিয়ে দেশে এসে ‘স্ত্রীকে অস্বীকার’

ময়মনসিংহ প্রতিনিধি :

সৌদি আরবেই পরিচয়, প্রেম। এরপর বিয়ে করে দম্পতি হন টাঙ্গাইলে ভুয়াপুর উপজেলার মেয়ে নুরজাহান বেগম এবং ময়মনসিংহের নান্দাইল উপজেলার সোহাগ মিয়া। তাদের বিয়ের বয়স আট মাস হলেই স্ত্রীর জমানো সমস্ত টাকা ও ১০ ভরি সোনার গহনা নিয়ে দেশে চলে আসেন স্বামী সোহাগ। বুঝতে পেরে সপ্তাহ পর স্ত্রী সৌদি থেকে স্বামীর গ্রামের বাড়ি ময়মনসিংহের নান্দাইলের জাহাঙ্গীরপুর ইউনিয়নের সুরাটি গ্রামে এসে অবস্থান নেন নুরজাহান।

তবে সেখানে এসে মারধরের শিকার হন নুরজাহান। এ অবস্থায় পুলিশ তাকে উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে। গত রবিবার বিকালে এ ঘটনা ঘটে।

থানায় অবস্থান করা ওই নারী ও তার লিখিত অভিযোগ থেকে জানা যায়, টাঙ্গাইলের ভুয়াপুর উপজেলার মাইজবাড়ি গ্রামের নুরুল ইসলামের মেয়ে নুরজাহান বেগম। গত ১৩ বছর আগে সৌদি আরবে যান কাজের সন্ধানে। সেখানে একটি মাদ্রাসায় ও একটি দোকানে কাজ নেন। এর মধ্যে পরিচয় ঘটে ময়মনসিংহের নান্দাইল সোহাগ মিয়ার সঙ্গে। ২০২০ সালের ৪ মে বিয়ে করেন তারা। নুরজাহানকে বিয়ে করে সৌদিতে নানান সুবিধা ভোগ করেন সোহাগ।

ভুক্তভোগী জানান, সংসার চলা অবস্থায় বাড়িতে ঘর করার কথা বলে কয়েক দফায় সোহাগ তার থেকে প্রায় ৩০ লাখ টাকা নেন। সোহাগ তাকে জানায়, কয়েক বছর চাকরি করার পর তারা দুজনে আর সৌদি আরবে থাকবে না। দেশে এসে পড়বে। স্বামীর কথামতোই সব কিছু চলতে থাকে। এ অবস্থায় গত ১৭ জানুয়ারি দুজনের কর্মস্থলে চলে গেলে রাতে এসে দেখতে পান স্বামী সোহাগ মিয়া বাসায় আসেনি। পরদিন অনেক জায়গায় খোঁজাখুজি করেও তার কোনো সন্ধান পাওয়া যায়নি।

এর মধ্যে সোহাগের এক মামা (সৌদি প্রবাসী) সবুজ মিয়ার মাধ্যমে জানতে পারেন সোহাগ দেশে চলে গেছে। পরে বাসায় খোঁজ করে দেখতে পান তার ড্রয়ারে থাকা নগদ আড়াই লাখ টাকা ও সোকেসে থাকা বিভিন্ন গহনা (যার পরিমাণ অন্তত ১০ ভরি) খোয়া যায়। এ ঘটনার এক সপ্তাহ পর তিনি দেশে এসে সরাসরি স্বামীর গ্রামের বাড়িতে এসে দেখা পেলেও স্ত্রী হিসেবে তাকে অস্বীকার করে বিভিন্ন ধরনের হুমকি দিয়ে লাপাত্তা হয়ে যায় সোহাগ। এরপর থেকে গত এক সপ্তাহ ধরে তিনি স্বামীর অপেক্ষায় থাকলেও রবিবার স্বামীর বাবা ও পরিবারের অন্যরা তাকে গলাধাক্কা দিয়ে বের করার চেষ্টার পর ব্যাপক মারধর করে। খবর পেয়ে পুলিশ উদ্ধার করে তাকে থানায় নিয়ে আসে।

নান্দাইল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মিজানুর রহমান জানান, ঘটনার সূত্রপাত সৌদি আরবে। তারপরও স্বামীর বাড়িতে লাঞ্ছিত হওয়ার ঘটনায় ওই নারীর কাছ থেকে একটি লিখিত অভিযোগ নেওয়া হয়েছে। এ বিষয়ে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।




আপনার মতামত লিখুন :