নারী আইপিএলে যে দলে খেলবেন জাহানারা-সালমারা

0

পূর্ব নির্ধারিত সময় অনুযায়ী নভেম্বর ৪ তারিখ থেকেই শুরু হচ্ছে এবারের ওমেনস টি-টোয়েন্টি চ্যালেঞ্জ বা নারী আইপিএল। পুরুষদের আইপিএলের মতো নারী আইপিএলও আয়োজিত হচ্ছে আরব আমিরাতেই। আগামী ৪ নভেম্বর শুরু হয়ে চার ম্যাচের এই টুর্নামেন্টের ফাইনাল ম্যাচটি হবে ৯ নভেম্বর।

টুর্নামেন্টের তিন দলে সাত দেশের ১২ জন খেলোয়াড় অংশ নেবেন। যেখানে রয়েছে বাংলাদেশ নারী ক্রিকেট দলের দুই তারকা জাহানারা আলম ও সালমা খাতুনও। নারী আইপিএলের গত আসরেও খেলেছেন জাহানারা। তবে এবারই প্রথম এই অভিজ্ঞতা পেতে চলেছেন অফস্পিনিং অলরাউন্ডার সালমা।

গত আসরের মতো এবারও মিথালি রাজের নেতৃত্বে ভেলোসিটিতে খেলবেন মিডিয়াম ফাস্ট বোলার জাহানারা। অন্যদিকে সালমার জায়গা হয়েছে স্মৃতি মান্ধানার নেতৃত্বাধীন ট্রেইলব্ল্যাজার্সে। টুর্নামেন্টের অন্যদল সুপারনোভাসের অধিনায়ক হারমানপ্রিত কৌর। নারী আইপিএলের আগের দুই আসরেরই চ্যাম্পিয়ন সুপারনোভাস।

গত মৌসুমে খেললেও এবারের আসরে নেই সোফি ডিভাইন, সুজি বেটস, নাতাইল সিভার, স্টেফানি টেইলর, অ্যামেলিয়া কার, লিয়া তাহুহু এবং হেইলি ম্যাথুসের মতো নামি তারকারা। এবারের নারী আইপিএলে প্রথমবারের মতো সুযোগ পেয়েছেন থাইল্যান্ডের ক্রিকেটার নাত্থাকান চানথাম। সালমার সতীর্থ হয়ে তিনি খেলবেন ট্রেইলব্ল্যাজার্সে।

সুপারনোভার চার বিদেশি ক্রিকেটার হলেন চামারি আতাপাত্তু, শশীকলা সিরিওয়ার্দেনে, শাকেরা সেলমান এবং আয়াবঙ্গা খাকা, ট্রেইলব্ল্যাজার্সে রয়েছেন দেবেন্দ্র ডটিন, সোফি একস্লেস্টোন, সালমা খাতুন এবং নাত্থাকান চানথাম। তৃতীয় দল ভেলোসিটির ওভারসিস কোটায় খেলবেন ড্যানিয়েল ওয়েট, লেই কাসপেরেক, সুন লুস এবং জাহানারা আলম।

টুর্নামেন্ট শুরুর আগে দুবাইয়ে একই হোটেলে বায়ো সিকিউর বাবলে রাখা হবে তিন দলের সবাইকে। এখনও ভেন্যুর ঘোষণা দেয়া হয়নি। তবে ম্যাচগুলো হতে পারে শারজায়। প্রথম রাউন্ডের ম্যাচ তিনটি হবে যথাক্রমে ৪, ৫ ও ৭ নভেম্বর। পরে ৯ তারিখের ফাইনাল দিয়ে শেষ হবে এবারের নারী আইপিএল।

তিন দলের স্কোয়াড

সুপারনোভাস: হারমানপ্রিত কৌর (অধিনায়ক), জেমাইমা রদ্রিগেজ (সহ-অধিনায়ক), চামারি আতাপাত্তু, প্রিয়া পুনিয়া, অনুজা পাতিল, রাধা যাদব, তানিয়া ভাটিয়া (উইকেটরক্ষক), শশীকলা সিরিওয়ার্দেনে, পুনম যাদব, শাকেরা সেলমান, অরুন্ধিতি রেড্ডি, পুজা ভাস্ত্রাকার, আয়ুশি সনি, আয়াবঙ্গা খাকা এবং মুসকান মালিক।

ট্রেইলব্ল্যাজার্স: স্মৃতি মান্ধানা (অধিনায়ক), দিপ্তী শর্মা (সহ-অধিনায়ক), পুনম রাউত, রিচা ঘোষ, ডি হেমালাথা, নুজহাত পারভিন (উইকেটরক্ষক), রাজেশ্বরী গায়কোয়ার, হারলিন দেওল, ঝুলন গোস্বামী, সিমরান দিল বাহাদুর, সালমা খাতুন, সোফি একস্লেস্টোন, নাত্থাকান চানথাম, দেবেন্দ্র ডটিন এবং কাশভি গৌতম।

ভেলোসিটি: মিথালি রাজ (অধিনায়ক), ভেদা কৃষ্ণামুর্থি (সহ-অধিনায়ক) শেফালি ভার্মা (উইকেটরক্ষক), একতা বিশট, মানসি জোশি, শিখা পান্ডে, দেবিকা বৈদ্য, শুশ্রী দিব্যদর্শিনী, মানালি দক্ষিণী, লেই কাসপেরেক, ড্যানিয়েল ওয়েট, সুন লুস, জাহানারা আলম এবং এম আনাঘা।

%d bloggers like this: