loading...

ময়মনসিংহে যুবলীগ নেতা রাসেল হত্যায় জরিত গ্রেফতার-২

0

ষ্টাফ করেসপন্ডেন্ট, ময়মনসিংহ :

ময়মনসিংহ নগরীতে যুবলীগ নেতা রেজাউল করিম রাসেল হত্যার অন্যতম দুই অাসামীকে গ্রেফতার করেছে গোয়েন্দা পুলিশ ডিবি। গ্রেফতারকৃতরা হলেন, মোবারক ও আজিজুল।

বুধবার (১৫) বিকেলে গ্রেফতারকৃত দুজনকে আদালতে সোপর্দ করা হলে তাদেরকে জেল হাজতে প্রেরনের নির্দেশ দেন বিজ্ঞ বিচারক।

জেলা গোয়েন্দা পুলিশের ওসি শাহ মোঃ কামাল আকন্দ এই খবরের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, জেলা যুবলীগ নেতা রেজাউল করিম রাসেল হত্যাকান্ডের সঙ্গে জরিত মোবারক ও আজিজুলকে নগরীর বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে গ্রেফতার করা হয়। পরে বিকেলে ময়মনসিংহ চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেটের ১ নং আমলি আদালতে ওই দুজনকে হাজির করা হয়। তখন বিচারকের উপস্থিতিতে ১৬৪ ধারা স্বীকারোক্তিমুলক জবানবন্দী প্রদান করেন ওই দুই আসামি। এরপর তাদের দুজনকে জেল হাজতে প্রেরণের নির্দেশ দেন বিচারক।

এরআগে রাসেল হত্যার ঘটনায় তার বাবা জালাল উদ্দিন ওরপে জালাল ডিলার বাদি হয়ে কোতোয়ালী মডেল থানায় গত ১৪ মে রাতে ৪ জনের নাম উল্লেখ ও ৮ থেকে ১০ জনকে অজ্ঞাত আসামি করে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। এরপর ওই মামলা থানা থেকে তদন্তের জন্য জেলা গোয়েন্দা পুলিশের ওসি শাহ কামালের কাছে দায়িত্ব দেন জেলা পুলিশ সুপার শাহ আবিদ হাসান। পরে এ হত্যার রহস্য উদ্বঘাটনের জন্য পুলিশ সুপারের নির্দেশেই তদন্তে নামে ডিবি পুলিশ। এখন গ্রেফতার অভিযান অব্যাহত আছে। তবে হত্যার সঙ্গে যারা জরিত রয়েছে, তাদের সবাইকে আইনের আওতায় আনা হবে বলেও জানিয়েছে পুলিশের এই কর্মকর্তা।

উল্লেখ্য: গত মঙ্গলবার (১৪ মে) মধ্যরাত ২ টার দিকে নগরীর মৃতু্ঞ্জয় স্কুল রোড এলাকার ডিফেন্স পাটির কার্যালয়ের সামনে জেলা যুবলীগের সদস্য রেজাউল করিম রাসেলকে (৩৬) ছুড়িকাঘাত ও এলোপাথারী কুপিয়ে হত্যা করা হয়। নিহত রাসেল শহরতলীর শম্ভুগঞ্জ চর হরিপুর এলাকার জালাল উদ্দিন ওরফে জালাল ডিলারের ছেলে বলে জানা গেছে। তবে কি কারনে এ হত্যাকান্ডের ঘটনা ঘটিয়েছে তা এখনো জানা যায়নি।

এদিকে হত্যাকান্ডের পরেই পুলিশি তদন্ত ছাড়াই একটি কুচক্রী মহল শহর ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি আব্দুল্লাহ আল মামুন আরিফের পিছু লেগেছে বলে অভিযোগ করেছেন আরিফের পরিবার। কারণ এর আগেও নগরীতে যুবলীগ নেতা আজাদ ও ছাত্রলীগ নেতা শাওন হত্যার সময় তারা মূল ঘটনাকে আড়াল করতে অন্যের উপরে দোষারোপ করেছেন বলে মন্তব্য স্বজনদের। কিন্তু একটি পক্ষ বলছে, নারীর পরকীয়া না হয় সদ্য অনুষ্ঠিত সিটি নির্বাচনকে কেন্দ্র করে এই হত্যাকান্ডের ঘটনা ঘটতে পারে।

loading...