গৌরীপুরে অধ্যক্ষের বিরুদ্ধে নারী শিক্ষিকার মামলা

0

শাহজাহান কবির :

ময়মনসিংহ গৌরীপুর সরকারী টেকনিক্যাল স্কুল এন্ড কলেজের অধ্যক্ষ (ভারপ্রাপ্ত) আলী আহাম্মদ মোল্লা’র বিরুদ্ধে খন্ডকালীন নারী শিক্ষিকা আসলানা আক্তার কে যৌন হয়রানির অভিযোগে মঙ্গলবার (২৫ আগস্ট) রাতে গৌরীপুর থানায় মামলা দায়ের করেছেন। এছাড়াও তিনি বাংলাদেশ কারিগরি শিক্ষা অধিদপ্তরে পরিচালক বরাবর গৌরীপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসারের মাধ্যমে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন।

অভিযোগে জানা যায়, আসলানা আক্তার পূর্বে গৌরীপুর সরকারী টেকনিক্যাল স্কুল এন্ড কলেজের ইলেকট্রিক বিভাগের ছাত্রী ছিলেন। ২০১৮ সালে তিনি ময়মনসিংহ পলিটেকনিক্যাল ইন্সটিটিউট থেকে ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ারিং পাস করার পর ২০১৯ সালের আগস্ট মাসে গৌরীপুর টেকনিক্যাল স্কুল এন্ড কলেজে ইলেকট্রিক বিভাগের খন্ডকালীন শিক্ষক হিসেবে যোগদান করেন। বর্তমান ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ আলী আহাম্মদ মোল্লা একই বিভাগের চীপ ইন্সটেক্টর ছিলেন। এ হিসেবে আলী আহাম্মদ মোল্লা আসলানা আক্তারের সরাসরি শিক্ষক।
আসলানা আক্তার অভিযোগে উল্লেখ করেন- যোগদানের পর ছাত্রী-শিক্ষক সম্পর্কের সূত্রধরে ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ আলী আহাম্মদ মোল্লা নানা প্রলোভন দেখিয়ে আপত্তিকর কথাবার্তা বলার চেষ্টা করেন, আমি কঠোর প্রতিবাদ করলে তিনি পিছু হঠেন। কিন্তু কিছুদিন পর তিনি পূনরায় যৌন হয়রানিমূলক কথাবার্তা বলা শুরু করেন এবং তার সাথে অনৈতিক সম্পর্কে জড়ানোর প্রস্তাব দেন এমনকি প্রায়শই কোন না কোন অযুহাতে নিজ কক্ষে ডেকে নিয়ে নানা অঙ্গভঙ্গিমায় যৌন হয়রানি করেন, এক পর্যায়ে বিষয়টি তিনি তার স্বামী সাকিবকে জানালে তিনি আসলানা আক্তারকে আলী আহাম্মদ মোল্লার সাথে ফোনে এসব বিষয়ে সরাসরি কথা বলে বিষয়টি সমাধান করতে বলেন। স্বামীর নির্দেশে তিনি মোল্লাকে ফোন করে তার আচরণের প্রতিবাদ করেন, মোল্লা একপর্যায়ে ভুল স্বীকার করে ক্ষমা চান। তবে ২দিন পর স্বামী বাসায় না থাকা অবস্থায় মোল্লা আবার বাসায় আসেন। এসময় গেইট না খোলার কারণে মোল্লা জোড়পূর্বক ভিতরে প্রবেশের চেষ্টা করেন। একপর্যায়ে আসলানা আক্তার লোকজন ডাকার হুমকি দিলে মোল্লা আসলানাকে গালিগালাজ করে চলে যান।
অভিযোগে আরো উল্লেখ করা হয়, কিছুদিন পূর্বে (করোনায় বন্ধের আগে) একই ট্রেডের এক ছাত্রীকে অধ্যক্ষ আলী আহাম্মদ মোল্লা যৌন হয়রানি করলে বিষয়টি ঐ ছাত্রী তার পরিবারকে জানায়। ছাত্রীর পরিবার এঘটনার প্রতিবাদ করলে স্থানীয় কিছু প্রভাবশালীর মাধ্যমে হুমকি ও ডর-ভয় দেখিয়ে তাদের মুখ বন্ধ করে দেয় আলী আহাম্মদ মোল্লা।
অভিযোগের ব্যাপারে আলী আহাম্মদ মোল্লার মোবাইলে কল করলে তাকে পাওয়া যায়নি।গৌরীপুর থানার অফিসার ইনচার্জ বোরহান উদ্দিন জানান- টেকনিক্যাল স্কুল এন্ড কলেজের অধ্যক্ষ (ভারপ্রাপ্ত) আলী আহাম্মদ মোল্লা’র বিরুদ্ধে খন্ডকালীন নারী শিক্ষক আসলানা আক্তার যৌন হয়রানির লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন। তদন্তে প্রাথমিক সত্যতা পাওয়ায় অভিযোগটি মামলা হিসেবে নথিবদ্ধ করা হয়েছে। মামলা নং: ৩৭, তারিখ: ২৭/০৮/২০২০ ইং।

%d bloggers like this: