করোনায় না ফেরার দেশে আগরতলা ষড়যন্ত্র মামলার আসামি

0

করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন আগরতলা ষড়যন্ত্র মামলার আসামি মুক্তিযোদ্ধা এ বি এম খুরশীদ (৮৩)। তিনি ঢাকার শেখ রাসেল গ্যাস্ট্রোলিভার হাসপাতালে ভর্তি ছিলেন।

বৃহস্পতিবার সন্ধ্যার পর তার মৃত্যু হয় বলে তার বড় ছেলে রেহান দস্তগীর গণমাধ্যমকে জানিয়েছেন।

এ বি এম খুরশীদের দাফন সম্পর্কে রেহান দস্তগীর বলেন, “আব্বা এ দেশের জন্য মুক্তিযুদ্ধ করেছিলেন। কিন্তু তিনি কখনও কারও কাছ থেকে কিছু চাননি। আমাদের ইচ্ছা, আব্বাকে যদি মিরপুরের শহীদ বুদ্ধিজীবী কবরস্থানে দাফনের অনুমতি পাওয়া যায়। তাহলে মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে তার প্রতি শ্রদ্ধাও জানানো যাবে।”

এ বি এম খুরশীদ বাতের ব্যথা নিয়ে মিরপুরের একটি হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিলেন। সেখানে পরীক্ষার পর তার করোনাভাইরাস সংক্রমণ ধরা পড়ে। পরে ঢাকার শেখ রাসেল গ্যাস্ট্রোলিভার হাসপাতালে নেয়া হয়। অবস্থার অবনতি ঘটনায় তাকে গত বুধবার আইসিইউতে নেওয়া হয়েছিল।

পাকিস্তান আমলে ষাটের দশকে পাকিস্তান সরকার বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের বিরুদ্ধে যে ষড়যন্ত্র মামলা করেছিল, তাতে আসামি হিসেবে তৎকালীন নৌবাহিনীর ক্যাপ্টেন খুরশীদও ছিলেন। পরে গণআন্দোলনের তোড়ে পাকিস্তান সরকারের সেই ষড়যন্ত্র ভেস্তে গিয়েছিল।

রেহান দস্তগীর বলেন, আগরতলা ষড়যন্ত্র মামলার ১৮ নম্বর আসামি ছিলেন তার বাবা খুরশীদ। পরে খুরশীদ মুক্তিযুদ্ধে যোগ দিয়ে ৯ নম্বর সেক্টরের একটি সাব সেক্টরের কমান্ডার ছিলেন।

খুরশীদের ছোট ছেলে সাব্বির আহমেদ জানান, মুক্তিযুদ্ধের পর সামরিক বাহিনীর চাকরি ছেড়ে পারিবারিক ব্যবসায় যুক্ত হয়েছিলেন তার বাবা।

%d bloggers like this: