loading...

কোরআন হাদিসের দৃষ্টিতে চেয়ারে বসে নামাজ

0

মুফতি মুতীউর রাহমান: 

অনেকেই মামুলি সমস্যার কারণে চেয়ারে বসে নামাজ আদায় করেন। অথচ চেয়ারে বসে তাদের নামাজ সহি হয় না। ফলে এই নামাজ না পড়ারই শামিল। ওজর বা সমস্যা হলে নামাজ কীভাবে আদায় করতে হবে তার মৌলিক নির্দেশনা পবিত্র কোরআনে দেওয়া হয়েছে।

ইরশাদ হচ্ছে, যারা দাঁড়িয়ে, বসে এবং শুয়ে আল্লাহর স্মরণ করে। আকাশমণ্ডলী ও পৃথিবীর সৃষ্টি সম্বন্ধে চিন্তা করে বলে, হে আমাদের প্রতিপালক! তুমি ইহা অনর্থক সৃষ্টি করনি।… (আল ইমরান : ১৯১) তাফসির ও ফিকহের কিতাবাদীতে উল্লেখ করা হয়েছে, এ আয়াতে অসুস্থ ও মাজুরের (সমস্যাগ্রস্ত) নামাজের পদ্ধতি উল্লেখ করা হয়েছে। অর্থাৎ নামাজ তো দাঁড়িয়েই আদায় করতে হয়। যদি কেউ দাঁড়াতে সক্ষম না হয় তাহলে সে বসে নামাজ আদায় করবে। বসতে সক্ষম না হলে শুয়ে নামাজ আদায় করতে হবে। বসে নামাজ আদায় করা মানেই জমিনে, ফ্লোরে বসে আদায় করা।

বুখারি শরিফসহ হাদিসের বিভিন্ন কিতাবে রয়েছে, সওয়ারি থেকে পড়ে হজরত মুহাম্মদ (সা.) আহত হয়েছিলেন, তখন তিনি জমিনে বসে নামাজ আদায় করেছেন। নবীর যুগেও কিন্তু চেয়ার বা চেয়ার সদৃশ বস্তু ছিল। নবী করিম (সা.) মাজুর অবস্থায় চেয়ারে বসে নামাজ আদায় করেননি। হজরত ইমরান ইবনে হুসাইন (রা.) বলেন, আমি হজরত মুহাম্মদ (সা.)কে অসুস্থ ব্যক্তির নামাজ সম্পর্কে জিজ্ঞাসা করলাম।

তিনি বললেন, দাঁড়িয়ে নামাজ আদায় করবে। তা সম্ভব না হলে বসে। তাও সম্ভব না হলে শুয়ে নামাজ আদায় করবে। (বুখারি ১/১৫০ তিরমিজি ১/৮৫) এ হাদিস দ্বারাও বোঝা যায়, দাঁড়াতে সক্ষম না হলে (জমিনে) বসে তাও সম্ভব না হলে শুয়ে নামাজ আদায় করতে হবে। সুতরাং হাদিস থেকে স্পষ্ট হয়ে উঠে, চেয়ারে বসে নামাজ কোনো অবস্থাতেই সহি নয়।

সুতরাং যিনি দাঁড়াতে সক্ষম কিন্তু নিয়ম মতো, রুকু সিজদা করতে অক্ষম তিনি দাঁড়িয়ে-ইশারা করে নামাজ আদায় করবেন। চেয়ারে বসে নামাজ আদায় করলে সহি হবে না। (বাদায়ে ১/২৮৬)

যারা দাঁড়াতে ও রুকু সিজদা করতে অক্ষম তারা জমিনে বসে ইশারায় নামাজ আদায় করবেন। তাশাহুদের নিয়মে বসতে না পারলে যেভাবে বসতে পারেন সেভাবেই বসবেন। চেয়ারে বসে নামাজ আদায় করলে নামাজ সহি হবে না। কোনোভাবে বসতে না পারলে শুয়ে নামাজ আদায় করতে হবে। চেয়ারে বসে নয়।

 লেখক: খতিব, মুহাম্মাদিয়া দারুল উলুম জামে মসজিদ পশ্চিম রামপুরা, ঢাকা।

loading...
%d bloggers like this: