ঢাকা ৩০.৯৯°সে ১২ই জুন, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

ইসলামপুর মাদ্রাসার ছাত্র শিক্ষকসহ ১০জনকে আসামী করে মামলা

ময়মনসিংহের ঈশ্বরগঞ্জ উপজেলাধীন সদর ইউনিয়নে অবস্থিত ঐতিহ্যবাহী দ্বীনি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান জামিয়া গাফুরিয়া দারুস্সুন্নাহ ইসলামপুর মাদ্রাসার ২ শিক্ষক ও ৮ ছাত্রসহ ২০/২৫ জনকে অজ্ঞাত আসামী করে সন্ত্রাস দমন আইনে মামলা করা হয়েছে।

মাদ্রাসার সাধারণ সম্পাদক ও উপজেলা আঃলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতির  ভাই  আব্দুল মতিন বাদি হয়ে এ মামলাটি  করেছেন।

মামলার এজাহার সূত্রে জানা যায়, উপজেলার  জামিয়া গাফুরিয়া দারুস্সুন্নাহ ইসলামপুর মাদ্রাসার শিক্ষক মুফতি কাওসার হাসান (৪২) ঈশ্বরগঞ্জ বাজার চাল মহাল জামে মসজিদের ইমাম। গত ৫মার্চ শুক্রবার ওই মসজিদে জুম্মার নামাজের খুৎবার পূর্বে বয়ানের সময় তিনি বলেন “রাষ্ট্রপতি সেনাপ্রধানের ভাইয়ের মৃত্যুদন্ড মওকুফ করে দিয়েছে। অথচ অভিজিৎ হত্যার আসামীদের ফাঁসি দেওয়ার চেষ্টা করছে। আমরা এই জালিম শেখ হাসিনা সরকারের বিরুদ্ধে জিহাদ ঘোষনা করব, আপনারা এতে রাজী আছেন তো?

এমন বক্তব্যের বিষয়ে পরদিন ওই মাদ্রাসার সাধারণ সম্পাদক ও উপজেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি রফিকুল ইসলাম বুলবুল শিক্ষক কাওসার হাসানের কাছে মোবাইল ফোনে জানতে চাইলে তিনি বলেন “আমি যা বলেছি ঠিক বলেছি।” এ বিষয়ে তাকে জ্ঞান না দেওযার জন্যও বলেন তিনি।

পরে তিনি মাদ্রাসায় গিয়ে ছাত্র শিক্ষকদের কাছে বিষয়টি জানান এবং মোবাইল ফোনে ধারণ করা কল রেকর্ডটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রচার করেন এতে ছাত্র শিক্ষকদের মাঝে উত্তেজনার সৃষ্টি হয়। এবং মাদ্রাসার সাধারণ সম্পাদকের পদত্যাগ দাবি করেন। বিষয়টি নিয়ে উপজেলা প্রশাসন সমঝোতার চেষ্টা করে ব্যর্থ হলে মাদ্রাসা কমিটি প্রতিষ্ঠানটি অনির্দিষ্ট কালের জন্য বন্ধ ঘোষণা করেন।

মামলার সত্যতা নিশ্চিত করে মাদ্রাসার মুহতামিম মাওলানা নূরুল আলম দুর্নীতি বার্তাকে বলেন, মাদ্রাসাটি পরে আবার খোলা হলেও লকডাউনের জন্য বর্তমানে বন্ধ রয়েছে।

ঈশ্বরগঞ্জ থানার ওসি আবুল কাদের মিয়া বলেন, বুধবার এ ঘটনায় এজহার নামীয় ১০ জন ও  ২০/২৫ জনকে অজ্ঞাত রেখে মামলা হয়েছে । এখন পর্যন্ত কেউ গ্রেফতার হয়নি, আসামীদের দ্রুত গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।




আপনার মতামত লিখুন :

এক ক্লিকে বিভাগের খবর