বৃহত্তর ময়মনসিংহের গর্ব ল্যাপ্টে. কমান্ডার মোজাক্কির আরোগ্য লাভের জন্য দেশবাসীর কাছে দোয়া কামনা

0

নিজস্ব প্রতিবেদক ঃ

বাংলাদেশ নৌবাহিনীর একজন চৌকস লেফটেন্যান্ট কমান্ডার মোজাক্কির হোসেন খান মিশু। বৃহত্তর ময়মনসিংহের গর্ব। নেত্রকোণা জেলার আটপাড়া উপজেলার কুতুবপুর গ্রামের মুক্তিযোদ্ধা মতিউর রহমান খান ও ড. সালেহা কাদেরের একমাত্র পুত্র। তবে জন্মগতভাবেই পিতার কর্মসূত্রে ঢাকা মিরপুর ১০ এ বসবাস করছেন।

তিনি বাংলাদেশের ইতিহাসে প্রথম মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর সামনে যুদ্ধ জাহাজে সামরিক মেরিটাইম হেলিকপ্টার ল্যান্ডকারী দক্ষ পাইলট এবং নৌবাহিনীর এক্সিজিকিউটিভ শাখার একজন চৌকস অফিসার। তার কৌশল ও দক্ষতায় মুগ্ধ হয়ে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর ভূয়সী প্রশংসায় নৌবাহিনীর প্রধান তাকে নৌপ্রধান প্রশংসা পদক প্রদান করেন।

বাংলাদেশ নৌবাহিনীর একজন অভিজ্ঞ হেলিকপ্টার প্রশিক্ষক। বিভিন্ন সময়ে প্রশিক্ষণের উদ্দেশ্যে সফর করেছেন- ভারত, সিঙ্গাপুর, ইটালি, মালয়েশিয়া, ইন্দোনেশিয়া, চায়না, আমেরিকা, মায়ানমার, সুইজারল্যান্ড, ওমান, দুবাই, আরব-আমিরাত সহ আরো অনেক রাষ্ট্রে। ইতোপূর্বে স্কুল জীবনে স্কাউটে প্রেসিডেন্টস স্কাউট এ্যাওয়ার্ড পুরস্কার প্রাপ্তি ও সরকারিভাবে নানাবিধ পরীক্ষায় কৃতকার্য হয়ে ভ্রমণ করেছিলেন- ভারত, জাপান ও থাইল্যান্ড।

কলেজ জীবনে আদমজী ক্যান্টনমেন্ট কলেজে বিএনসিসির ক্যাডেট আন্ডার অফিসার ছিলেন এবং তার চৌকস নেতৃত্বের জন্য সরকারিভাবে ভারতের প্রজাতন্ত্র দিবস প্যারেডে যাবার সুযোগ পান। লেফটেন্যান্ট কমান্ডার মোজাক্কির আমেরিকা হতে বিশেষ প্রশিক্ষণ গ্রহনকারী বাংলাদেশ নৌবাহিনীর প্রথম দুইজন কোয়ালিফাইড হেলিকপ্টার প্রশিক্ষকের একজন।

তার অসামান্য উড্ডয়ন দক্ষতার জন্য চীনের ‌আর্মি এভিয়েশনে ত-৯ WA এবং ত-৯ Proto সামরিক এ্যাটাক হেলিপ্টারের বিশেষ প্রশিক্ষণের বিরল সুযোগ পেয়েছিলেন এবং উক্ত হেলিপ্টার এককভাবে চালনার ক্যাপ্টনসি অর্জন করেন।

এছাড়া বাংলাদেশ নৌবাহিনীতে ২০০৪ এ কমিশন লাভের সময় সেরা মিডশিপমেন হিসেবে সোর্ড অফ অনার এবং নৌপ্রধান স্বর্ণ পদক লাভ করেন। তার পরিশ্রম আর মেধায় জীবনের প্রতিটি ক্ষেত্রেই তিনি কর্মক্ষমতা ও সফলতার অনন্য দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছেন, পাশাপাশি শত ব্যাস্ততার মাঝেও খোঁজ রেখেছেন সকল আত্মীয় স্বজন ও বন্ধু-বান্ধবের।

সর্বদা সবার পাশে থেকেছেন বিপদে-আপদে। যখন যেখানে গিয়েছেন চমৎকার বন্ধু সুলভ আচরণে জয় করেছেন সকল মানুষের হৃদয়।

ব্যাক্তি জীবনে এক সন্তানের জনক এই অসামান্য প্রতিভার অধিকারী মানুষটি আজ স্টোমাক ক্যান্সারে আক্রান্ত। তবে মহান আল্লাহর অসীম রহমতে বর্তমানে সিঙ্গাপুরে সফল অপারেশনের পর তার ক্যান্সারের টিউমারটি সফলতারসাথে অপসারণ করা হয়েছে এবং বর্তমানে কেমোথেরাপি নিচ্ছেন নিয়মিত। বাংলাদেশের গর্ব লেফটেন্যান্ট কমান্ডার মোজাক্কির হোসেন খান মিশু সকলের কাছে দোয়া প্রত্যাশী, সৃষ্টিকর্তা যেন তাকে দ্রুত আরোগ্য দান করেন।

%d bloggers like this: