loading...

গৌরীপুরে ইউপি:চেয়ারম্যানের বিচারের দাবিতে মানববন্ধনও স্মারকলিপি প্রদান

0

স্টাফ রিপোর্টার:
কর্মক্ষেত্রে নিরাপত্তা চেয়ে
ময়মনসিংহের গৌরীপুর উপজেলার তৃতীয় ও চতুর্থ শ্রেণির সরকারি কর্মচারীরা রবিবার (৫ জানুয়ারী) উপজেলা পরিষদ চত্বরে মানববন্ধন করেছেন। মানববন্ধন শেষে তারা উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ভারপ্রাপ্ত) মাসুদ রানা বরাবরে একটি স্মারকলিপি পেশ করেন।
স্মারকলিপিতে উল্লেখ করা হয়েছে, বৃহস্পতিবার (২ জানুয়ারী) বিকেলে অচিন্তপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান শহিদুল ইসলাম অন্তর (৪১) পিআইও অফিসের অফিস সহকারি আব্দুল করিমকে বিনা দোষে নিজ অফিস কক্ষে লাঞ্চিত করেন। এর আগে গত বছর ইউপি চেয়ারম্যান শহিদুল ইসলাম অন্তর পিআইও অফিসের উপসহকারি প্রকৌশলী মাজহারুল ইসলাম ও উপজেলা যুব উন্নয়ন অফিসের অফিস সহায়ক আনোয়ার হোসেনকে বিনা কারনে শারীরিকভাবে লাঞ্চিত করার ঘটনায় ক্ষমা প্রার্থনার মাধ্যমে মুছলেখা দিয়ে ছাড় পান।
একই বছরে উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসারের সাথে অসৌজন্যমূলক আচরণের ঘটনায় শহিদুলের বিরুদ্ধে গৌরীপুর থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়। বর্তমানে ইউপি চেয়ারম্যান শহিদুল ইসলামের হুমকীর মুখে চরম আতংকের মধ্যে অফিস করতে হচ্ছে এ উপজেলার সরকারি কর্মচারীদের। তাই কর্মক্ষেত্রে নিরাপত্তা নিশ্চিতকরনে মানববন্ধন ও স্মারকলিপি পেশ করেছেন তারা।
ভুক্তভোগী পিআইও অফিসের অফিস সহকারি আব্দুল করিম জানান, ঘটনারদিন ইউপি চেয়ারম্যান শহিদুল ইসলাম অফিস কক্ষে এসে আমার কাছে সরকারি কম্বল চান। এসময় তিনি বলেন, সরকারি কম্বল দেয়ার কোন ক্ষমতা আমার নেই। এ কথা বলতেই, তাকে শারীরিকভাবে লাঞ্চিত করেন ইউপি চেয়ারম্যান।
তিনি আরো বলেন, এ ঘটনায় গৌরীপুর থানায় ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। গৌরীপুর থানার মামলা নং-০৫ তাং-০৩/০১/২০২০ ইং।
এ ঘটনায় মন্তব্য জানতে ইউপি চেয়ারম্যান শহিদুল ইসলামের মুঠোফোনে কল করা হলে সংযোগ বন্ধ পাওয়া যায়।
মামলার বিষয়ে সত্যতা নিশ্চিত করে গৌরীপুর থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ বোরহান উদ্দিন সাংবাদিকদের জানান, ইউপি চেয়ারম্যান শহিদুল ইসলামকে গ্রেফতারের চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে।
উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ভারপ্রাপ্ত) মোঃ মাসুদ রানা সাংবাদিকদের জানান, ইউপি চেয়ারম্যান শহিদুল ইসলামের বিরুদ্ধে প্রশাসনের পক্ষে বিধি মোতাবেক প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

loading...
%d bloggers like this: