দেশব্যাপী শুরু হচ্ছে ইসলামিক আইকন প্রতিযোগিতা

0

নিজস্ব প্রতিবেদক :

আসছে পবিত্র মাহে রমজান উপলক্ষে শুরু হচ্ছে দেশব্যাপী জাতীয় প্রতিযোগিতা ও মেগা রিয়েলিটি শো ‘বিএম এল পি গ্যাস, ইসলামিক আইকন ২০২১’। অনুষ্ঠানটি প্রচার হবে বেসরকারি টেলিভিশন চ্যানেল জিটিভিতে। বাংলাদেশে এই প্রথম ইসলামিক ট্যালেন্টদের নিয়ে এই আয়োজন গার্ডিয়ান রিসার্চ ফাউন্ডেশনের। এই অনুষ্ঠানে ইসলামিক কারেন্ট নলেজে পারদর্শী কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতিভাবানরা অংশ নেবেন। প্রতিযোগিতার প্রশ্নোত্তর থাকবে মহাগ্রন্থ আল-কুরআন ও হাদিসের শব্দানুবাদ, বাক্যানুবাদ, শানে-নুজুল, ব্যাখ্যা, শিক্ষা ও বিধিবিধান।

এই রিয়েলিটি শো’র দেশব্যাপী অডিশন পর্ব শুরু হবে ২০ ফেব্রুয়ারি, চলবে ২৮ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত। বাছাই প্রক্রিয়া বিভাগ ও জেলা পর্যায়ে অনুষ্ঠিত হবে। এছাড়া অনলাইনের মাধ্যমেও বাছাই প্রক্রিয়া চলবে। বাছাইকৃতদের ঢাকায় এনে ৬ মার্চ থেকে গ্রুমিং করানো হবে।

সোমবার সকালে রাজধানীর বায়তুল ভিউ টাওয়ারে অনুষ্ঠিত সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানানো হয়। সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন গার্ডিয়ান রিসার্চ ফাউন্ডেশন ও সেন্ট্রাল শরিয়াহ বোর্ড ফর ইসলামিক ব্যাংকস-এর চেয়ারম্যান প্রফেসর ড. গিয়াস উদ্দিন তালুকদার, স্মার্ট গ্রুপের অঙ্গপ্রতিষ্ঠান বিএম এনার্জি বিডি লিমিটেডের পরিচালক মাহফুজুর রহমান, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন অনুষদের অধ্যাপক ড. নকীব মুহাম্মদ নসরুল্লাহ, বায়তুল মোকাররমের ভারপ্রাপ্ত খতিব মুফতি মহিবুল্লাহিল বাকী নদভী, ইসলামিক আইকনের পরিচালক খালিদ সাইফুল্লাহ বকসী প্রমুখ। অনুষ্ঠানটির মূল পর্বে বিজয়ী ১ম, ২য় ও ৩য়সহ মোট ১০ জনকে ১৫ লক্ষ টাকার পুরস্কার দেয়া হবে, যা দিয়ে তারা বিদেশে উচ্চশিক্ষা ও ওমরাহ হজ্জ্ব পালনের সুযোগ পাবেন। অনুষ্ঠানটিতে বিচারক হিসেবে থাকবেন দেশ বিদেশের প্রখ্যাত আলেমে দ্বীন ও ইসলামিক স্কলারগণ।

সংবাদ সম্মেলনে ড. গিয়াস উদ্দিন তালুকদার বলেন, মদীনা সনদ বাস্তবায়নের মাধ্যমে সর্বপ্রথম অসাম্প্রদায়িক চেতনার রাষ্ট্র গড়ার ধারনা দিয়েছেন হযরত মুহাম্মদ (সা.)। কোরআনের নির্দেশনা যতো মানা হবে ততো সুস্থ সমাজ গঠন করা সহজ হবে।

খালিদ সাইফুল্লাহ বকসী বলেন, রাসুলুল্লাহ (সা.) আল্লাহর বাণী প্রচারের মাধ্যমে সাংবাদিকদের মতো ভূমিকা পালন করেছেন। বর্তমানে সামাজিক উন্নয়নে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করছে গণমাধ্যম। ইসলামিক আইকনও এর গুরুত্বপূর্ণ অংশীদার হতে যাচ্ছে।

ড. নকীব মুহাম্মদ নসরুল্লাহ বলেন, এই অনুষ্ঠান ইসলামিক স্কলারস তৈরিতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে।

মুফতি মহিবুল্লাহিল বাকী নদভী বলেন, মুসলমানদের মধ্যে ইনটেলেকচুয়ালিটি না এলে এই জাতি উন্নত হবে না। আর এই ইনটেলেকচুয়ালিটির জন্য কুরআনের সহযোগিতা নিতে হবে। এই ধরনের আয়োজন এতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে। ইসলামিক আইকনের আয়োজক সহযোগী হিসেবে থাকছে মিডিয়া মিক্স কমিউনিকেশন্স।

%d bloggers like this: