loading...

আত্মপ্রকাশের পথে “বিডি ক্লিন ঈশ্বরগঞ্জ”

0

বিশেষ প্রতিবেদকঃ

“পরিচ্ছন্নতা শুরু হোক আমার থেকে” এই শ্লোগানকে সামনে নিয়ে, পরিচ্ছন্ন বাংলাদেশ গড়ার স্বপ্ন বাস্তবায়নের লক্ষ্যে, সারা দেশের ন্যায় ময়মনসিংহের ঈশ্বরগঞ্জেও পরিচ্ছন্নতার অভিযানে নামার প্রস্তুতি নিচ্ছে এক ঝাঁক স্বেচ্ছাসেবী তরুন-তরুনী।

২৬ জানুয়ারী রবিবার দুপুর ১২ টায়  ঈশ্বরগঞ্জ শেখ রাসেল মিনি ষ্টেডিয়াম মাঠে তারা একত্রিত হয়ে এক আলোচনা সভায় তারা জানায় যে অতি শিঘ্রই আত্মপ্রকাশ করতে যাচ্ছে বিডি ক্লিন ঈশ্বরগঞ্জ। এসময় উপস্থিত ছিলেন, খাইরুল ইসলাম আল আমিন, হৃদয়, সাকিব, জেসিয়া, পারভেজ, শাহ আলম, অর্পিতা, সুস্মিতা, সাদিয়া, আবির, নাজমুল, জয়, রবিনসহ আরো কয়েকজন স্বেচ্ছাসেবক। তারা ঈশ্বরগঞ্জের সকল স্বেচ্ছাসেবকদের আহবান জানান তাদের সাথে পরিচ্ছন্নতার যুদ্ধে অংশগ্রহন করতে।

বিডি ক্লিন সম্পর্কে কিছু ধারণাঃ

“বিডি ক্লিন : পরিচ্ছন্ন বাংলাদেশের স্বপ্ন”

নাম: পরিচ্ছন্ন ও জীবাণুমুক্ত বাংলাদেশ গড়ার লক্ষ্যে অবিরাম কর্মরত স্বেচ্ছাসেবী সচেতন নাগরিকের প্লাটফর্ম এর নাম বিডি ক্লিন।

ভিত্তি: স্বেচ্ছাসেবী ও অরাজনৈতিক।

প্রতিষ্ঠাতা ও প্রধান সমন্বয়ক: ফরিদ উদ্দিন।

শ্লোগান: “পরিচ্ছন্নতা শুরু হোক আমার থেকে”

প্রতিষ্ঠাকাল: ৩ জুন, ২০১৬ খ্রিঃ

লক্ষ্য: যত্রতত্র ময়লা-আবর্জনা ছুড়ে ফেলার মানসিকতা বা অভ্যাস পরিবর্তনের জন্য জনসচেতনতা গড়ে তোলার মাধ্যমে পরিচ্ছন্ন ও জীবাণুমুক্ত বাংলাদেশ গড়ে তোলাই বিডি ক্লিন এর মূল লক্ষ্য।

উদ্দেশ্য: বাংলাদেশকে অন্যতম পরিচ্ছন্ন রাষ্ট্রের মর্যাদা স্থাপন সহ বাংলাদেশের প্রতিটি নাগরিককে আদর্শবান সুনাগরিকের উদাহরণ প্রতিষ্ঠা করাই বিডি ক্লিন এর প্রধানতম উদ্দেশ্য।

লক্ষ্য অর্জনে প্রস্তাবিত সময়কাল: বিভাগীয় পর্যায় শুরু: জুলাই ২০১৭ • জেলা পর্যায় শুরু: জুলাই ২০১৮ • উপজেলা পর্যায় শুরু: জুলাই ২০১৯ • গ্রাম পর্যায় শুরু: জুলাই ২০২০। ফাইনালি ২৬ মার্চ ২০২১ পরিচ্ছন্ন বাংলাদেশ ঘোষণা।

বিডি ক্লিন সদস্যের বৈশিষ্ট্য: সাংবিধানিক নাগরিক দায়িত্ব পালন করা বিডি ক্লিন এর সকল সদস্যের অন্যতম বৈশিষ্ট্য। বিশ্ব দরবারে বাংলাদেশের সুনাম অর্জনে বিডি ক্লিন এর সকল সদস্যগণ সর্বদা সচেষ্ট। লোভ, হিংসা আর বিদ্বেষ বর্জিত বিডি ক্লিন এর প্রতিটি সদস্য একে অন্যের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। নাগরিক দায়িত্ব এড়াতে কোন সদস্যই একে অন্যের প্রতি বা রাষ্ট্রের প্রতি দোষারোপ করেন না। আইনের প্রয়োগ নয় বরং বিডি ক্লিন এর প্রতিটি সদস্য দেশে প্রচলিত সকল আইন মেনে চলায় বিশ্বাসী। এছাড়াও আর্ত মানবতা ও দেশসেবায় সদা তৎপর প্রতিটি সদস্যই দেশের একতা ও শৃঙ্খলা রক্ষায় এক অনন্য উদাহরণ। এক কথায় বিডি ক্লিন এর প্রতিটি সদস্যই বাংলাদেশ তথা সমগ্র বিশ্বের একজন আদর্শবান সুনাগরিক।

