loading...

দিল্লিতে সহিংসতায় পুলিশকে ভারতের সুপ্রিম কোর্টের তিরস্কার

0

গত তিন দিন ধরে দিল্লিতে সহিংসতা বন্ধে ব্যর্থতার জন্য দিল্লি পুলিশকে তিরস্কার করেছে ভারতের সর্বোচ্চ আদালত সুপ্রিম কোর্ট।

দিল্লি পুলিশ স্বাধীনভাবে কাজ করতে পারছে না এবং তাদের মধ্যে পেশাদারিত্বের অভাব রয়েছে বলেও মন্তব্য করেছে আদালত।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম আনন্দবাজার জানায়, সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন (সিএএ)-এর বিরুদ্ধে গত দু’মাসেরও বেশি সময় ধরে শাহিন বাগে অবস্থান বিক্ষোভ করছেন সাধারণ মানুষ। শাহিন বাগের সেই রাস্তা খালি করানো নিয়ে আদালতে একটি আবেদন জমা পড়েছিল। বুধবার তার শুনানিতেই উত্তর-পূর্ব দিল্লির বর্তমান পরিস্থিতি নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ আদালত।

শুনানিতে বিচারপতি কেএম জোসেফ বলেন, ‘‘বিচারব্যবস্থার প্রতি দায়বদ্ধতা থেকে বলতে বাধ্য হচ্ছি, পুলিশের মধ্যে পেশাদারিত্বের অভাব রয়েছে। স্বাধীন ভাবে কাজ করতে পারছে না তারা। এটাই সমস্যার মূল কারণ। আইন মেনে পদক্ষেপ না করে, কেন অন্যের মুখাপেক্ষী হয়ে থাকতে হবে তাদের?’’

বিধানসভা নির্বাচনের আগে থেকেই সিএএ বিরোধী আন্দোলন নিয়ে উস্কানিমূলক মন্তব্য করে আসছেন বিজেপি নেতারা। নির্বাচন মিটে যাওয়ার পরও তা বন্ধ হয়নি। সম্প্রতি জাফরাবাদে গিয়ে পুলিশের সামনেই একদফা হুমকি দিয়ে আসেন বিজেপির কপিল মিশ্র। তিনদিনের মধ্যে বিক্ষোভকারীদের অবস্থান না হটালে, তাঁরা রাস্তায় নামবেন, তখন কেউ রুখতে পারবে না বলে মন্তব্য করেন তিনি। তার পর থেকেই হিংসা ছড়িয়ে পড়ে উত্তর-পূর্ব দিল্লির একাধিক জায়গায়।

কপিল মিশ্রর সেই বক্তব্যে নিয়ে ইতিমধ্যেই কাটাছেঁড়া শুরু হয়েছে। বিজেপির অন্দর থেকেও তা নিয়ে অসন্তোষ প্রকাশ করেছেন অনেকে। এ দিন সেই প্রসঙ্গও টেনে আনেন বিচারপতি জোসেফ। তিনি বলেন,‘‘কেউ উস্কানিমূলক মন্তব্য করলে, সঙ্গে সঙ্গে পদক্ষেপ করতে হবে পুলিশকে। শুধুমাত্র দিল্লিই নয়, সব রাজ্যেই এই নিয়ম মানা উচিত। আইন মেনেই কাজ করা উচিত পুলিশের।’’

তবে বিচারপতির এমন মন্তব্যের বিরোধিতা করেন সরকারি আইনজীবী জেনারেল তুষার মেহতা। তিনি বলেন, কোন পরিস্থিতিতে কাজ করতে হয় পুলিশকে, তা কারও পক্ষে বোঝা সম্ভব নয়। তাই আদালত এ রকম বিরূপ মন্তব্য করলে, পুলিশের মনোবল নষ্ট হবে।

জবাবে বিচারপতি জোসেফ জানিয়ে দেন, তিনি কোনও বিরূপ মন্তব্য করেননি, আইন-শৃঙ্খলা রক্ষা পুলিশের কর্তব্যের মধ্যে পড়ে, সেটাই বলতে চেয়েছেন।

তবে পুলিশের সমালোচনা করলেও, দিল্লির বর্তমান পরিস্থিতি বিবেচনা করে শাহিন বাগ নিয়ে এ দিন কোনও সিদ্ধান্তে উপনীত হয়নি শীর্ষ আদালত। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখতে সমস্ত রাজনৈতিক দলকে সংযত হওয়ার পরামর্শ দেন বিচারপতি জোসেফ।

loading...
%d bloggers like this: