কলাপাড়ায় হঠাৎ ভারী বৃষ্টিতে কৃষকের জনদূর্ভোগ চরমে

0

পারভেজ, কলাপাড়া(পটুয়াখালী) প্রতিনিধি ঃ পটুয়াখালীর কলাপাড়ায় শুক্রবার সকাল থেকে গুড়ি গুড়ি বৃষ্টিপাত হলেও বিকেল দুইটা থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত ভাড়ি বৃষ্টিপাতে সর্বস্তরের মানুষের মাঝে দুর্ভোগ ছড়িয়ে পড়েছে।একই সঙ্গে বৃষ্টির কারনে কৃষকের মাঠের মোটা ধান এবং উঠানে তোলা আমন ধানের গজ ফুটে যাওয়ার সন্ধ্যায় চোখে সর্ষে ফুল দেখছে কৃষকরা।কলাপাড়া পৌরশহরের সকল দিন-মজুর তারা কর্মস্থলে যেতে পারেনি। রিক্সা শ্রমিকরা অনিচ্ছায় যাত্রী বহন করতে গিয়ে বৃষ্টিতে ভিজে এবং ঠান্ডায় অসুস্থ্য হয়ে পরেছে। অসুস্থ্য হয়ে পরা রিক্সা শ্রমিক মো. শাহজাহান জানায়, ঢাকা থেকে কলাপাড়ায় আসা যাত্রীদের কথা ভেবে গন্তব্যে পৌছে দিয়ে আসার পথে আমি অসুস্থ্য হয়ে পরেছি।উপজেলার বাদুরতলী গ্রামের কৃষক মো. এনামুল হক বলেন, মাঠে এখনো পাঁকা মোটাজাতের ধান রয়েছে। ভাড়ি বৃষ্টিতে জমির ধান ভিজে গেছে। ধান কেটে ঘরে তুলতে না পারলে ধানে গজ বেড়িয়ে যাবে। এমনকি বছরের খোরাকির ধান সিদ্ধ করে শুকানোর জন্য উঠানে ফেলে রাখা হয়েছে। বৃষ্টি না থামলে এবং রোদ না উঠলে কৃষকদের চরম ক্ষতি হবে।কলাপাড়া উপজেলার লালুয়া ইউনিয়নের ছোনখলা গ্রামের কৃষক মো: নাসির হাওলাদার বলেন জমি থেকে ধান কেটে বাড়ির উঠানে রাখা হয়েছে। অকাল বৃষ্টির কারনে সব পাঁকা ধান বিজে গেছে এবং ধানের গজ ফুটে গেছে এখন বৃষ্টি না থামলে এবং রোদ না উঠলে সব পাঁকা ধানের চরম ক্ষতি হবে।রবি শস্য চাষিরা লোকসানের ভাবনায় কিংকর্তব্যবিমূঢ় হয়ে পরেছে। মাঠের ডাল, মরিচ, তরমুজসহ সকল প্রকার রবিসশ্য অকাল বৃষ্টিতে নষ্ট হওয়ার আশংকা ভাড়িবৃষ্টি পাতের কারনে দ্রুত নিষ্কাশন না হওয়ায় কলাপাড়া পৌরশহরের বিভিন্ন পয়েন্টে পানিতে তলিয়ে গেছে।

%d bloggers like this: