অসহায় মানুষদের সেবায় যিনি থাকেন সর্বদায় নিয়োজিত -যুবলীগনেতা রুমেল

0

প্রদীপ বিশ্বাস, ব্যুরো চিফ ময়মনসিংহঃ

ময়মনসিংহ নগরীর ১৪ নং ওয়ার্ডের গর্বিত বাসিন্দা জেলা আওয়ামী যুবলীগের সদস্য মোঃ আসাদুজ্জামান রুমেল, জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর আর্দশে গড়ে উঠতে চান তিনি। বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ সভানেত্রী ও মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার দিক-নির্দেশনায় চলাই তার প্রধান লক্ষ্য

তিনি সব সময় নিজেকে নেতা নয় একজন সাধারণ কর্মী হিসেবে গর্ব নিয়ে চলতেই পছন্দ করেন এবং তিনি জেলার অন্যান্য নেতাদের চাইতেও চলেন একটু ভিন্ন আঙ্গিকে। দল কিভাবে করলে রাজনীতির অঙ্গণে সুনাম ছড়িয়ে পড়ে সেই কৌশলটিও আছে তারা বেশ জানা। ব্যবসার ফাঁকে প্রত্যেকটি মূর্হুতের সময়টি সোপে দিয়েছে দলের পেছনে
একজন রাজনৈতিক কর্মী কিংবা নেতা দলকে যতটুকু সময় দেওয়ার কথা তার থেকেও বেশি সময় দিয়ে মনে প্রাণে কাজ করে যাচ্ছেন রুমেল । তিনি বুঝিয়ে দিয়েছেন রাজনীতি কিভাবে করতে হয়। দলের জাতীয় কিংবা স্থানীয় পর্যায়ের যে কোন অনুষ্ঠানে তার বিচরণ থাকে সবার আগে। তাঁর ব্যাপক অংশগ্রহণে জেলা ও মহানগর বিভিন্ন পর্যায়ের নেতাদের মাঝে তার আছে বিশাল গ্রহণ যোগ্যতা। মিছিল-মিটিং ও সেমিনারে সবার আগে সর্ব প্রথম বিপুল পরিমান কর্মী নিয়ে যে মানুষটির অংশগ্রহণ তিনিই মোঃ আসাদুজ্জামান রুমেল
ময়মনসিংহ জেলা আওয়ামী লীগের সর্বোচ্চ অভিভাবক বর্ষীয়ান আওয়ামী লীগ নেতা ও সাবেক ধর্মমন্ত্রী মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব অধ্যক্ষ মতিউর রহমান ও ময়মনসিংহ মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব মোহিত উর রহমান শান্ত’র দিক-নির্দেশনায় চলাই তার কাম্য। সেই সাথে তিনি সর্বদায় যার দিক নির্দেশনায় মাঠে থাকেন সক্রিয় ময়মনসিংহ আওয়ামী যুব লীগের আহ্বায়ক এড. আজহারুল ইসলাম
গুরুজনদের সম্মান দিতে একটুও ভুল করেন না এই রুমেল । ময়মনসিংহ সিটি কর্পোরেশনের প্রথম সিটি নির্বাচনে ১৪ নং ওয়ার্ডে তিনি ছিলেন একজন শক্তিশালী প্রার্থী অদ্য ওয়ার্ডেও সর্বস্তরের মানুষ আশায় বুক বেধে ছিলেন অসহায় ও হতদরিদ্র মানুষের দুঃখের কালো ছায়া গোটাবে এই রুমেল। কিন্তু সে যে বড় আবেগী ও ত্যাগী যার ফলশ্রুতিতে নিজ চাচা ফজললু হক উজ্জ্বলের কথা ফেলতে পারলেন না। চাচাকে সমর্থন দিয়ে সরে দাড়াঁন নির্বাচন থেকে
তবে আগামীতে তাকে বিপুল ভোট ব্যাংকে জয়ী করবে ১৪ নং ওয়ার্ডের বাসিন্দারা এমনটাই শোনা যাচ্ছে সর্বস্তরের মানুষের মুখে।
অসহায় মানুষদের আশার আলো রুমেল সর্বদায় থাকে মানুষের কল্যানে তার কিছু চিত্রের তথ্য (ফাইল ছবি) সর্বস্তরের জনসাধারণের জন্য তুলে ধরা হলো।
বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীদের মাঝে টিফিন বিতরণ, গরীব-অসহায় ও মেধাবী শিক্ষার্থীদের বিনামূল্যে শিক্ষার ব্যবস্থা করা
এছাড়াও সম্প্রতি করোনার মহামারীতে যখন সব কিছু লকডাউন এর কারণে বন্ধ তখন এই মানবিক মানুষটি ময়মনসিংহ বিভাগের প্রধান স্বাস্থ্য চিকিৎসা প্রতিষ্ঠান ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপতালে চিকিৎসা নিতে আসা হাজারো রোগীর ও তাদের স্বজনদের মাঝে ব্যবস্থা করেন ইফতার ও শেহরী যা প্রিন্ট-ইলেক্ট্রিক মিডিয়া ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে প্রশংসার ঝড় ওঠে তাকে নিয়ে
ঈদ-উল-আযহাতে তিনি তার ওয়ার্ডে অসহায় ও গরীব মানুষদের মাঝে আলাদাভাবে কোরবানীর গোস্তের ব্যবস্থা করেছেন।
প্রাকৃতিক দুর্যোগ করোনা ও ডেঙ্গুতে ভাইরাস মোকাবেলায় নিজেই ফগার মেশিন ক্রয় করে বিপুল সংখ্যক কর্মী নিয়ে ঝাপিয়ে পড়েন এই নেতা। এছাড়াও মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর ঘোষনায় বৃক্ষরোপন কর্মসূচীতেও তিনি ছিলেন এগিয়ে সবার আগে
সুস্থ্য ধারার রাজনীতি করার মনোভাব রুমেলের মতো সূর্য সৈনিক বাংলাদেশের প্রতিটি আনাছে-কানাছে প্রয়োজন তাহলেই এগিয়ে যাবে রাজনীতি এগিয়ে যাবে বাংলাদেশ কমে আসবে অনিয়ম দূর্নীতি থাকবে না ক্ষুদা ও দারিদ্রতা এমনটাই মনে করছেন বিজ্ঞ রাজনীতিবিদ ও অভিজ্ঞমহল।

%d bloggers like this: