এবার চলচ্চিত্র প্রযোজনায় জেনিফার ফেরদৌস

0

বিনোদন প্রতিবেদক,

২০১৯-২০২০ অর্থবছরে সরকারি অনুদানে নির্মিত হচ্ছে মোস্তাফিজুর রহমান মানিক পরিচালিত সিনেমা ‘আশীর্বাদ’। এ সিনেমার মাধ্যমে প্রথমবারের মতো চিত্রনাট্যকার, কাহিনীকার ও প্রযোজক হিসেবে আত্মপ্রকাশ করছেন সুন্দরী, সুহাসিনী জেনিফার ফেরদৌস।

জেনিফার ফেরদৌস উপস্থাপনা, অভিনয়, মডেলিং ও রাজনীতিবিদ একাধিক পরিচয়ে পরিচিত। বর্তমানে সিনেমার গান নিয়ে সবচেয়ে জনপ্রিয় অনুষ্ঠান বাংলাদেশ টেলিভিশনে প্রচারিত ‘ছায়াছন্দ’র নিয়মিত উপস্থাপনা করছেন।

এবারই তিনি প্রথমবার কোনো চলচ্চিত্রের জন্য কাহিনী-চিত্রনাট্য তৈরি করলেন এবং পাশাপাশি ‘আশীর্বাদ’ সিনেমাটি প্রযোজনায়ও তিনি আছেন। ২০১৯-২০২০ অর্থবছরে সরকারি অনুদানে পূর্ণদৈর্ঘ্য ১৬টি চলচ্চিত্রকে অনুদান দেয়া হয়েছে তারমধ্যে ‘আশীর্বাদ’ অন্যতম।

নতুন রূপে আত্মপ্রকাশ প্রসঙ্গে জেনিফার ফেরদৌস বলেন, অনেক আগে থেকেই ইচ্ছে ছিলো সিনেমার জন্য গল্প লিখবো। এবং সেই ইচ্ছে থেকে নিজের লেখা কাহিনী দিয়ে শুরু করলাম। ভবিষ্যৎতেও সিনেমার জন্য ধারাবাহিক ভাবে কাহিনী লিখতে চান তিনি। জানান, আমি এই ধারাবাহিকতা ধরে রাখতে চাই। এবং সিনেমার জন্য নিয়মিত কাহিনী লিখতে চাই।

আমরা এখন সবাই আধুনিক যুগের মানুষ হলেও আমি আমার গল্পে বাংলাদেশের পিছনের গল্পটা প্রাধান্য দিতে চাই। যে গল্পে থাকবে আমাদের ইতিহাস ঐতিহ্য। যার মাধ্যমে আমি ভবিষ্যৎ প্রজন্মের কাছে এটা তুলে ধরতে পারি। এবং তারা সেটা আরো ভালো করে জানতে পারুক এটাই আমার চাওয়া।

জেনিফার প্রযোজনায়ও নিয়মিত হবেন। তিনি বলেন, ইচ্ছে আছে নিয়মিত প্রযোজনা করার। তবে তার জন্য আমাকে ভালো গল্পের ভালো মানের সিনেমা নির্মাণ করতে হবে। আমরা এমন সিনেমা বানাতে চাই যেখানে দর্শকরা হলমুখী হয়। আমারও প্রত্যাশা থাকবে দেশে আরও হল সংখ্যা বাড়ুক।

‘আশীর্বাদ’ সিনেমাটি বর্তমানে পোস্ট প্রোডাকশনের কাজ চলছে। কোরবানি ঈদের আগেই সিনেমার শুটিং শুরু করতে চান। এখনও সিনেমার অভিনয় শিল্পী চূড়ান্ত করা হয়নি। তবে শিগগিরই সবকিছু চূড়ান্ত করা হবে। ছবিটির কাহিনী, চিত্রনাট্য জেনিফার ফেরদৌস তৈরি করলেও সংলাপ লিখেছেন আব্দুল্লাহ জহির বাবু।

উল্লেখ্য, জেনিফার ফেরদৌস ক্যারিয়ারের শুরুতে এটিএন বাংলায় উপস্থাপনা দিয়ে শুরু করেন। ৬ বছরের ক্যারিয়ারে দেশে-বিদেশে তিনি বিভিন্ন সম্মানে ভূষিত হয়েছেন। ভারতে বিএফটিসিসি অ্যাওয়ার্ড ও রিমঝিম অ্যাওয়ার্ড অনুষ্ঠানে সঞ্চালনার পাশাপাশি উপস্থাপনার জন্য পুরস্কৃত হয়েছিলেন। এবং ২০১৯-এ ২০ তম ট্র্যাব অ্যাওয়ার্ড লাভ করেছিলেন। বর্তমানে তিনি বাংলাদেশ টেলিভিশন ফিল্ম প্রিভিউ কমিটি জুরি বোর্ডের সদস্য হিসেবে আছেন।

%d bloggers like this: