ঢাকা ২৭°সে ১১ই মে, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ
শিরোনাম :
ফুলপুরে খালেদা জিয়ার রোগমুক্তি কামনায় ছাত্রদলের দোয়া ও ইফতার মাহফিল সিলেট নগরীর আখালিয়া থেকে তরুণীর লাশ উদ্ধার হেলডস্ ওপেন স্কাউট গ্রুপ ও কৃষি ব্যাংকের যৌথ উদ্যোগ এতিমদের মাঝে ঈদের পোশাক বিতরণ ফুলপুরে মানবাধিকার কমিশনের দোয়া ও ইফতার মাহফিল অনুষ্ঠিত  ত্রিশালে সাংবাদিক এনামুল ফাউন্ডেশনের ইফতার ও দোয়া মাহফিল নিজ উদ্যোগে কর্মহীনদের খাদ্য সহায়তার হাত বাড়ালেন ডাঃ প্রিন্স সেন রাশিয়া থেকে আসবে এক কোটি ডোজ ভ্যাকসিন দ্বিতীয় ধাপে বীর মুক্তিযোদ্ধাদের চূড়ান্ত তালিকা প্রকাশ ময়মনসিংহে র‌্যাবের অভিযানে নকল স্বর্ণের বারসহ আটক-১ ঈশ্বরগঞ্জে ২৪ কেজি গাঁজাসহ ২ জনকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব-১৪

ময়মনসিংহে শিক্ষার্থীদের চুল কেটে দিলেন শিক্ষক!

মাসুদ রানা, ময়মনসিংহ:
ময়মনসিংহের ত্রিশাল উপজেলায় স্কুল কমিটির নির্বাচনকে কেন্দ্র করে এক শিক্ষক তাঁর স্কুলের শিক্ষার্থীদের চুল কেটে দিয়েছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। রোববার ( ২১ মে) সকালে উপজেলার হরিরামপুর ইউনিয়নের সাথিয়াকান্দা এলাকার আর জে স্কুলে প্রথম ঘন্টার ক্লাস চলার সময় এ ঘটনা ঘটে।

অভিযোগ ওঠা শিক্ষকের নাম হাবিবুর রহমান। তিনি ওই স্কুলের বিজ্ঞান ক্লাস পড়ান বলে জানা গেছে। এদিকে নতুন কমিটির সভাপতি প্রার্থী মাহবুবুল আলম বলেন, ৩৫ থেকে ৪০ শিক্ষার্থীর চুল কাটা হয়েছে। নির্বাচনকে কেন্দ্র করেই এ ঘটনা ঘটেছে দাবি করেন তিনি। অন্যদিকে বর্তমান সভাপতি নুরুল আমীন কালাম বলেন, ঘটনার কথা শুনে আমি স্কুলে গেয়েছি।

প্রায় ১০ জন শিক্ষার্থীর মাথার চুল কাটা হয়েছে। শিক্ষক হাতে শিক্ষার্থীর চুলকাটার সত্যতা পেয়েছি। শিক্ষক ছাত্রদের শাসন করেছেন, সেটা সঠিক বা বেঠিক। তবে কাজটি ঠিক হয়নি, এটা মানবাধিকারের লঙ্ঘন। আমি শিক্ষার্থী, শিক্ষক ও অভিভাবক নিয়ে বসেছি মীমাংসা করার জন্য। অভিভাবক শিক্ষার্থী না মানলে শিক্ষকের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। আমি অন্যায়কে প্রশ্রয় দেব না। নুরুল আমীন আরো বলেন, আমার ছোট ভাই সাবেক সরকারি কর্মকর্তা সাইদুল আমীন এবং এলাকার সাইফুল মেম্বার ঘটনা শুনে স্কুলে আসছিল।

পথে সভাপতি প্রার্থী মাহবুবুল আলমের লোক খালেকুজ্জামান ছাতা দিয়া তাদের পিটাইছে। তবে তিনি দাবি করেন, নির্বাচন নিয়ে ঘটনা ঘটেনি। স্থানীয়রা জানায়, রবিবার দুপুরে চুল কাটার প্রতিবাদে অভিভাবক ও কমিটির লোকজনের সঙ্গে ধাওয়া-পাল্টাধাওয়ার ঘটনাও ঘটেছে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে ত্রিশাল থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। এব্যাপারে স্কুল পরিচালনা কমিটির সভাপতি নুরুল আমিন কালাম ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেছেন। তবে জানা যায়, গতকাল সোমবার ( ২১ মে) ওই স্কুল পরিচালনা পর্ষদের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।

এতে প্রার্থী হয়েছেন বর্তমান সভাপতি নুরুল আমীন কালাম এবং মাহবুবুল আলম। নুরুল আমীন কালাম শিক্ষার্থীদের মাধ্যমে অভিভাবকের ভোট চান গত শনিবার ২০ মে। এতে শিক্ষার্থীরা রাজি হয়নি। এ নিয়ে বর্তমান সভাপতি ক্ষিপ্ত হন। সভাপতির অনুগত বলে পরিচিত স্কুলের বিজ্ঞানের শিক্ষক হাবিবুর রহমান রবিবার সকালে প্রথম ঘণ্টায় ওই শিক্ষার্থীদের মাথায় কাচি দিয়ে নিজেই এলোমেলো করে চুল কেটে দেন।

খবর পেয়ে অভিভাবকরা স্কুলে আসেন প্রতিবাদ জানাতে। ঘটনাস্থলে উপস্থিত দৈনিক সংবাদের ভালুকা প্রতিনিধি আতাউর রহমান স্থানীয় গনমাধ্যমকে জানান, দুপুরে তিনি চুলকাটা মাথার ছবি তোলার সময় সাইদুল আমীন ও সাইফুল মেম্বার তার সঙ্গে বিতর্কে জড়িয়ে পড়েন। পরে স্থানীয়রা পরিস্থিতি সামাল দেয়। স্কুল পরিচালনা কমিটির সদস্যপ্রার্থী নাজমুল আলম খান বলেন, বর্তমান সভাপতির কথামতো ভোট চাইতে অস্বীকার করায় তার ছেলে সপ্তম শ্রেণির ছাত্র আমিরুল মোমিন খানের মাথার চুল কাটা হয়েছে। চুল কেটেছেন হাবিবুর মাস্টার। অনেক ছেলের চুলকাটা হয়েছে।

ত্রিশাল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মনির উজ্জামান বলেন, স্কুল কমিটির নির্বাচন নিয়ে দুই পক্ষের ধাওয়া-পাল্টাধাওয়ার খবর পেয়ে পুলিশ পাঠিয়েছি। তবে ওসি বিস্তাারিত পরে বলবেন বলে জনান।




আপনার মতামত লিখুন :



অপরাধ এর সর্বশেষ

এক ক্লিকে বিভাগের খবর