loading...

গৌরীপুরের তাঁতীলীগ নেতা  হত্যা মামলার আসামী সুমন গ্রেপ্তার

0

নিজস্ব প্রতিবেদক  :
ময়মনসিংহের গৌরীপুরে সহনাটি ইউনিয়নে টেঙ্গাপাড়া গ্রামে তাঁতীলীগ নেতা ইদ্রিস আলী (৫০) হত্যা মামলার আসামী সুমন (২৮) কে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।
শুক্রবার (১৮ জানুয়ারী) রাতে গাজীপুর টঙ্গী থানার পুলিশ গোপন সংবাদের ভিত্তিতে পাগাড় জিরো পয়েন্ট এলাকার একটি মার্কেট থেকে তাকে গ্রেপ্তার করে ময়মনসিংহের গৌরীপুর থানার পুলিশের নিকট হস্তান্তর করেছেন। সুমন ময়মনসিংহের ঈশ্বরগঞ্জ উপজেলার মহেশপুর গ্রামের আজাদ মিয়ার ছেলে।
এ পর্যন্ত ইদ্রিস হত্যা মামলার ৩ জন আসামীকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। গ্রেপ্তারকৃত অন্য দু’আসামী হলেন- এ মামলার মূল আাসামী আব্দুল কাদিরের স্ত্রী রোজিনা (৩৫) ও ভাতিজা আল মামুন (২৫)। মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা গৌরীপুর থানার এস আই আসাদুজ্জামান সাংবাদিকদের এ বিষয়ে নিশ্চিত করেছেন।
নিহত ইদ্রিস আলীর ভাতিজা কবির আহমেদ কাজল (২১) জানান, তার চাচা শফিকুল ইসলাম ফারুকের সঙ্গে ২ জানুয়ারী সকাল ১০ টায় বাড়ির পাশে আলু চাষ নিয়ে মৃত আলী হোসেনের ছেলে প্রতিবেশী আব্দুল কাদিরের বাক-বিতন্ডা হয়। এর জের ধরে পরদিন ভোরে আব্দুল কাদির গংরা ধারালো অস্ত্র নিয়ে পরিকল্পিতভাবে অতর্কিতে তাদের বাড়িতে হামলা চালায়।
এসময় তিনিসহ তার বাবা হাদিস মিয়া (৬৫), চাচা ইদ্রিস আলী (৫০), আজিজুল হাকিম (৩৫) কে কুপিয়ে ও পিঠিয়ে মারাত্মক রক্তাত্ব জখম করা হয়। তিনিসহ আহত তিন চাচাকে ওই দিনই ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ৭ দিন মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ে বৃহস্পতিবার (১০ জানুয়ারী) দিনগত রাত পৌনে ২ টায় তার চাচা ইদ্রিস আলী মারা যান।
এস আই আসাদুজ্জামান জানান, উক্ত হত্যাকান্ডের ঘটনায় নিহতের ছোট ভাই শফিকুল ইসলাম ফারুক (৪৫) বাদী হয়ে নাম উল্লেখসহ ১৮ জন ও অজ্ঞাত ৬ জনকে আসামী করে গৌরীপুর থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেছেন।
এ মামলার আসামী আব্দুল কাদিরের স্ত্রী রোজিনা, ভাতিজা আল মামুন ও সুমন কে গ্রেপ্তার করে আদালতে প্রেরন করা হয়েছে। মামলার অন্য আসামীদের গ্রেপ্তারের জন্য পুলিশের অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

loading...
%d bloggers like this: