নান্দাইলে যুবলীগ নেতার বিরুদ্ধে মাদক ব্যবসার অভিযোগে মানববন্ধন, দল থেকে বহিষ্কার

0
মিন্টু মিয়া, নান্দাইল (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধি:
ময়মনসিংহের নান্দাইল উপজেলার আচারগাঁও ইউনিয়নের যুবলীগ সভাপতি আশরাফুল ইসলাম ঝন্টুর বিরুদ্ধে মাদক ব্যবসা, ধর্ষণ,ডাকাতির চেষ্টার অভিযোগে আচারগাঁও ও সিংরইল ইউনিয়নের হাজারো জনতা নান্দাইল-হোসেনপুর সড়কে উদং মধুপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের মোড় এলাকায়  বুধবার (২১ অক্টোবর)  দুপুর ১২টায় এক মানববন্ধন করেছে।
 এর আগে ঝন্টু কে নান্দাইল উপজেলা যুবলীগ থেকে তাকে মাদক ব্যবসা ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে তার অপর্কমের রেকর্ড  ছড়িয়ে পড়ার কারণে আচরাগাঁও ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতির পদ থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে। উপজেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদকের স্বাক্ষরিত পত্রে তাকে বহিষ্কার করা হয়। এছাড়াও ঐ যুবলীগ নেতার  বিরুদ্ধে একাধিক মামলা রয়েছে বলে জানা গেছে।
মাওলানা মেহেদী হাসানের সঞ্চালনায়,  মানববন্ধনে আব্দুর রাজ্জাক মাষ্টার,মোমতাজ উদ্দিন হায়াতপুরী, হাজী সুলতান উদ্দিন, মাওঃ মেহেদী হাসান, হাফেজ রুহুল আমিন, আশরাফ উদ্দিন নয়ন, আচারগাঁও ইউপি সদস্য এমদাদুল হক প্রমূখ ঝন্টুকে গ্রেফতার ও বিচার দাবী করে বক্তব্য রাখেন। বক্তরা যুবলীগ সভাপতি ঝন্টুর অপকর্ম তুলে ধরেন।
উদং মধুপুর বড়বাড়ী গ্রামের আউয়াল,গিয়াস উদ্দিন,শাহজাহান মিয়া, ফজল মিয়া প্রমূখ জানান, ঝন্টু ইয়াবা সেবন করে ঘরে ঘরে নারী নির্যাতন করেছে। অনেকেই অভিযোগ করে বলেন ঝন্টু যুবলীগ নেতা হওয়ায় তার বিরুদ্ধে কেউ কথা বলতে সাহস পায়নি। সেলিনা নামে এক নারী জানান তাকে ইয়াবা ব্যবসা ও নারী সংগ্রহের জন্য চাপ সৃষ্টি করে।  রাজি না হওয়া রাতের আধাঁরে তাকে শ্লীলতাহানির চেষ্টা করে। এতে ঘরে থাকা মেয়ে দেখতে পেলে পালিয়ে যায়।
যুবলীগের সভাপতির পদ থেকে বহিস্কারের পর থেকে  আশরাফুল ইসলাম ঝন্টুর বাড়ি ছেড়ে আত্মগোপনে রয়েছে। ঝন্টুর পিতা আবুল কাসেমের সাথে যোগাযোগ করলে তিনি বলেন, আমার ছেলে যদি অপরাধী হয়ে থাকলে আমিও তার বিচার চাই।

%d bloggers like this: