গণতন্ত্র আজ কবরে: জাফরুল্লাহ চৌধুরী

0

নিজস্ব প্রতিবেদক :

গণতন্ত্র আজ কবরে শুয়ে আছে, এখন এটাকে মাটি দেয়ার অপেক্ষা। এটাকে বাঁচাতে হলে সবার সম্মিলিতভাবে আন্দোলন ছাড়া কোনো পথ নেই বলে মন্তব্য করেছেন গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী। তিনি বলেন, ‘আমরা জীবন্ত গণতন্ত্র ও জবাবদিহিতা দেখতে চাই। দেশে মানুষের কথা বলার অধিকার চাই। সরকার যেভাবে মানুষের কণ্ঠরোধ করে রেখেছে সেভাবে দেশ চলতে পারে না। দেশ ধীরে ধীরে মাফিয়া রাষ্ট্রে পরিণত হচ্ছে।’

মঙ্গলবার মওলানা আব্দুল হামিদ খান ভাসানীর ৪৪তম মৃত্যুবার্ষিকীতে টাঙ্গাইলের সন্তোষ ভাসানীর মাজারে শ্রদ্ধা জানাতে এসে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে তিনি এসব কথা বলেন।

বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান বরকতউল্লাহ বুলু বলেন, ‘ভাসানী বেঁচে থাকলে দেশে ভোটারবিহীন নির্বাচন হতে পারতো না। ভাসানীর আদর্শে উজ্জীবিত হয়ে এই স্বৈরাচার সরকারের পতন ঘটাতে হবে।’

বিএনপির এই নেতা বলেন, ‘বিএনপি জ্বালাও-পোড়াও রাজনীতিতে বিশ্বাস করে না। জনগণকে সঙ্গে নিয়ে গণতান্ত্রিক আন্দোলনে বিশ্বাসী। গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়ায় ভোটের মাধ্যমে বিএনপি সরকার পরিবর্তনে বিশ্বাস করে।’

এদিকে টাঙ্গাইলের সন্তোষে মওলানা আব্দুল হামিদ খান ভাসানীর ৪৪তম মৃত্যুবার্ষিকী নানা কর্মসূচির মধ্যদিয়ে পালিত হয়েছে। দিবসটি উপলক্ষে মাওলানা ভাসানী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, ভাসানী ফাউন্ডেশন, ভাসানী পরিবার ও বিভিন্ন রাজনৈতিক, সামাজিক ও সাংস্বৃতিক সংগঠনের পক্ষ থেকে সন্তোষে পুস্পস্তবক অর্পণ করা হয়। স্বাস্থবিধি মেনে মওলানা ভাসানী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের উদ্যোগে বিভিন্ন কর্মসূচি গ্রহণ করা হয়।

সকালে মজলুম জননেতা মওলানা আবদুল হামিদ খান ভাসানীর মাজারে পুস্পস্তবক অর্পণ ও মাজার জিয়ারতের মধ্যদিয়ে কর্মসূচির উদ্বোধন করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস-চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. মো. আলাউদ্দিন। এরপর ভাসানীর পরিবারের পক্ষ থেকে পুস্পস্তবক অর্পণ করা হয়।

এরপর কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের সভাপতি বঙ্গবীর আব্দুল কাদের সিদ্দিকী ও বিএনপির পক্ষ থেকে দলের ভাইস চেয়ারম্যান বরকতউল্লাহ বুলু, গনস্বাস্থ্যের প্রতিষ্ঠাতা ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী, গণসংহতি আন্দোলনের প্রধান সমন্বয়কারী জুনায়েদ সাকী, ছাত্র অধিকার পরিষদের যুগ্ম আহ্বায়ক রাশেদসহ অন্যান্যরা ভাসানীর মাজারে পুস্পস্তবক অর্পণ ও মোনাজাত করেন।

%d bloggers like this: