loading...

পানিতে তলিয়ে গেছে ভোলার দ্বীপচর

0

ভোলায় ঘূর্ণিঝড় আম্পানের প্রভাবে বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গেই ঝড়ো বাতাস বইতে শুরু করেছে। ফলে উত্তাল হয়ে উঠেছে নদ-নদী। প্রবল জোয়ারে জেলার বিচ্ছিন্ন দ্বীপচর ঢালচর, চর পাতিলা,কলাতলীর চর এবং মনপুরার বাঁধের বাহিরের এলাকা প্লাবিত হয়েছে। এতে পানিবন্দি হয়ে পড়েছেন কয়েক হাজার মানুষ। বুধবার ভোলা জেলা প্রশাসক মাসুদ আলম ছিদ্দিক এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। জানা যায়, জেলার ২১টি ঝূঁকিপূর্ণ দ্বীপচর থেকে ট্রলার এবং বিভিন্ন মাধ্যমে তিন লাখ ১৬ হাজার বাসিন্দাকে আশ্রয়কেন্দ্রে নেওয়া হয়েছে। এছাড়া এক লাখ ৩৬ হাজার গবাদিপশুকেও নিরাপদ স্থানে সরিয়ে নেওয়া হয়েছে।

ভোলা জেলা প্রশাসক মাসুদ আলম ছিদ্দিক জানান, দ্বীপচরের মানুষকে আশ্রয়কেন্দ্রে আনতে কাজ চলছে। ঢালচর ও চর পাতিলা এলাকা প্লাবিত। নিরাপদ শারীরিক দূরত্ব নিশ্চিত করার লক্ষ্যে প্রতিটি আশ্রয়কেন্দ্রে গড়ে ২০০ জন করে রাখা হয়েছে। সেখানে আবস্থারতদের জন্য খাদ্যসামগ্রী দেওয়া হয়েছে। এছাড়াও বিশেষ চাহিদা সম্পন্ন শিশু, প্রতিবন্ধী, গর্ভবতী নারী ও বয়স্কদের জন্য আলাদা টিমের সদস্যরা সহযোগিতা করছেন। ঝূঁকিপূর্ণ চরে বাসিন্দাদের আনার কাজ চলমান রয়েছে। আবহাওয়া অফিস সূত্রে জানা যায়, দুপুর পর্যন্ত জেলায় আট মিলিমিটার বৃষ্টিপাত হয়েছে। এদিকে, জনগনকে সচেতন করতে এবং আশ্রয়কেন্দ্রে পৌঁছাতে জেলা প্রশাসন, জেলা পুলিশ এবং কোস্টগার্ড সদস্যদের পাশাপাশি কাজ করছে সিপিপি ও রেড ক্রিসেন্টের কর্মীরা। এছাড়াও বিভিন্ন স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন কাজ করে যাচ্ছেন।

loading...
%d bloggers like this: