পাবনায় বিদ্যুতের লোডশেডিংয়ে জনজীবন অতিষ্ঠ 

0

পাবনা প্রতিনিধি : পাবনা পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-১ এর আওতাধীন চাটমোহর, ভাঙ্গুড়া, ফরিদপুর, আটঘরিয়া ও ঈশ্বরদী-পাবনা সদরে (আংশিক) উপজেলাগুলোতে বিদ্যুতের বিভ্রাট ও লুকোচুরিতে অতিষ্ঠ হয়ে পরেছে জনজীবন।

শিক্ষার্থীরা অভিযোগ করেন, দিনে রাতে ১০/১২ বার বিদ্যুতের লোডশেডিং চলে। এই আছে, এই নেই, বিদ্যুতের এমন লুকোচুরি খেলা একদিনের নয়, নিত্যদিনের সঙ্গী হয়ে দাঁড়িয়েছে। সন্ধা থেকে রাত ১০টা পর্যন্ত মাত্র ২ ঘন্টা বিদ্যুৎ সরবরাহের পর রাত সাড়ে ১২টা থেকে টানা ৩টা পর্যন্ত বিদ্যুৎ সরবরাহ বন্ধ থাকছে। ভোর ৪টার থেকে বিদ্যুতের লোডশেডিং শুরু হয়। বিদ্যুৎ না থাকায় লেখাপড়ার বিঘ্ন ঘটছে। এ অবস্থায় লোডশেডিং চলতে থাকলে তাহলে বিদ্যুৎ সংযোগ থাকার চেয়ে না থাকাই ভালো।

বিদ্যুৎ গ্রাহকরা জানায়, নির্দিষ্ট সময়ে লোডশেডিং হলে আমরা আগেভাগে থেকে প্রস্তুতি নিয়ে থাকতে পারতাম। একদিকে অসহনীয় গরম, অপর দিকে বিদ্যুৎ না থাকায় মানুষের স্বাভাবিক জীবনযাত্রার মান ব্যাহত হচ্ছে। এতে ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে সাধারণ মানুষের। বিদ্যুতের বিঘ্ন ঘটার কারণে কম্পিউটার, ফ্রিজ, পানির মোটর, ফটোকপি মেশিনসহ বিদ্যুৎচালিত যন্ত্রপাতি বিকলসহ নষ্ট হয়ে পড়ছে। এতে অফিস আদালত, স্কুল, কলেজ, বিভিন্ন কলকারখানায় বিদ্যুৎ না থাকায় ভোগান্তি পোহাতে হয়।

এব্যাপারে পাবনা পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-১ এর জেনারেল ম্যানেজার শাহ জুলফিকার হায়দার পিইঞ্জ বলেন, লোডশেডিংয়ের কারণে মানুষের জীবন যে দুর্বিষহ হয়ে উঠেছে, সেটা আমরাও বুঝতে পারছি। তারপরও আমাদের কিছু করার নেই। আমরা যেভাবে যা বিদ্যুৎ পাচ্ছি, সেভাবে সরবরাহ করছি।

%d bloggers like this: