ঢাকা ৩১.৯৯°সে ১৮ই সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

ভুট্টাক্ষেতে উদ্ধারকৃত নবজাতককে পেতে আদালতে সাত দম্পতির আবেদন

লালমনিরহাটের পাটগ্রামে ভুট্টাক্ষেত থেকে উদ্ধার হওয়া নবজাতককে পেতে জেলার জ্যেষ্ঠ বিচারিক হাকিম আদালতে সাত দম্পতি আবেদন করেছেন।

রোববার (২৩ মে) দুপুরে লালমনিরহাট আদালতে শিশুটিকে দত্তক নিতে সাত দম্পতি আবেদন করেন। জেলার জেষ্ঠ বিচারিক হাকিম আদালতের বিচারক ফেরদৌসী বেগম সোমবার (২৪ মে) দুপুরে এ বিষয়ে শুনানি করবেন।

রোববার দুপুরে নবজাতককে পেতে বিভিন্ন জায়গা থেকে আসা দম্পতিরা আদালত প্রাঙ্গণে ভিড় করেন। তারা শিশুটিকে দত্তক নেয়ার আগ্রহের কথা জানান। তাদের মধ্যে সাত দম্পতি আইনগতভাবেই শিশুটির দায়িত্ব নিতে আবেদন করেন। তাদের মধ্যে একজন নিজের সব জমির দলিলপত্র নিয়েও এসেছেন। নিজের সম্পত্তি শিশুটির নামে লিখে দিতে চান তিনি।

গত শুক্রবার (২১) ভোরে ভুট্টাক্ষেতে স্থানীয়রা ওই নবজাতককে কাপড়ে মোড়ানো অবস্থায় দেখতে পান। এরপর তাকে উদ্ধার করে পুলিশকে খবর দেন।

নবজাতক উদ্ধারকারী রিনা বেগম (২৬) বলেন, ‘আমার তিন ছেলে। মেয়ে নেই। আমি বাচ্চাটা পেয়েছি, আমিই মানুষ করব। আদালত যেন এই রায় দেন।’

দত্তক নিতে আগ্রহী লালমনিরহাট শহরের সাজেদুল ইসলাম পাটোয়ারী বলেন, ‘আমি জমির দলিল-পত্রাদি নিয়ে এসেছি। আদালত যদি বলেন, সব লিখে দিব। তবু বাচ্চাটি আমি চাই। আমার টাকা-পয়সার দরকার নেই। আমার সব কিছুর বিনিময়ে বাচ্চাটিকে আমি পেতে চাই। কারণ আমার মেয়ে সন্তান নেই। আমি অনেক আদরে রাখব শিশুটিকে।’

পাটগ্রাম থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ওমর ফারুক জানান, নবজাতকটি সুস্থ আছে। তাকে সমাজসেবা অধিদফতরের মাধ্যমে আপাতত উদ্ধারকারী রিনা বেগমের হেফাজতে রাখা হয়েছে।’

তিনি আরও বলেন, ‘শিশুটিকে দত্তক নেয়ার জন্য এখন পর্যন্ত সাতজন আইনিভাবে আবেদন করেছেন। সোমবার আদালত নির্ধারণ করবে শিশুটিকে কোথায় রাখা হবে।’




আপনার মতামত লিখুন :

এক ক্লিকে বিভাগের খবর


x