loading...

গৌরীপুরে  সরকারী গাছ কাটায় ইউপি চেয়ারম্যান রমিজের বিরুদ্ধে মামলা

0

ক্রাইম রিপোর্টােরঃ

ময়মনসিংহের গৌরীপুর উপজেলার মাওহা ইউনিয়ন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যান কেন্দ্রের গাছ কাটার ঘটনায় ২৯ শে অক্টোবর রাতে একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। মাওহা ইউপি চেয়ারম্যান রমিজ উদ্দিন স্বপনকে প্রধান আসামী করে বকুল ও জজ মিয়া নামের দুই দিন মজুরের নাম সহ ৪/৫ জনকে অঞ্জাত রেখে মাওহা ইউনিয়ন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যান কেন্দ্রের পরিদর্শিকা কামরুন্নহার বাদী হয়ে মামলা দায়ের করেন।

স্থানীয় ও উপজেলা পরিবার পরিকল্পনা সূত্রে জানা যায, উপজেলার ভুটিয়ারকোনা বাজারে মাওহা ইউনিয়ন পরিষদ কার্যালয়ের বিপরীতে অবস্থিত ইউনিয়ন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ কেন্দ্রে অনেকগুলো কালী কড়ই গাছ ছিলো। কিন্তু ৩/৪ দিন আগে থেকে মাওহা ইউপি চেয়ারম্যান রমিজ উদ্দিন স্বপন। কতৃপক্ষের অনুমতি ছাড়াই স্বাস্থ্য পরিবার কল্যান কেন্দ্রের প্রায় সত্তর হাজার টাকা মুল্যের কয়েকটি কালী কড়ই গাছ বিক্রি করেন স্থানীয় প্রভাবশালী ব্যবসায়ীর কাছে।

গাছ কাটার ঘটনায় মাওহা ইউনিয়নের স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ কেন্দ্রের পরিদর্শিকা কামরুন্নাহার ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে উপজেলা পরিবার ও পরিকল্পনা কর্মকর্তা মো. কামাল হোসেনের কাছে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন। বিষয়টি জানাজানি হলে মঙ্গলবার দুপুরে উপজেলা পরিবার ও পরিকল্পনা কর্মকর্তা ও প্রশাসনের কর্মকর্তারা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে গাছ কাটার সত্যতা পান কিছু গাছের টুকরা পাওয়া গেছে। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একাধিক ব্যাক্তি জানান কেটে ফেলা গাছগুলোর মূল্য প্রায় লক্ষাধিক টাকা। উল্লেখ্য যে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হওয়ার পরপরই এই স্বাস্হ্য ও পরিবার কল্যান কেন্দ্রের জায়গায় অনেক গাছ ছিল কিন্তুু সেই সময়ে অনেক টাকার গাছ বিক্রি করেছেন এই ইউপি চেয়ারম্যান এবং এই সরকারী জায়গায় এলাকার কিছু অসহায় মানুষ ৫/৭ টি  চায়ের ষ্টল দিয়ে সংসার চালাতো কিন্তু তাদেরকে তাড়িয়ে দিয়েছে প্রভাবশালী চেয়ারম্যান। এলাকাবাসীর ধারনা অসহায় কয়েকটি দোকান পাঠ তাড়িয়ে দিয়ে প্রভাবশালী ব্যবসায়ীদের কাছে ভাড়া দেওয়া হয়েছে।

অভিযোগের বিষয়ে জানতে চাইলে ইউপি চেয়ারম্যান রমিজ উদ্দিন স্বপন সাংবাদিকদের বলেন আমি গাছ কাটার সাথে জড়িত নই কেহ বা কাহারা গাছ কেটে নিয়েছে তা আমার জানা নেই।

এ বিষয়ে দিনমজুর আসামীরা সাংবাদিকদের জানান আমরা ১০ বছর যাবৎ দৈনিক হাজিরায় মানুষের কাঠের কাজ করি আমরা। এই সরকারী গাছ কাটতে রাজি ছিলাম না কিন্তু ভুটিয়ারকোনা বাজারের ব্যবসায়ী সৈয়দ রৌশন আমাদেরকে বলেছে উপর থেকে সকল কাগজ পত্র ঠিক করে এনেছি গাছ কাটতে কোন সমস্যা নেই। আর এখন আমরা কামলা হয়ে মামলার আসামী প্রশাসনের কাছে আমাদের দাবী সঠিক তদন্ত করে দোষীদের গ্রেফতার করুন আমাদেরকে নয়।

এ বিষয়ে সৈয়দ রৌশনের মোবাইল ফোনে কল করা হলে তিনি অভিযোগ অস্বিকার করে বলেন তিনি গাছ ক্রয় করেননি। ইউপি চেয়ারম্যান রমিজ উদ্দিন স্বপন সাংবাদিকদের জানান  আমি গাছ বিক্রি করিনি কে বা কাহারা করেছে তা আমার জানা নেই।

গৌরীপুর থানা অফিসার্স ইনচার্জ কামরুল ইসলাম মিয়া সাংবাদিকদের জানান আসামীদের গ্রেফতারের অভিযান চলছে।

loading...
%d bloggers like this: