loading...

অনাবিল আনন্দে সুর ছন্দে উদযাপিত হল প্রবাসী সাংবাদিক সমিতি (প্রসাস)র বার্ষিক বনভোজনও মিলন মেলা

0

মধ্যপ্রাচ্য প্রতিনিধি – মুহাম্মদ মুসা

গত ১৮ জানুয়ারি ২০১৯ শুক্রবার প্রাকৃতিক সৌন্দর্য্য বেষ্টিত চিত্তাকর্ষক সবুজ আচ্ছাদিত প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের শ্যামল ছায়ায় দুবাই মুশরিক পার্কে অনুষ্ঠিত হয়ে গেল প্রবাসী সাংবাদিক সমিতি (প্রসাস)র বার্ষিক বনভোজনও মিলন মেলা। বিপুল সংখ্যক আরব আমিরাত বাংলাদেশি বিভিন্ন পেশা শ্রেণির প্রবাসীদের সমাগমে আনন্দ-উল্লাসে, সুর ছন্দে চমৎকার আয়োজনের মধ্য দিয়ে অনুষ্ঠিত হয়ে গেল ঐতিহ্য ও গৌরবের প্রবাসী বাংলাদেশি সাংবাদিকদের সংগঠন (প্রসাস) র এবারের বর্ণিল বনভোজন ও মিলন মেলা। বনভোজনে নির্মল বিনোদনের আবহ কর্মব্যস্ত নাগরিক জীবনে এক পশলা শান্তির সুবাতাস ছড়িয়েছিল। কর্মক্লান্ত জীবনে স্মৃতির পাতা সমৃদ্ধ করার গল্পের খোরাক যুগিয়েছিল। বনভোজন একটি আনন্দের উৎস হলেও শারীরিক মানসিক ও শিক্ষণীয় ক্ষেত্রে ব্যাপক ভূমিকা পালন করে। প্রবাসের ব্যস্ত জীবনের প্রতিদিনের বাঁধাধরা কর্মের বৃত্ত থেকে বেড়িয়ে এসে খোলা বাতাসে দম নেয়ার সুযোগ পেয়ে অনেকে প্রজাপতির মত ডানা মেলেছিল , প্রাত্যহিক জীবনের এক ঘেয়েমি থেকে মুক্ত বাতাসে একটু প্রশান্তির নিঃশ্বাস অদম্য উৎসাহ উদ্দীপনা জাগায়। প্রসাসের সভাপতি সাইফুল ইসলাম তালুকদারের সভাপতিত্বে এবং সাধারণ সম্পাদক এম মান্নান এর পরিচালনায় আয়োজনটি ছিল আনন্দমুখর। প্রধান অতিথি ছিলেন দুবাই বাংলাদেশ কনস্যুলেটের শ্রম সচিব ফকির মোহাস্মদ মনোয়ার হোসেন দুবাই বিজনেস কাউন্সিলের সিনিয়র সহ-সভাপতি আইয়ুব আলী বাবুল, , বিশিষ্ট ব্যবসায়ী আলহাজ্ব মফজল আহমদ বীর মুক্তিযোদ্ধা কবি জহির উদ্দিন প্রকৌশলী মনোয়ার হোসেন আলহাজ মাজহার উল্লাহ্‌ মিয়া জনতা ব্যাংকের দুবাই ব্যাবস্থাপক মোহাম্মদ আবদুল মালেক, আবুধাবী জনতা ব্যাংকের ব্যাবস্থাপক মোহাম্মদ আবদুর রাজ্জাক কবি ও কলামিস্ট মুহাম্মদ মুসা হাজী শফিকুল ইসলাম,শাহাজাহান মিয়াজি , শেফালী আকতার আখি লেখক জাফর উদ্দিন ভূঁইয়া, কবি মির্জা মু: আলী, , ইমাম হোসেন জায়েদ পারভেজ, নাছের উল্লা নাছের, দিপক চন্দ্র শীল, জয়নাল আবদীন, জাহাঙ্গীর হোসাইন প্রমুখ। বিপুল উৎসাহ উদ্দীপনায় পরিবার পরিজন ছোট-বড় সবাই মিলে আনন্দে মেতে উঠেছিল সারাটি ক্ষণ সারাটি দিন। আয়োজনে ছিল ক্রীড়া প্রতিযোগিতা, চিত্রাংকন, আইকিউ টেস্ট, পিঠা উৎসব, প্রবাসী স্বামী- স্ত্রী কাছে চিঠি লিখন, দৌড় প্রতিযোগিতা মহিলাদের পিলো পাসিং- বড়দের হাড়ি ভাংগা বড়দের বল থ্রো বিবাহিত ও অবিবাহিতদের রশি টানাটানি আলোচনা পর্ব, কবিতা আবৃত্তি সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান, লাকী