loading...

গৌরীপুরে দুই অফিস সারাদিন তালাবদ্ধ: নেই কোন কর্মকর্তা-কর্মচারী

0

শাহজাহান কবির;

ময়মনসিংহের গৌরীপুরে উপজেলা পরিসংখ্যান অফিসারের কার্য্যালয় ও উপজেলা রিসোর্স সেন্টার(ইসলামিক ফাউন্ডেশন উপজেলা কার্য্যালয়)বৃহস্পতিবার(২০ ফেব্রুয়ারী)সকাল থেকে সারাদিন এই দুটি অফিস খোলা হয়নি ।
সরেজমিনে গিয়ে এ তথ্য মিলে। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একাধিক ব্যাক্তি জানান সপ্তাহে প্রায় দিনই বন্ধ থাকে এ দুটি অফিস।

এ বিষয়ে জুনিয়র পরিসংখ্যানবিদ মোশারফ হোসেনের মোবাইল ফোনে জানতে চাইলে তিনি জানান অফিসের কাজ করছি। ভুক্তভোগী মহলের অভিযোগ অফিস খোলার সময়ে আমরা অফিসে আসলে সংশ্লিষ্টদের কাউকে খুঁজে পাওয়া যায় না। অফিস থাকে কর্মকর্তা-কর্মচারী শূন্য। এতে প্রতিনিয়ত বিড়ম্বনার শিকার হতে হচ্ছে তাদের।

উপজেলা পরিষদের পাশেই চায়ের দোকানে ওইদিন বেলা ১১টার সময় দেখা মেলে পরিংখ্যান অফিসের সেলসম্যান আব্দুল হালিমের সাথে। ওই কর্মচারীকে অফিস খোলার বিষয়ে প্রশ্ন করা হলে তিনি জানান আমি চল্লিশ দিনের চিল্লায় গিয়েছিলাম আজকেই অফিসে এসেছি আমি এখন বাড়িতে চলে যাবো।
এ বিষয়ে উপজেলা ইসলামিক ফাউন্ডেশনের সুপারভাইজার সাইদুর রহমানের সাথে মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি ফোন রিসিভ করেননি। পরে ওই দিন বিকেল বেলায় ৩.৫০ মিনিটে আবার অফিসের অবস্থা দেখতে গেলে অফিসে সুপারভাইজার এর দেখা মেলে।
এ সময় তাকে অফিসে না আসার বিষয়ে প্রশ্ন করা হলে তিনি জানান ব্যানার আনতে গিয়ে ছিলাম। সকাল থেকে অফিস বন্ধের বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি মন্তব্য করতে রাজি হননি। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একাধিক ব্যাক্তি বলেন এ দুটি অফিস প্রায় প্রতিদিনই তালাবদ্ধ থাকে।
এদিকে জুনিয়র পরিসংখ্যানবিদ মোশারফ হোসেনের বিরুদ্ধে অভিযোগ উঠেছে জনশুমারী ২০২১/গননাকারী ও সুপারভাইজার নিয়োগে লিখিত পরীক্ষা ছাড়াই নেওয়া হয়েছে মৌখিক পরীক্ষা। এক্ষেত্রে অনেকেই বৈধ আবেদন করলেও তার পছন্দের লোকদের মোবাইল ফোনে এসএমএস দিয়ে নিয়োগের জন্য বলা হয়েছে ।
এছাড়া ওই কর্মকর্তার বিরুদ্ধে অভিযোগ উঠেছে উল্লেখিত নিয়োগকে সামনে রেখে হাতিয়ে নিচ্ছেন মোটা অংকের টাকা। এ বিষয়ে উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোফাজ্জল হোসেন খানের সাথে যোগযোগ করা হলে তিনি সাংবাদিকদের জানান তদন্ত সাপেক্ষে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

loading...
%d bloggers like this: