ফেসবুক বন্ধের প্রশ্নই আসে না: তারানা

0

মধ্যরাতে ফেসবুক বন্ধ থাকার বিষয়টি নিয়ে পক্ষে-বিপক্ষে যখন আলোচনা তুঙ্গে তখন ডাক ও টেলিযোগাযোগ প্রতিমন্ত্রী তারানা হালিম জানিয়েছেন, জনপ্রিয় এই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমটি বন্ধ হচ্ছে না এবং তা বন্ধ রাখার কোনো প্রশ্নই আসে না।

মঙ্গলবার বিকালে সচিবালয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে প্রতিমন্ত্রী এই কথা বলেন। ফেসবুক বন্ধের বিষয়টি নিয়ে বিভ্রান্তি সৃষ্টির পরিপ্রেক্ষিতে ডাকা হয় এই সংবাদ সম্মেলন। এ সময় ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রণালয়ের সচিব শ্যাম সুন্দর শিকদার উপস্থিত ছিলেন।

তারানা হালিম বলেন, ‘ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রণালয় দৃঢ়ভাবে বলতে চায় কোনো ঘণ্টার জন্যই ফেসবুক বন্ধের সিদ্ধান্ত নেয়নি বা হয়নি। ফেসবুক বন্ধের প্রশ্নই ওঠে না। মাঝরাতে ছয় ঘণ্টার জন্য ফেসবুক বন্ধ হচ্ছে এ ধরনের খবর প্রকাশিত হওয়ায় আমি মর্মাহত হয়েছি, কষ্ট পেয়েছি।’

ফেসবুক সম্পর্কে সরকারের অবস্থান ব্যাখ্যা করে প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘কেবিনেট ডিভিশন থেকে টিঅ্যান্ডটি মন্ত্রণালয়ের কাছে ফেসবুক বন্ধ রাখার বিষয়ে একটি ব্যাখা চাওয়া হয়। এটি তাদের রুটিন ওয়ার্ক, তারা মতামত চেয়েছেন। আমরা তখনই মৌখিকভাবে কেবিনেট বিভাগকে জানায়, এটি সম্ভব নয়। তবে প্রথম দফায় যে চিঠিটি আসে সেটি আমার কাছে আসেনি। সেটি সচিব পর্যায়ে মীমাংসা হয়ে গেছে। এরপর দ্বিতীয় দফা চিঠিটি গত দুইদিন আগে আমার কাছে আসে। পরে আমরা টিঅ্যান্ডটি মন্ত্রণালয় থেকে আমাদের মতামত বিটিআরসিকে জানিয়েছি এবং তাদের কাছ থেকেও এ বিষয়ে মতামত চেয়েছি। সেই মতামত আজ লিখিতভাবেই মন্ত্রিপরিষদ বিভাগে পাঠিয়েছি।’

কী মতামত পাঠিয়েছেন? প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘আমরা জানিয়েছি, ফেসবুক বন্ধ রাখা সম্ভব না। কারণ ফেসবুক শুধু শিক্ষার্থীরা ব্যবহার করে না, এটা বয়স্করাও ব্যবহার করেন। আর ই-কমার্স ফেসবুকের মাধ্যমেই হয়। এছাড়া আমাদের দেশে যখন রাত অন্য দেশে তখন দিন। কাজেই এটা সমীচীন হবে না। চিঠিতে আমরা অভিবাকদের সচেতন হওয়ার পরামর্শ দিয়েছি। তাদের ফেসবুকসহ ইন্টারনেটের ইতিবাচক ব্যবহার সম্পর্কে সচেতন হওয়ার পরামর্শ দিয়েছি।’

তারানা হালিম বলেন, ‘ফেসবুক বন্ধ সম্পর্কে যেসব রিপোর্ট প্রকাশ করা হয়েছে তা সম্পূর্ণ কাল্পনিক। ইস্যুটি খুবই স্পর্শকাতর, ফলে এ সংক্রান্ত বিষয়ে আপনাদের আমার সঙ্গে যোগাযোগ করার পরামর্শ দিচ্ছি। আমি সবার সঙ্গে কথা বলি। এমনকি কেউ এসএমএস করলে তারও জবাব দেই।’

বর্তমান সরকার ডিজিটাল সরকার, কাজেই ডিজিটাল দেশ গড়তে বাধা সৃষ্টি করে এমন কোনো সিদ্ধান্ত সরকার নেবে না বলে জানান প্রতিমন্ত্রী।

সোমবার বিভিন্ন অনলাইন গণমাধ্যমে খবর ছড়িয়ে পড়ে, মধ্যরাতে ছয় ঘণ্টা ফেসবুক বন্ধ রাখার বিষয়ে ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগকে চিঠি দিয়েছে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের মাঠ প্রশাসন শাখা। ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগ এ বিষয়ে টেলিযোগাযোগ খাতের নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশনের (বিটিআরসি) মতামত চেয়েছে। মন্ত্রিপরিষদ থেকে এমন চিঠি পাওয়ার কথা বিটিআরসির চেয়ারম্যান শাজাহান মাহমুদ স্বীকার করেছেন বলেও সংবাদে উল্লেখ করা হয়।

মধ্যরাতে ফেসবুক বন্ধ থাকবে এমন খবর প্রকাশের পর এটা নিয়ে মিশ্র প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি হয়। অনেকে এমন সিদ্ধান্তকে সাধুবাদ জানালেও বেশির ফেসবুক ইউজার এর বিরোধিতা করেন। এমনকি প্রযুক্তিবিদেরাও এমন প্রস্তাবের সমালোচনা করেন। তাদের মতে, দেশ যখন ডিজিটাল হয়েছে তখন ফেসবুকের মতো বিপুল জনপ্রিয় একটি সামাজিক মাধ্যম বন্ধ রাখা কোনোভাবেই যৌক্তিক হতে পারে না।

%d bloggers like this: