ধর্ষণের শিকার বাকপ্রতিবন্ধী

0

বগুড়ার ধুনট উপজেলায় আবুল কালাম (২৭) নামে কাঠমিস্ত্রির বিরুদ্ধে স্বামী পরিত্যক্তা এক নারীকে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় ধর্ষণের শিকার ওই নারীর মা বাদী হয়ে শুক্রবার রাতে আবুল কালামের বিরুদ্ধে থানায় ধর্ষণ মামলা দায়ের করেছেন। আবুল কালাম উপজেলার ভান্ডারবাড়ি ইউনিয়নের গোপালনগর গ্রামের মোকবুল হোসেন মকুলের ছেলে।

জানা গেছে, ধর্ষণের শিকার বাকপ্রতিবন্ধী ওই নারী (২৬) উপজেলার রঘুনাথপুর গ্রামের বাসিন্দা। মেয়েটির বড় ভাইয়ের বন্ধু আবুল কালাম। এ সম্পর্কের সূত্র ধরে মেয়েটির বাড়িতে আবুল কালামের অবাধ যাতায়াত রয়েছে। এ অবস্থায় বৃহস্পতিবার রাত ১০টার দিকে বড় ভাই বাড়িতে না থাকার সুযোগে আবুল কালাম ঘরে ঢুকে বাকপ্রতিবন্ধী ওই নারীকে ধর্ষণ করতে থাকে।

এ সময় পাশের ঘর থেকে মেয়ের কান্নার শব্দ শুনে তার মা ওই ঘরে প্রবেশ করে আবুল কালামকে আটকের চেষ্টা করেন। অবস্থা বেগতিক দেখে মা ও মেয়েকে ধাক্কা দিয়ে মাটিতে ফেলে দিয়ে ঘর থেকে পালিয়ে যায় আবুল কালাম। সংবাদ পেয়ে স্থানীয় ইউপি সদস্য রাতেই গ্রাম পুলিশের সহযোগিতায় আবুল কালামকে তার বাড়ি থেকে আটক করেন।

এদিকে গ্রাম্য মাতব্বরা শুক্রবার সকালে বিচারের কথা বলে আবুল কালামকে মেয়েটির বাড়ি থেকে পালাতে সহযোগিতা করেন। এ ঘটনার খবর পেয়ে শুক্রবার রাত ৮টার দিকে মেয়েটিকে বাড়ি থেকে থানায় নিয়ে আসে পুলিশ। এ ঘটনায় মেয়েটির মা বাদী হয়ে থানায় ধর্ষণ মামলা দায়ের করছেন।

ধুনট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কৃপা সিন্ধু বালা বলেন, ধর্ষণের শিকার বাকপ্রতিবন্ধী ওই নারীর শারীরিক পরীক্ষার জন্য বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। মামলার একমাত্র আসামি আবুল কালামকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।

%d bloggers like this: