Durnitibarta.com
ঢাকাসোমবার , ১০ জুন ২০২৪
আজকের সর্বশেষ সবখবর

ধর্ষণে অন্তঃসত্ত্বা কিশোরীকে গর্ভপাত, সৎ বাবা কারাগারে

প্রতিবেদক
বার্তা বিভাগ
জুন ১০, ২০২৪ ৮:০২ অপরাহ্ণ
Link Copied!

বার্তা ডেস্ক: কুষ্টিয়ার কুমারখালীতে ধর্ষণের পর পাঁচ মাসের অন্তঃসত্ত্বা এক কিশোরী মাদরাসা ছাত্রীকে (১৪) গর্ভপাত করানোর অভিযোগে সৎ বাবাকে কারাগারে পাঠিয়েছে পুলিশ।

সোমবার দুপুরে আদালতের মাধ্যমে তাকে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। সৎ বাবা মিজানুর রহমান (৩৩) উপজেলার সদকী ইউনিয়নের করাতকান্দি গ্রামের বাসিন্দা। তিনি পেশায় একজন দিনমজুর। আর ভুক্তভোগী ছাত্রী স্থানীয় এক মাদরাসার সপ্তম শ্রেণির ছাত্রী।

পুলিশ, স্বজন ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, ২০১৭ সালে মিজানুর রহমানের সঙ্গে ওই ছাত্রীর মায়ের দ্বিতীয় বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকে ওই ব্যক্তি শ্বশুর বাড়িতে থাকতেন। প্রায় পাঁচ মাস আগে রাতে ফাঁকা বাড়িতে নিজের স্ত্রীর আগের ঘরের সন্তানকে ধর্ষণ করেন অভিযুক্ত ওই ব্যক্তি। বিষয়টি গোপন রাখার জন্য ভুক্তভোগী ছাত্রীকে প্রাণনাশের হুমকিও দেওয়া হয়।

ধর্ষণের কয়েক মাস পর ওই ছাত্রীর পেটে ব্যথা অনুভব হয়। রবিবার (০৯ জুন) সকালে ওই ছাত্রীকে একটি ডায়াগনস্টিক সেন্টারে নিয়ে পরীক্ষা করায় তার মা ও সৎ বাবা। পরীক্ষায় ওই ছাত্রী পাঁচ মাসের অন্তঃসত্ত্বার বিষয়টি ধরা পড়ে। এরপরই করাতকান্দি এলাকায় নিয়ে ওষুধ খাইয়ে তাকে গর্ভপাত করানো হয়।

বিষয়টি ওইদিন রাতে জানাজানি হলে বিক্ষুব্ধ স্থানীয়রা ওই ব্যক্তিকে একটি কক্ষে আটক করে রাখেন। পরে খবর পেয়ে পুলিশ তাকে উদ্ধার করে থানায় নিয়ে যায়।

এ ঘটনায় ওই ছাত্রীর মা বাদী হয়ে সোমবার সকালে থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা করেন। মামলায় গ্রেপ্তারকৃত আসামিকে দুপুরে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়।

কুমারখালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আকিবুল ইসলাম জানান, ভিকটিমকে মেডিকেল পরীক্ষার জন্য হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।