কূপণ ও পুরুস্কার বিতরণী। ছোট ছেলেমেয়েদের বিভিন্নরকম খেলা ধূলা, শিশু কিশোরদের চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতা, মহিলাদের মিউজিক্যাল চেয়ার, বয়োজ্যেষ্ঠদের তাসের আড্ডা, তরুন প্রজন্মের বন্ধু-বান্ধবের সাথে ঘুরে বেড়ানো এবং সেই সাথে ছিল আয়োজকদের হাতের তৈরি সুস্বাদু খাবারের আয়োজন। ছেলে-মেয়েদের খেলাধূলা, বড়দের আড্ডা আর আলাপচারিতার আনন্দ উচ্ছাস, মুহূর্তগুলোকে স্মৃতির পাতায় ধরে রাখার জন্য ছবি তোলার আনন্দ আর সেলফির সমাহার চমৎকার আবহাওয়ায় দুবাই মুশরিক পার্ক উন্মুক্ত পরিবেশে নিশ্চিন্তে ঘুরে বেড়ানো, প্রাকৃতিক সৌন্দর্য্য অবলোকন, মনোরম দৃশ্য সবকিছু মিলিয়ে একটি চমৎকার দিন কেটে গেল সবার সাহচর্য্যে। সবকিছু মিলিয়ে অত্যন্ত সফল এবং স্বার্থকভাবে আয়োজিত হয়েছে প্রসাসের বনভোজন। আনন্দের ছোঁয়ায় উজ্জীবিত একটি সুন্দর দিনের অসংখ্য আনন্দময় মুহূর্তের স্মৃতি নিয়ে শ্রান্তপদে, কর্মক্লান্ত জীবনে ফিরে যাওয়া এমনিভাবেই সমাপ্ত হলো চমৎকার কিছু আনন্দময় মূহুর্ত যেখানে কবি তার কাব্যের ব্যাকুল, আর কিছু অস্থির চিত্র স্থিরচিত্রপটে স্থান করে নিতে আকুল। সেখানে রচিত হয়েছে অকাঙ্ক্ষিত এক বিশাল মহাকাব্য, যার ছায়াও পড়েনি কারও অন্তরলোকের মানসপটে; গভীর অচিন্তনীয় আশাতীত ভবিতব্য ছিল এই আনন্দযজ্ঞ সুর লহরী, ছন্দের লয় আর নৃত্যের তালে তালে দর্শক শ্রোতাদের বিমোহিত করে ক্ষুদে নৃত্যশিল্পীরা পশ্চিমাকাশে তখ লালসূর্য উদিয়মান, গোধুলীবেলা তার উজ্জ্বল আভা ছড়াতে শুরু করল; ঠিক তখন কবিতা আবৃত্তির আনন্দযজ্ঞ শুরু হলো এখানে মধ্যখানে ছন্দপতন হলেও কোনো জয়কে পরাজয়ের কাঁটায় আবৃত করা সম্ভব হয়নি! কবিতা আবৃত্তি করেন কবি জহির উদ্দিন মির্জা মোহাম্মদ আলী আব্দুস সামাদ এম মান্নান আবছার তৈয়বি আব্দুস শাহিদ প্রমুখ বক্তব্য রাখেন ছালাহউদ্দিন, কবি মুহাম্মদ মুসা জাফর উদ্দিন ভুঁইয়া গিয়াস ,ইকবাল বকুল, মঈনুল হোসেন, নুরুল্লাহ, সৌরভ টুটুল খান শাহাজাহান, আরিফ সিকদার বাপ্পী প্রমুখ।
কবিতা আবৃত্তি, চিত্রাংকন, আইকিউ পরিচালনা করেন কবি মুহাম্মদ মুসা ও জাফর উদ্দিন ভুঁইয়া কবিতা আবৃত্তি, চিত্রাংকন, প্রতিযোগীদের মধ্যে প্রথম দ্বিতীয় তৃতীয় স্থান অধিকারীদের মধ্যে মানবতার কবি সুমাইয়া গ্রুপের চেয়ারম্যান মানবতার কবি ফখরুল ইসলাম খান সি আই পির সৌজন্যে আকর্ষণীয় পুরস্কার প্রদান করা হয়। অনুষ্ঠান, সুশৃঙ্খল ও প্রাণবন্ত করে তোলার জন্য সবাইকে ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানিয়ে সভাপতির সমাপনী বক্তব্যের পর অত্যন্ত জাকজমকপূর্ণভাবে আনন্দঘন পরিবেশে অনুষ্ঠানের পরিসমাপ্তি ঘটে হয়।

loading...
%d bloggers like this: