প্রতিদিন ১ লাখের বেশি আক্রান্ত: বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা

0

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা বা ডব্লিউএইচও জানিয়েছে, গত দুই সপ্তাহ ধরে বিশ্বজুড়ে প্রতিদিন এক লাখের বেশি মানুষ করোনায় আক্রান্ত হয়েছে। তারা বলছে, এসব আক্রান্তের ঘটনা মূলত আমেরিকা ও দক্ষিণ এশিয়ায় ঘটেছে। যেসব দেশে করোনার সংক্রমণ রোধ করা গেছে, সেসব দেশকে ‌‘সম্ভাব্য নতুন প্রাদুর্ভাবের ব্যাপারে অবশ্যই সতর্ক’ থাকতে হবে বলেও জানিয়েছে সংস্থাটি।

নতুন আক্রান্তদের বেশির ভাগই আমেরিকা ও দক্ষিণ এশিয়ার অঞ্চলের। আর যেসব দেশ পরিস্থিতি অনেকটা নিয়ন্ত্রণে নিয়ে এসেছে ফের সংক্রমণ ছড়ানোর সম্ভাবনা নিয়ে তাদেরকে অবশ্যই সতর্ক থাকার আহ্বান জানিয়েছেন আধানম। টানা ৫০ দিন করোনাভাইরাসে সংক্রমণহীন দিন কাটানোর পর সম্প্রতি ফের চীনের রাজধানীতে ভাইরাসটির উপস্থিতি দেখা দিয়েছে। বেইজিংয়ে নতুন করে করোনা সংক্রমণের কারণগুলো খতিয়ে দেখা হচ্ছে বলে জানান আধানম।

করোনাভাইরাসের আক্রান্তের তথ্য তুলে ধরে তিনি জানান, আক্রান্তের সংখ্যা ১ লাখে পৌঁছাতে সময় লেগেছিল দুই মাসের বেশি। আর এখন প্রতিদিনই ১ লাখ আক্রান্ত স্বাভাবিক হয়ে দাঁড়িয়েছে। প্রতিদিনকার নতুন আক্রান্তের প্রায় তিন চতুর্থাংশই হচ্ছে ১০টি দেশে। আর দেশগুলোর বেশির ভাগই দক্ষিণ এশিয়া ও আমেরিকা অঞ্চলের। দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলোর মধ্যে পাকিস্তানে আশঙ্কাজনকভাবে করোনা রোগী বাড়তে পারে বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা।

তারা বলছেন, পাকিস্তানের মানুষজন যদি সামাজিক দূরত্ব এবং অন্যান্য সতর্কতা মেনে না চলে তবে এই মাস শেষে সেখানে আক্রান্তের সংখ্যা দ্বিগুণ হতে পারে। জন হপকিন্স বিশ্ববিদ্যালয়ের তথ্যমতে সোমবার পর্যন্ত পাকিস্তানে ১ লাখ ৪৪ হাজার ৪৭৮ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছে। আর মৃত্যু হয়েছে ২ হাজার ৭২৯ জনের। তবে জুলাইয়ের মধ্যে আক্রান্তের সংখ্যা ১২ লাখ পর্যন্ত পৌঁছাতে পারে বলে সতর্ক করে দিয়েছে বিশেষজ্ঞরা। এমন পরিস্থিতিতে পাকিস্তানে ফের লকডাউন দিতে আহ্বান জানিয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা।

%d bloggers like this: