loading...

গৌরীপুরে বাণিজ্যিকভাবে ফুল চাষ ও ফুল বিক্রি বৃদ্ধিপাচ্ছে

0

আনোয়ার হোসেন শাহীন,বিশেষ প্রতিনিধিঃ

ময়মনসিংহের গৌরীপুরে বাণিজ্যিকভাবে ফুল চাষ ও ফুল বিক্রি বৃদ্ধি পাচ্ছ। উপজেলার  বেশ কয়েকটি  ফলজ,বনজ ও ফুলের মিশ্র নার্সারি  গড়ে উঠেছে।এর মধ্যে উল্লেখযোগ্য পূর্ব ভালুকার নূর মামুদের  সুমি নার্সারি, অচিন্তপুরে   গাজী মাহমুদের গাজী নার্সারি, তাঁতকুড়ায় নজরুল মুন্সীওহালিম নার্সারি উল্লেখযোগ্য।

তাদের নার্সারিতে ফলজ বনজ চারার পপাশাপাশি     বাগান জুরে লাল, নীল, বেগুনী, সাদা, হলুদসহ নানা রঙের ফুলে সুভা পাচ্ছে।

তা ছারা শোভা পাচ্ছে উন্নত জাতের রজনীগন্ধা, গ্লাডিওলাস, চন্দ্রমল্লিকা, জারবেরা, রডস্টিক, গোলাপসহ রাজশাহী  থেকে সংগৃহীত নানা জাতের ফুলের চারা।

গতানুগতিক ফসল চাষের দৃষ্টিভঙ্গী পরিবর্তন করে ফুলচাষের মাধ্যমে অর্থনৈতিকভাবে লাভবান হতে শুরু করেছেন।গৌরীপুরে  বিভিন্ন বাগানে উৎপাদিত ফুল বিক্রি করে ইতোমধ্যেই অন্যান্য ফসলের চেয়ে বেশি লাভবান হচ্ছেন স্থানীয় ফুলচাষীরা।মাটি ও আবহাওয়া উপযোগী হওয়ায় এ এলাকায়  ফুল চাষ,  ফুলের ভালো ফলন হচ্ছে।ফুল বিক্রেতা

নজরুল মুন্সী জানান, গত দুইমাসে ৩০ হাজার টাকার ফুল বিক্রি করেছি। অানুসাঙ্গিক খরচবাদে  প্রায় ২০ হাজার টাকা লাভ হয়েছে।ফুল চাষী  নূর মামুদ বলেন, বৎসর শুরুতে ভ্যানে করে প্রতিদিন গৌরীপুর বালিকা বিদ্যালয়ের  মোড়ে ফুলের চারা নিয়ে অাসি ভাল বিক্রি হয় লাভ ও ভাল হয়।স্কুল কলেজের ছাত্রীরা ফুলের চারা কিনে নেয়।

ফুলচাষীগাজী মামুদ বলেন, ফুল চাষ অত্যন্ত লাভজনক। অন্যান্য ফসলের চেয়ে ফুল চাষ করে খুব কম সময়ে বেশি লাভের মুখ দেখছি। সেইসঙ্গে নিজেদের স্বাবলম্বী করে স্বল্প সময়ে লাভজনক ফুল চাষ করে স্বপ্নপূরণ করছে।

উপজেলা কৃষি কর্মকতা লুৎফুন্নাহার জানান, কৃষিপ্রধান এ উপজেলা গতানুগতিক ধান, গম, আলু, সবজি চাষের পাশাপাশি  বাণিজ্যিকভাবে ফুল চাষের আগ্রহী হয়ে উঠছে। ফলজ বনজ চারা বিক্রির মৌশুম শুরু হওয়ার পূর্বে  এ সময়টা নার্সারি ব্যাবসায়ীদের  বাড়তি  অায়ের এ পথটি বেছে নিয়েছেন। তা ছারা বাজারে সব সময়ই ফুলের দাম বেশি থাকায় তারা লাভবান হচ্ছেন।

 

loading...