গত সপ্তাহে ঢাকায় গড় লেনদেন কমলেও চট্টগ্রামে বেড়েছে

0

অর্থনৈতিক প্রতিবেদক :

গত সপ্তাহের প্রথম তিন দিন সূচকের পতনের পর ঘুরে দাঁড়ায় দেশের দুই পুঁজিবাজার। শেষ দুই দিন সূচকের টানা উর্ধ্বমুখী প্রবণতায় শেষ হয় সপ্তাহটি। যোগ-বিয়োগে সাপ্তাহিক হিসাবে দুই বাজারের সূচকই নেতিবাচক থাকে। তবে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে সাপ্তাহিক গড় লেনদেন কমলেও অপর পুঁজিবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে গড় লেনদেন বেড়েছে।

গেল সপ্তাহে উভয় স্টক এক্সচেঞ্জেই মূলধনের পাশাপাশি কমেছে লেনদেন পরিমাণ এবং বেশির ভাগ কোম্পানির শেয়ার ও ইউনিটের দর। ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) ও চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জ (সিএসই) সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

সাপ্তাহের প্রথম কার্যদিবস লেনদেন শুরুর আগে দেশের প্রধান পুঁজিবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) বাজার মূলধন ছিল ৪ লাখ ৮৪ হাজার ১২ কোটি ৬৯ লাখ ৬৪ হাজার টাকায। সপ্তাহ শেষে ৪ হাজার ৭০৮ কোটি ২৭ লাখ ২৮ হাজার ৫৭৭ টাকা বাজার মূলধন কমে অবস্থান করছে ৪ লাখ ৭৯ হাজার ৩০৪ কোটি ৪২ লাখ ৩৬ হাজার ১৪০ টাকায়।

অপর দিকে, চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জ (সিএসই) বাজার মূলধন ছিল ৪ লাখ ৭ হাজার ২৭১ কোটি ৬১ লাখ টাকায়। সপ্তাহ শেষে ১ হাজার ৭৬ কোটি ৩২ লাখ ৭০ হাজার টাকা বাজার মূলধন কমে অবস্থান করছে ৪ লাখ ৬ হাজার ১৯৫ কোটি ২৮ লাখ ৩০ হাজার টাকায়।

অর্থাৎ দেশের উভয় পুঁজিবাজার সপ্তাহের ব্যবধানে মূলধন হারিয়েছে পাঁচ হাজার ৭৮৪ কোটি ৫৯ লাখ ৯৮ হাজার টাকা।

গত সপ্তাহে পাঁচ কার্যদিবসে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) মোট লেনদেন হয়েছে ৩ হাজার ৭৫২ কোটি ৪২ লাখ ৪২ হাজার ৫০০ টাকার, যা আগের সপ্তাহের চেয়ে ২ হাজার ২৬৩ কোটি ৮৭ লাখ ২১ হাজার ১০৫৮ টাকা বা ৩৭.৬৩ শতাংশ কম। আগের সপ্তাহে লেনদেন হয়েছিল ৬ হাজার ১৬ কোটি ২৯ লাখ ৬৩ হাজার ৬০৫ টাকার।

ডিএসইতে গত সপ্তাহে গড় লেনদেন হয়েছে ৭৫০ কোটি ৪৮ লাখ ৪৮ হাজার ৫০০ টাকার। আগের সপ্তাহে গড় লেনদেন হয়েছিল ১ হাজার ২০৩ কোটি ২৫ লাখ ৯২ হাজার ৭২১ টাকার। অর্থাৎ সপ্তাহের ব্যবধানে ডিএসইতে গড় লেনদেন কমেছে ৪৫২ কোটি ৭৭ লাখ ৪৪ হাজার ২২১ কোটি টাকার বেশি।

সপ্তাহের ব্যবধানে ডিএসইর প্রধান সূচক ডিএসইএক্স ৭৬ পয়েন্ট বা ১.৩৪ শতাংশ কমে দাঁড়িয়েছে ৫ হাজার ৬৪৭ পয়েন্টে। ডিএসই শরিয়াহ সূচক ১৯ পয়েন্ট বা ১.৪৯ শতাংশ কমে দাঁড়িয়েছে ১ হাজার ২৬১ পয়েন্টে এবং ডিএসই-৩০ সূচক ১৭ পয়েন্ট বা ০.৮০ পয়েন্ট কমে দাঁড়িয়েছে ২ হাজার ১৭৩ পয়েন্টে।

গত সপ্তাহে ডিএসইতে লেনদেনে অংশ নেয়া মোট ৩৬৫টি প্রতিষ্ঠানের মধ্যে শেয়ার ও ইউনিট দর বেড়েছে ৫৭টির বা ১৫ শতাংশের, কমেছে ২১৯টির বা ৬০ শতাংশের এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ৮৯টির বা ২৪ শতাংশের শেয়ার ও ইউনিট দর।

অপর পুঁজিবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) গত সপ্তাহে টাকার পরিমাণে লেনদেন হয়েছে ২৮৯ কোটি ৯০ লাখ ১৫ হাজার ৯৭৪ টাকার। আগের সপ্তাহে লেনদেন হয়েছিল ২৬৬ কোটি ৫০ লাখ ৮৪ হাজার ৬৮৭ টাকার। অর্থাৎ সপ্তাহের ব্যবধানে সিএসইতে লেনদেন ২৩ কোটি ৩৯ লাখ ৩১ হাজার ২৮৭ টাকা বেড়েছে।

সপ্তাহটিতে সিএসইর সার্বিক সূচক সিএএসপিআই ৩৪৪ পয়েন্ট বা ২.০৬ শতাংশ কমে দাঁড়িয়েছে ১৬ হাজার ৩৩১ পয়েন্টে। সিএসইর অপর সূচকগুলোর মধ্যে সিএসসিএক্স ২১২ পয়েন্ট বা ২.১০ শতাংশ, সিএসই-৩০ সূচক ৩৩৫ পয়েন্ট বা ২.৫৩ শতাংশ, সিএসই-৫০ সূচক ১৯ পয়েন্ট বা ১.৪৯ শতাংশ এবং সিএসআই ২২ পয়েন্ট বা ২.০৯ শতাংশ কমে দাঁড়িয়েছে যথাক্রমে নয় হাজার ৮৫৩ পয়েন্টে, ১২ হাজার ৮৭৩ পয়েন্টে, এক হাজার ২৫৬ পয়েন্টে এবং এক হাজার ১৯ পয়েন্টে দাঁড়িয়েছে।

সপ্তাহজুড়ে সিএসইতে লেনদেনে অংশ নিয়েছে ২৯৫টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিট। প্রতিষ্ঠানগুলোর মধ্যে দর বেড়েছে ৫২টির বা ১৭ শতাংশের, দর কমেছে ১৮৩টির বা ৬২ শতাংশের এবং দর অপরিবর্তিতর রয়েছে ৬০টির বা ২০ শতাংশের।

%d bloggers like this: