loading...

অচল ঈশ্বরগঞ্জ পৌরসভা অফিস, দুর্ভোগে পৌরবাসী

0


জ্বলছেনা পৌরসভার বাতি, পরিস্কার হচ্ছেনা রাস্তাঘাট, পৌরসভার সকল প্রকার সেবা থেকে বঞ্চিত হচ্ছে পৌরবাসী।পৌরসভার সদর ফটকে বেনার টানিয়ে  “এক দেশে দুই নীতি মানিনা মানবো না” শ্লোগান নিয়ে  অনির্দিষ্ট কালের জন্য কর্মবিরতি নিয়েছে ঈশ্বরগঞ্জ পৌরসভার কর্মকর্তা কর্মচারীগন। এমনিভাবে দেশের ৩২৮টি পৌরসভায় তিন দিন ধরে দাপ্তরিক ও সেবা কার্যক্রম বন্ধ রয়েছে। ফলে ভোগান্তিতে পড়েছেন পৌরসভার বাসিন্দারা।


পৌরসভার কার্যক্রম বন্ধ রেখে গত রোববার থেকে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে অবস্থান কর্মসূচি পালন করছেন পৌরসভার কর্মকর্তা-কর্মচারীরা। তাঁদের একটাই দাবি, রাষ্ট্রীয় কোষাগার থেকে পেনশনসহ বেতন-ভাতা দিতে হবে।

মঙ্গলবার বিকেলে দেখা যায়, প্রেসক্লাবের সামনের ফুটপাতে অবস্থান নিয়েছেন কয়েক’শ পৌর কর্মকর্তা-কর্মচারী। ভারী বৃষ্টির মধ্যে পলিথিনের ত্রিপল টানিয়ে বসে আছেন আন্দোলনকারীরা। কেউ ছাতা মাথায় দিয়ে বৃষ্টির ছাঁট থেকে বাঁচার চেষ্টা করছেন। ‘মাস শেষে বেতন নাই, এ কেমন চাকরি ভাই’, ‘দেখ কত জ্বালা, পৌরসভায় তালা’ নানা শ্লোগান দিচ্ছিলেন খণ্ড খণ্ড মিছিল হচ্ছে।

টানা তিন দিন ধরে ময়লা-আবর্জনা পরিষ্কার না করায় শহরের অলিগলিতে জমেছে ময়লার স্তুপ। সড়কবাতি না জ্বলায় ঘুট ঘুটে অন্ধকার পৌর এলাকায়। টিকাদান কর্মসূচি বন্ধ রয়েছে। কর সংগ্রহ, নাগরিক সনদ প্রদান, ট্রেড লাইসেন্স, জন্ম-মৃত্যু নিবন্ধনসহ দৈনন্দিন কার্যক্রম বন্ধ থাকায় সেবাগ্রহীতারা ফিরে যাচ্ছেন।

রাষ্ট্রীয় কোষাগার থেকে বেতন-ভাতার দাবিতে দীর্ঘদিন ধরে আন্দোলন করে আসছেন পৌরসভার কর্মকর্তা-কর্মচারীরা। সর্বশেষ গত রোববার থেকে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে পৌরসভার কর্মকর্তা-কর্মচারীরা অবস্থান নিয়েছেন।

পৌরসভায় স্থায়ী ও মাস্টাররোল মিলিয়ে কর্মকর্তা ও কর্মচারী আছেন ৩৫ হাজারের বেশি। সরকার ২০১৮-১৯ অর্থবছরে অনুন্নয়ন বাজেটের আওতায় দেশের পৌরসভাগুলোর বেতন-ভাতা খাতে ১৩ কোটি ৬৭ লাখ টাকা সহায়তা দিয়েছিল, যা চাহিদার ১ শতাংশের কম।
ময়মনসিংহের ঈশ্বরগঞ্জ পৌরসভার স্থায়ী ৩৮ জন ও মাস্টাররোলের ২৩ জন কর্মকর্তা কর্মচারী সকলেই অবস্থান নিয়েছে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে। ঈশ্বরগঞ্জ পৌরসভার ইলেট্রিশিয়ান নুর মোহাম্মদ জানান, ১২ মাস ধরে বেতন পাই না। ছেলেমেয়ের লেখাপড়া বন্ধ হওয়ার উপক্রম। এলাকার দোকানিরাও এখন আর বাকি দিতে চান না।

পরিচ্ছন্নতা পরিদর্শক কাইয়্যুম আজাদ জানান, যতদিন পর্যন্ত বাংলাদেশ সরকার জননেত্রী শেখ হাসিনা আমাদের দাবী মেনে না নিবেন ততদিন পর্যন্ত আমাদের এই অবস্থান বহাল থাকবে।

পৌরসভা সার্ভিস অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি আবদুল আলীম মোল্যা সাংবাদিকদের বলেন, পৌর কর্মকর্তাদের নিয়োগ, বদলি ও শাস্তি দেয় সরকার, আর বেতন দেয় পৌরসভা। এভাবে আর চলতে পারে না। সরকারি কর্মচারী হয়েও তাঁরা আর্থিক, সামাজিক নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন। রাষ্ট্রীয় কোষাগার থেকে পৌরসভার কর্মকর্তা, কর্মচারীদের শতভাগ বেতন-ভাতাসহ পেনশন চালু না হওয়া পর্যন্ত আন্দোলন চলবে।

loading...
%d bloggers like this: