loading...

রংপুর চিনিকলের জমি নিয়ে শ্রমিক ও সাঁওতালদের মারামারিতে আহত ৫

0

ছাদেকুল ইসলাম রুবেল, গাইবান্ধা প্রতিনিধিঃ

গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জে রংপুর চিনিকলের আওতাধীন সাহেবগঞ্জ ইক্ষু খামারের বিরোধপূর্ণ জমি নিয়ে চিনিকল শ্রমিক ও সাঁওতালদের মধ্যে গতকাল বুধবার দুপুরে মারামারির ঘটনার ঘটেছে। এতে জমি পাহাড়ায় নিয়োজিত এক আনছার সদস্য সহ পাঁচজন আহত হয়েছে।

আহতরা হলেন- আনছার সদস্য জুয়েল, চিনিকলের পিসি আব্দুর রাজ্জাক, ট্রাক্টর চালক তোতা মিয়া, জয়নাল ও মোস্তাফিজুর রহমান। ঘটনাস্থলে পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে।

সাঁওতালদের এক নেতা জানান, রংপুর চিনিকলের সাহেবগঞ্জ ইক্ষু খামারের বিরোধপূর্ণ জমিতে বুধবার দুপুরে চিনিকল কর্তৃপক্ষ পুলিশের উপস্থিতিতে জমি চাষ করতে যায়। এসময় সাঁওতালরা ওই জমির নিজেদের বাপ-দাদার জমি হিসেবে করে চিনিকল কর্তৃপক্ষের চাষাবাদে বাধা দেয়। সাঁওতালদের বাধা উপেক্ষা করে চিনিকলের শ্রমিকরা জমিতে চাষাবাদের কাজ করতে থাকে। এতে উভয়পক্ষের মধ্যে বাক বিদন্ডার এক পর্যয়ে মারামারির ঘটনা ঘটে।

চিনিকলের শ্রমিকদের পক্ষ থেকে অভিযোগ করা হয়েছে, পুলিশ ও আনসারের উপস্থিতিতে চিনিকলের শ্রমিকরা জমি চাষ করছিল। এসময় হঠাৎ করে সাঁওতালরা দলবদ্ধভাবে এসে জমি চাষে বাধা দেয়। এরপর জমি চাষ করতে গেলে সাঁওতালরা চিনিকল শ্রমিকের উপর আক্রমন করে।

চিনিকল শ্রমিকের উপর আক্রমনের অভিযোগ অস্বীকার করে সাহেবগঞ্জ বাগদাফার্ম ভূমি উদ্ধার সংগ্রাম কমিটির সভাপতি ড. ফিলিমন বাস্কে বলেন, সেখানে কোনো ধরনের মারামারির ঘটনা ঘটেনি।
গত মঙ্গলবার উপজেলা নির্বাহী অফিসার রামকৃষ্ণ বর্মণ উভয়পক্ষকে উপজেলা মিলনায়তনে আলোচনার জন্য ডাকেন। সেখানে চিনিকল কর্তৃপক্ষের বক্তব্য সন্তোষজনক না হওয়ায় সাঁওতালরা সভা ত্যাগ করে চলে যায়।

গোবিন্দগঞ্জ থানার ওসি মেহেদী হাসান জানান, রংপুর চিনিকল কর্তৃপক্ষ সাহেবগঞ্জ ইক্ষু খামারের জমি চাষ করতে যায়। সেখানে জমি চাষে সাঁওতালা বাধা দেয়। এতে মারপিটের ঘটনা ঘটে। খবর পেয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার রামকৃষ্ণ বর্মণ পুলিশ নিয়ে ঘটনাস্থলে উপস্থিত পরিস্থিতি শান্ত হয়।

loading...
%d bloggers like this: