ঢাকা ২৭.৯৯°সে ১২ই জুন, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

ময়মনসিংহে ইউপি সদস্যের মেয়ের সাথে প্রেম করায় জিবন দিতে হলো আকাশের

ময়মনসিংহ সদর উপজেলায় আকাশ মিয়া (১৭) নামে এক স্কুলছাত্রের মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। আকাশ উপজেলার অষ্টধর ইউনিয়নের ভুগলি মন্ডল বাড়ি গ্রামের মো. আক্রাম হোসেনের ছেলে। সে স্থানীয় অষ্টধার বহুমূখী উচ্চ বিদ্যালয়ে ১০ম শ্রেণির ছাত্র ছিল। অভিযোগ উঠেছে, স্থানীয় ইউপি সদস্য জিয়াউর রহমানের মেয়ের সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক থাকায় হত্যার পর আকাশের মরদেহ পুঁতে রাখা হয়েছিল।

শুক্রবার (২১ মে) সন্ধ্যা ৭টার দিকে অষ্টধর ইউনিয়নের ভুগলির জিয়াউর রহমানের বাড়ির পেছন থেকে মরদেহটি উদ্ধার করা হয়। এ ঘটনায় দুজনকে আটক করা হয়েছে।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন ময়মনসিংহ সদর সার্কেল পুলিশের এএসপি আলাউদ্দিন। তিনি বলেন, সদর উপজেলার অষ্টধর ইউনিয়নের ৬ নম্বর ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য জিয়াউর রহমানের মেয়ের সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক ছিল আকাশের। তারা দুজন পরিবারের অগোচরে গত ২ মে কোর্ট ম্যারেজ করে যে যার বাড়িতে ফিরে যায়।

কিন্তু বিষয়টি সম্প্রতি উভয় পরিবারের লোকজন জানতে পারে। গত বুধবার মেয়েটি ফোন করে আকাশকে তাদের বাড়িতে ডেকে নিয়ে নেয়। এরপর থেকেই তাকে আর পাওয়া যাচ্ছিল না।

এদিকে, ছেলেকে খুঁজে না পেয়ে বৃহস্পতিবার রাতে আকাশের বাবা আক্রাম হোসেন বাদী হয়ে কোতোয়ালি মডেল থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেন। অভিযোগ পেয়ে পুলিশ শুক্রবার ইউপি সদস্য জিয়াউর রহমানের বাড়ি তল্লাশি করে। এ সময় জিয়াউর রহমানের ঘরের পাশে রক্তের দাগ দেখে পুলিশের সন্দেহ হয়। যার পরিপ্রেক্ষিতে বাড়ির চারপাশে খুঁজতে শুরু করে পুলিশ। জিয়াউর রহমানের ঘরের পেছনে খুঁড়ে রাখা মাটি দেখে সন্দেহ হয় পুলিশের।

পরে সেই জায়গা খুঁড়ে আকাশ মিয়ার মরদেহ উদ্ধার করা হয়। এএসপি আরও বলেন, লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় মেয়েটির মা রোজিনা আক্তার ও চাচি নার্গিস আক্তারকে আটক করা হলেও অন্য অভিযুক্তরা পালিয়ে গেছে। তাদের গ্রেফতারে অভিযান চলছে। এ ঘটনায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে বলেও জানান তিনি।




আপনার মতামত লিখুন :

এক ক্লিকে বিভাগের খবর