সদস্য যোগ্যতা: বিডি ক্লিন এর নিয়ম নীতি গ্রহন সাপেক্ষে দেশের জন্য স্বেচ্ছায় শ্রম দিতে ইচ্ছুক যে কোন বয়সী বাংলাদেশী নাগরিক বিডি ক্লিন এর সদস্য হবার যোগ্য। তবে রাষ্ট্রবিরোধী কোন কাজের সাথে জড়িত থাকিলে বা রাষ্ট্রের যে কোন উন্নয়ন কাজে বিরোধী মনোভাব প্রকাশ করিলে তাহার সদস্যপদ বিনা নোটিশে বাতিল করা হবে। এছাড়াও সাংগঠনিক আদেশ অমান্য সহ কোন সদস্যের প্রতি অশালীন আচরণ ও হিংসাত্মক মনোভাব প্রকাশ পেলে প্রমাণসাপেক্ষে কারণ দর্শাও নোটিশ প্রদান বা সদস্যপদ বাতিল করা হবে।

শপথ বাক্য: আমি শপথ করিতেছি যে, মানুষের সেবায় সর্বদা নিজেকে নিয়োজিত রাখিব এবং দেশের প্রতি অনুগত থাকিব। দেশের একতা ও শৃঙ্খলা বজায় রাখিবার জন্য সর্বদা সচেষ্ট থাকিব। পরিচ্ছন্ন বাংলাদেশ গড়ে তুলতে নিজেকে সবসময় নিয়োজিত রাখিব। আমাদের আশেপাশের কেউ যেন, যত্রতত্র ময়লা-আবর্জনা না ফেলে সে বিষয়ে সচেতন করিব। সর্বদা সাংবিধানিক নাগরিক দায়িত্ব পালন করিব। দেশে প্রচলিত সকল আইন মানিয়া চলিব। হে প্রভু আমাকে শক্তি দিন, আমি যেন দেশের সেবা করিতে পারি এবং বাংলাদেশকে একটি পরিচ্ছন্ন, শক্তিশালী ও আদর্শ রাষ্ট্র হিসাবে গড়িয়া তুলিতে পারি। আমীন।

বিডি ক্লিন এর ধারাবাহিক কার্যক্রম: বিডি ক্লিন কর্তৃক নির্ধারিত প্রতি সপ্তাহের একদিন কোন একটি নির্দিষ্ট এলাকা বাছাইপুর্বক উক্ত এলাকা পরিস্কার করা সহ সরাসরি বা মাইকিং এর মাধ্যমে আশেপাশের দোকানী ও সাধারণ জনগণকে যত্রতত্র ময়লা আবর্জনা না ফেলা বিষয়ক সচেতনতা এবং ডাস্টবিন ব্যবহারের পরামর্শ প্রদান করা বিডি ক্লিন এর সাধারণ ধারাবাহিক কার্যক্রম। এছাড়াও উপস্থিত সকল স্বেচ্ছাসেবীদের অংশগ্রহনে একটি গ্রুপ ছবি ও শপথ বাক্য পাঠ এর মাধ্যমে শুরু হয় প্রতি সপ্তাহের ধারাবাহিক কার্যক্রম।

পরি ও স্বপ্ন: পরিচ্ছন্ন বাংলাদেশের স্বপ্নদুত “পরি” (মেয়ে) ও “স্বপ্ন” (ছেলে) স্বেচ্ছাসেবীদের পাশাপাশি পরিচ্ছন্নতা বিষয়ক জনসচেতনতা বৃদ্ধিতে সবসময় নিয়োজিত থাকবেন।

পরিচ্ছন্ন বাংলাদেশের সুফল: অপরিচ্ছন্ন শহরের তুলনায় পরিচ্ছন্ন শহরে ৪৬% রোগজীবাণুর প্রকোপ কমে যায়। ফলে দেশের সকল জনগণ ৪৬% রোগজীবাণুর আক্রমণ থেকে সুরক্ষা পাবে। সর্বোপরি পরবর্তী প্রজন্মের জন্য নিশ্চিত হবে স্বাস্থ্যকর ও পরিচ্ছন্ন পরিবেশ। এছাড়াও পরিচ্ছন্ন দেশ হিসেবে বিশ্ব মানচিত্রে স্থান করে নিবে আমাদের প্রিয় জন্মভূমি বাংলাদেশের নাম।

loading...
error: Content is protected !!
%d bloggers like this: