loading...

হ্যাকার কাইয়ুমকে রক্ষা করতে বিডিপ্রেস ২৪ এর ভিত্তিহীন নিউজ প্রকাশ

0

স্টাফ রিপোর্টার:

হ্যাকার কাইয়ুম গ্রেফতার হ্ওয়ার পর তাকে রক্ষা করতে বিডিপ্রেস নামের একটি অনলাইন পত্রিকার তার পক্ষে গুনগান লিখে প্রকাশ করছে যা হাস্যকর! যারা কাইয়ুম এর পক্ষে সংবাদ প্রকাশ করছে তারা তার সদস্য । ময়মনসিংহ কেন্দ্রীয় কারাগারে গিয়ে কাইয়ুম এর সাথে দেখা করে পরে বিডিপ্রেস নামক অনলাইন পোর্টালে প্রকাশ করছে । যার কোন সত্যতা নেই । ইদ্রিস খানের সম্মান নষ্ট করার জন্যই এসব মিথ্যা তথ্য প্রচার করছে । ইদ্রিস খান বাংলাদেশের একটি সুনামধন্য মাদ্রাসা শিক্ষক সংগঠনের কেন্দ্রীয় কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক । যার সুনাম সারাদেশের শিক্ষক সমাজে রয়েছে । এমন একজন মানুষকে নিয়ে যেসব মিথ্যা তথ্য ফেসবুক ও অনলাইন পোর্টালে প্রকাশ করছে তার নিন্দা জানিয়েছেন সারাদেশের শিক্ষক সমাজ । এসব বন্ধ না করলে প্রয়োজনে সারাদেশে আন্দোলন/মানববন্ধন করা হবে ।

এ বিষয়ে ড. মো: ইদ্রিস খান বলেন, ইতি পুর্বে  যে সমস্ত নিউজ পোর্টালগুলিতে আমার বিরুদ্ধে নিউজ করেছিল সেগুলির সম্পাদক প্রকাশকের নাম ও ঠিকানা ভুয়া ছিলো। তাদের বিরুদ্ধেই আমার এই মামলা এবং কাইয়ুম তাদের মধ্যে একজন । বাকি যারা আছে তাদেরকেও খুজে বের করে তাদের বিরুদ্ধেও আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে। আর মামলা মিথ্যা না সত্য তা প্রমান করবে আদালত। জামাত সমর্থিত কিছু সাংবাদিক কাইয়ুমকে রক্ষা করতে এসব নিউজ করেছে।

উল্লেখ্য, ময়মনসিংহে ফেসবুক ও ওয়েবসাইটে বিভিন্ন নামে ভুয়া পেজ খুলে প্রতারণার মাধ্যমে মানুষকে ব্ল্যাকমেইল করে অর্থ আত্মসাতের অভিযোগে আব্দুল কাউয়ুম নামের এক যুবককে গ্রেফতার করেছে জেলা গোয়েন্দা সংস্থা ডিবি পুলিশ । গত শনিবার ময়মনসিংহ থেকে ঐ যুবককে গ্রেফতার করা হয়েছে বলে জানা গেছে ।

জানা যায়, আব্দুল কাইয়ুম একজন চিহ্নিত হ্যাকার তার রয়েছে কয়েকটি বিভিন্ন নামক অনলাইন পোর্টাল যে গুলোতে সরকার বিরোধী,সম্মানী লোকদের নামে সংবাদ প্রকাশ করে ।

ময়মনসিংহসহ দেশের বিভিন্ন স্থানের নামী- দামী মানুষকে ব্ল্যাকমেইলিং করে । ফেসবুকে এবং অনলাইনে নামে- বেনামে ভুয়া আইডি খুলে এবং ওয়েবসাইড পত্রিকায় সেইসব মানুষদের নামে কুরুচিপূর্ণ , অশ্লীল ছবি সম্বলিত সংবাদসহ বিভিন্ন প্রতারণামুলক মনগড়া লিখে মোটা অংকের টাকা দাবি করত ।

টাকা দিলে আবারও আরেকটি পেজ ও ওয়েবসাইট খুলে সংবাদ প্রকাশ করতো । এছাড়াও কাইয়ুম বিভিন্ন মানুষের নামে সংবাদ প্রকাশের পর তাদের নিকটজনদের দায়ি করে অপপ্রচার চালাতো । আব্দুল কাইয়ুব ইতিপূর্বেও দৈনিক ময়মনসিংহ প্রতিদিনের প্রকাশক ড. ইদ্রিস খানের নামে ভুয়া সংবাদ প্রকাশ করে দায়ভার ঐ পত্রিকার ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক সাংবাদিক খায়রুল আলম রফিকের নামে অপপ্রচার করে ইদ্রিস খানের কাছ খেকে বিভিন্ন সময়ে প্রায় ৬/৭ লাখ টাকা নেয়।

ডিবি জানায়, মোমেনশাহী ডিএস কাশিল মাদ্রাসার অধ্যক্ষ ড. ইদ্রিস খানকেও শিকার হিসাবে ফাঁদ পাতে এই কাইয়ুম । গত মাসে ড. ইদ্রিস খান কোতয়ালী মডেল থানায় তার বিরুদ্ধে একটি জিডি দায়ের করে । এসময় ইদ্রিস খানের নিকট কাইয়ুম ৪০০ ডলার দাবি করে । ইদ্রিস খান ২শ’ ডলার পরিশোধকালে ডিবি পুলিশের এস আই আকরাম হোসেন তাকে আটক করে।

প্রসঙ্গত, ইতিপূর্বেও আব্দুল কাইয়ুম ফুলপুর কলেজের অধ্যাপক ড. মল্লিক,চট্রগ্রামের সাংবাদিক হাফেজ সালাউদ্দিন,গোরীপুরের কলেজ ছাত্র সুমন, হালুয়াঘাটের দিলরুবা বেগম,ভালুকার ইকবাল মিয়া,রংপুরের সুজন আহমেদসহ বিভিন্ন গুনিমানুষের নামে অপপ্রচার করে ।

loading...