loading...

উগ্রবাদ, মাদকসহ সকল চ্যালেঞ্জ পেশাদারিত্বের সাথে মোকাবেলা করবেন: নবীন পুলিশ কর্মকর্তাদের প্রতি ডিএমপি কমিশনার

0

নিজস্ব প্রতিবেদক:

উগ্রবাদ, সন্ত্রাস ও মাদকসহ সকল চ্যালেঞ্জ পেশাদারিত্বের সাথে মোকাবেলা করে জনগণের নিরাপত্তা বিধানে নবীন পুলিশ কর্মকর্তাদের সচেষ্ট হয়ে কাজ করার আহবান জানিয়েছেন ডিএমপি কমিশনার মোঃ আছাদুজ্জামান মিয়া বিপিএম (বার), পিপিএম।

আজ (২৫ জুন) দুপুর ১টায় ডিএমপি হেডকোয়ার্টার্সে ৩৬তম বিসিএস শিক্ষানবিশ সহকারী পুলিশ সুপারদের উদ্দেশ্যে এমন দিক নির্দেশনামূলক বক্তব্য প্রদান করেন ডিএমপি কমিশনার। এসময় ডিএমপিতে যোগদানকৃত ১৪জন শিক্ষানবীশ সহকারী পুলিশ সুপারদের ফুল ও শুভেচ্ছা উপহার দিয়ে বরণ করে নেয়া হয়।

দিক নির্দেশনামূলক বক্তব্যের মধ্যে কমিশনার আরো বলেন, ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ বাংলাদেশ পুলিশ বাহিনীর সবচেয়ে বড় ইউনিট। এখানে যোগদান করায় চাকুরী জীবনের প্রথম সময়টা অনেক কিছু শিখতে পারবে। আমাদের সম্মিলিত উদ্যোগ, প্রচেষ্টা এবং পেশাদারি দক্ষতার কারণে প্রতিটি চ্যালেঞ্জকে অত্যন্ত সফলভাবে আমরা মোকাবেলা করেছি। আমি মনে করি চ্যালেঞ্জ এখনও শেষ হয়ে যায়নি, সামনে আমাদের অনেক চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করতে হবে। উগ্রবাদ, সন্ত্রাস ও মাদকসহ অন্যান্য ভয়াবহ চ্যালেঞ্জগুলো আমাদের ফেস করতে হবে। এসব চ্যালেঞ্জগুলো আপনারা পেশাদারিত্বের সাথে মোকাবেলা করবেন। সারদায় আপনারা অনেক কিছু শিখেছেন কিন্তু ফিল্ডের বাস্তবতা ভিন্ন। দেশে ও বিদেশে আমাদের অফিসাররা দক্ষতার সাথে কাজ করছে। জাতিসংঘ শান্তিরক্ষা মিশনে আমাদের পুলিশ অফিসাররা কাজ করে বিরল সম্মান এনেছে।

তিনি বলেন, মুক্তিযুদ্ধে প্রথম প্রতিরোধকারী বাংলাদেশ পুলিশ। সেটি আমাদের অহংকার, সেটি আমাদের প্রেরণা ও শক্তির মূল উৎস। মুক্তিযুদ্ধের চেতনাকে ধারণ করে আমরা কাজ করে যাচ্ছি। আপনাদের উপর অর্পিত দায়িত্ব যথাযথ পালন করবেন। অতীতে পুলিশের সক্ষমতা কমতি থাকলেও বর্তমানে পুলিশের সক্ষমতা অনেকাংশে বৃদ্ধি পেয়েছে। বর্তমানে ডিএমপিতে আমরা এমন নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিয়েছি যে এই নিরাপত্তা ব্যবস্থা ভেঙ্গে নৈরাজ্য সৃষ্টি করা সন্ত্রাসীদের জন্য কঠিন হবে। এই ধারবাহিকতা আপনাদেরকে এগিয়ে নিতে হবে।

দীর্ঘ চাকুরী জীবনের সফলতা তুলে ধরে কমিশনার বলেন, আমি আর দেড় মাস পরে অবসরে যাব। তোমরা পুলিশকে এগিয়ে নিয়ে যাবে। অবসরকালীন সময় যখন দেখব পুলিশ দেশের জন্য ভালো কাজ করছে, সন্ত্রাস-উগ্রবাদ ও মাদক কঠোর ভাবে নিয়ন্ত্রণ করছে, জনগণের নিরাপত্তা বিধান করছে, থানাগুলো ভালো সেবা দিচ্ছে এবং জনহয়রানি বন্ধ হয়েছে তখন আমাদের কষ্ট স্বার্থক হয়েছে বলে আমি মনে করব। সর্বোপরি সকলের ভবিষ্যত চাকুরী জীবনের সফলতা কামনা করেন ডিএমপি কমিশনার।

এসময় ডিএমপি’র ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

loading...
%d bloggers like this: