Durnitibarta.com
ঢাকামঙ্গলবার , ১ নভেম্বর ২০২২
আজকের সর্বশেষ সবখবর

প্রশিক্ষিত বেকারদের ডাটাবেজ হচ্ছে, কর্মসংস্থানের ব্যবস্থাও হবে: প্রধানমন্ত্রী

প্রতিবেদক
Admin
নভেম্বর ১, ২০২২ ৩:৪৫ অপরাহ্ণ
Link Copied!

নিজস্ব প্রতিবেদক:

দেশের যুবসমাজ সব থেকে বড় শক্তি মন্তব্য করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, ‘আমাদের একটা প্রশিক্ষিত যুবশ্রেণি গড়ে তোলা একান্তভাবে অপরিহার্য। এই শক্তিটাই আমাদের যথাযথভাবে কাজে লাগাতে হবে।’

সরকারপ্রধান বলেন, ‘দেশে কত প্রশিক্ষিত যুবশ্রেণি রয়েছে সেটা জানতে একটা ডাটাবেজ তৈরি করার পদক্ষেপ চলছে। তাহলে আমরা জানতে পারবো কাদের কর্মসংস্থান হয়েছে আর কাদের হয়নি। যারা প্রশিক্ষিত হয়েও কর্মসংস্থানের সুযোগ পাচ্ছে না, তারাও যেন কর্মসংস্থানের সুযোগ পায় সেই ব্যবস্থা আমরা নিতে চাই।’

রাজধানীর ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে মঙ্গলবার জাতীয় যুব দিবস-২০২২ এর উদ্বোধন এবং ‘জাতীয় যুব পুরস্কার-২০২২’ প্রদান অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে প্রধানমন্ত্রী এসব কথা বলেন। গণভবনপ্রান্ত থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে অনুষ্ঠানে যুক্ত হন সরকারপ্রধান।

প্রধানমন্ত্রী পৃথিবীর অনেক দেশ বয়োবৃদ্ধি দেশ হয়ে যাচ্ছে উল্লেখ করে বলেন, ‘কিন্তু আমাদের বাংলাদেশে এখনও কর্মক্ষম যুবক শ্রেণি রয়ে গেছে। এটা আমাদের একটা বিরাট শক্তি। এই শক্তিটাই আমাদের যথাযথভাবে কাজে লাগাতে হবে।’

ইউক্রেন যুদ্ধের প্রভাবে বৈশ্বিক দুর্ভিক্ষের যে শঙ্কা করা হচ্ছে সেটি মোকাবিলায় দেশে খাদ্য উৎপাদন বাড়ানো ও প্রক্রিয়াজাতকরণে যুবসমাজকে এগিয়ে আসার আহ্বান জানান সরকারপ্রধান।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আজকে বিভিন্ন সংস্থাও বলছে, সারা বিশ্বে আগামীতে দুর্ভিক্ষ দেখা দেবে। খাদ্যাভাব দেখা দেবে। অনেক উন্নত দেশ, সেখানেও কিন্তু এ ধরনের অর্থনৈতিক মন্দা বিরাজমান।’

‘সেই অবস্থায় আমাদের বাংলাদেশকে এর থেকে মুক্ত রাখতে হলে আমাদেরও প্রতি ইঞ্চি জমিতে যেমন আবাদ করতে হবে। তাছাড়া খাদ্যপণ্য উৎপাদন করা, প্রক্রিয়াজাত করার জন্য বিশেষ ব্যবস্থা নিতে হবে। সেই ক্ষেত্রে আমি আমাদের যুবসমাজকে আহ্বান করব তারা যেন আরও উদ্যোগ নেয়।’

করোনাভাইরাস মহামারির সময়ে চিকিৎসাসেবা থেকে শুরু করে সব কাজে যুবকদের এগিয়ে আসা গর্বের বিষয় বলে মন্তব্য করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘করোনাকালীন দেখেছি, চিকিৎসাসেবা থেকে শুরু করে যুবকরাই সব কাজে এগিয়ে এসেছে। এটা কিন্তু গর্বের বিষয়।’

‘নতুন নতুন আবিষ্কারে বিশ্ব এগিয়ে যাচ্ছে। এর সঙ্গে তাল মিলিয়ে চলতে হবে। এটা আমাদের যুবকরাই করবে। আমাদের যুবকরা এতো বেশি মেধাবী যে তারা সব কাজে অবদান রাখতে পারবে।’

ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে মূল অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী মো. জাহিদ আহসান রাসেল। যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি আব্দুল্লাহ আল ইসলাম জ্যাকব, যুব ও ক্রীড়া সচিব মেজবাহ উদ্দিন, যুব উন্নয়ন অধিদপ্তরের মহাপরিচালক (গ্রেড-১) আজহারুল ইসলাম খান মঞ্চে ছিলেন।

এবার ২১ জনকে পুরস্কার-২০২২ দেওয়া হয়েছে। আত্মকর্মসংস্থানে উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত রাখায় ১৫ জন আত্মকর্মী এবং স্বেচ্ছাসেবায় অনুকরণীয় দৃষ্টান্ত রাখায় ছয় জন এই পুরস্কার পেলেন।