ছাত্রলীগ নেতা নাসিরের উপর ৩টি বোমা হামলা

0

বেনাপোল প্রতিনিধিঃ যশোরের শার্শা উপজেলার বেনাপোল গ্রামের বাবলুর রহমানের পুত্র শার্শা উপজেলা ছাত্রলীগের সহ- সভাপতি মোঃ নাসির হোসেনের উপর ( ২৮) বৃহস্প্রতিবার রাত সাড়ে আটটার সময় দূর্বত্তরা বোমা হামলা চালিয়েছে। রাজনৈতিক সংক্রান্তের বিরোধের জের ধরে ২-৩ জন সশস্ত্র সন্ত্রাসীরা ৩টি বোমা হামলা চালায় বলে নাসির জানান। ৩টি অবিস্ফোরিত বোমা উদ্ধার করেছে বেনাপোল পোর্ট থানা পুলিশ। ১টি বোমা মাথায় লাগায় নাসির সামান্য আহত হয়েছে। ভাগ্যক্রমে বোমাটি বিস্ফোরিত না হওয়ায় ছাত্রলীগ নেতা নাসির ভাগ্যক্রমে বেঁচে যান। বোমা হামলার ব্যাপারে নাসিরের পরিবার বেনাপোল পোর্ট থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছে। এই বোমা হামলার কারণে বেনাপোল গ্রামে কলেজ পাড়ার কেলের কান্দায় আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে৷ এলাকাবাসী ভীতসন্ত্রস্ত হয়ে বোমা হামলার প্রতিবাদ করতে থাকেন ৷

ছাত্রলীগের সহ সভাপতি অবিস্ফোরিত বোমা হামলার শিকার নাসির হোসেন জানান দৈনন্দিন কাজ শেষে বাজার থেকে বাড়ি ফেরার পর কেলেরকান্দা মসজিদের পাশে আমার বড় ভাইয়ের বাড়ীতে নির্মান কাজ দেখতে যাওয়ার সময় আগে থেকে সেখানে ওৎপেতে থাকা সশস্ত্র সন্ত্রাসীরা পিছন দিকে আমার উপরে বোমা হামলা চালায় ৷ একটি বোমা আমার মাথায় নিক্ষেপ করে ,কিন্তু দুর্ভাগ্যবশত বোমাটি বিস্ফোরিত না হওয়ায় আমি ভাগ্যক্রমে প্রানে বেঁচে যায়। আমার চিৎকার শুনে আশপাশের লোকজন ছুটে এলে দুর্বৃত্তরা পালিয়ে যান৷ তারা দেশীয় অস্ত্রশস্ত্রে সজ্জিত ছিলেন ৷ এসময় আশপাশে থাকা আমার আত্মীয় স্বজনেরা ঘটনাস্থলে এলে আমি মোবাইল ফোনে পুলিশকে সংবাদ দিই। পুলিশ এসে ঘটনাস্থল থেকে তিনটি অবিস্ফোরিত বোমা উদ্ধার করে থানায় নিয়ে যায়।

নাসির আরও জানায়, রাজনৈতিক সংক্রান্ত জের ধরে প্রতিপক্ষের সন্ত্রাসীরা এ বোমা চালায়। এর আগেও আমার ও আমার বাড়ীতে একই ভাবে হামলা চালিয়েছিল ৷

বেনাপোল পোর্ট থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ মামুন খাঁন জানান, বোমা হামলার স্বীকার ভুক্তভোগীর কাছ আমরা লিখিত অভিযোগ পেয়েছি । ঘটনাস্থল থেকে তিনটি অবিস্ফোরিত বোমা উদ্ধার করা হয়েছে । ঘটনা তদন্তের পর পরবর্তী পদক্ষেপ গ্রহণ করা হবে ৷

%d bloggers like this: