loading...

পূর্বধলায় খলিশাপুর উচ্চ বিদ্যালয়ে প্রধান শিক্ষক লাঞ্চিত

0

পূর্বধলা প্রতিনিধিঃ

নেত্রকোনা জেলার পূর্বধলা উপজেলায় খলিশাপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষককে সংলগ্ন খলিশাপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক লাঞ্চিত করে।উক্ত বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক অাব্দুল বারী(ভারপ্রাপ্ত ) এর অফিসে স্কুল চলাকালীন সকাল১০:৩০ ঘটিকায় খলিশাপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক কামরুজ্জামান আসে এবং নিজের ছেলের জন্য প্রত্যয়ণপত্র চায় কিন্তু কামরুজ্জামানের ছেলে উক্ত বিদ্যালয়ে কখনো পড়ালেখা করেনি বিধায় প্রধান শিক্ষক অবৈধ উপায়ে প্রত্যয়ণপত্র দিতে রাজি হয়নি।

এমতাবস্থায়  কামরুজ্জামান প্রত্যয়ণ পত্রের জন্য ক্ষমতার গরম দেখিয়ে কথা বলে।তাতেও প্রধান শিক্ষক প্রত্যয়ণপত্র দিতে রাজি নাহলে দুজনের মাঝে কথার কাটাকাটি হয়। এক পর্যায়ে কামরুজ্জামান প্রধান শিক্ষক আব্দুল বারী এর গায়ে হাত তুলে।হাতাহাতি করে প্রধান শিক্ষকের দাঁড়িতে ধরে তাকে ঘুষি মেরে সিঁড়িতে ফেলে দেয়।

এ সময় সমস্থ ছাত্রছাত্রী সমাবেশে থাকায় ঘটনাটি প্রত্যক্ষ করে।একজন সহকারী শিক্ষক (খন্ডকালীন)ঘটনাটি প্রতিবাদ জানায়।কামরুজ্জামানের সাথের তার হাতাহাতি হয়।অন্যান্ন  সহকারী শিক্ষকবৃন্ধ ছুটে এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে অানে।

এসময় কামরুজ্জামান শিক্ষকদের হুমকি দিয়ে জায়গা ত্যাগ করে।কিছুক্ষণ পরথেকে বিদ্যালয়ের অাশে পাশে অপরিচিত ব্যক্তিদের অানাগুনা শুরু হয়। হঠাৎ করে কামরুজ্জামানের ছোটভাই ও অারো কয়েকজন বিদ্যালয়ের অাঙ্গিনায় প্রবেশ করে। কামরুজ্জামানের ছোটভাই (স্বপন)এসে ঐ সহকারী শিক্ষক ও অন্য শিক্ষকের উপর অতর্কিত হামলা চালায়।

এসময় শিক্ষকবৃন্ধ বোটেরঘাট উচ্চ বিদ্যালয়ে প্রধান শিক্ষক আবু সাইদ খোকন ও এলাকার অন্যান্ন ব্যাক্তিদের সাথে অালোচলা করতে বসেছিল।এই হামলায় একজন শিক্ষক গুরুতর অাহত হয়।পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনের বাইরে চলে গেলে পূর্বধলার থানার পুলিশ কর্মকতারা খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে ছুটে এসে পরিস্থিতি  নিয়ন্ত্রনে অানেন।বিদ্যালয়ের সাবেক ছাত্রছাত্রী সহ  সর্বস্তরের মানুষ উক্ত ঘটনা সুষ্টু সমাধানের জন্য যথাযথ কর্তৃপক্ষের হস্থক্ষেপ অাশা করছে

loading...
%d bloggers like this: