loading...

নির্ঘুম রাতের ভালবাসার উপাখ্যান

0

ফাইয়াজ ইসলাম ফাহিম
.
তোমাকে দেখার তৃষ্ণা মিটে না
তোমায় যতই দেখি ততই তৃষ্ণা বেড়ে যায়!
তুমি কি আমার তৃষ্ণা মিটাবে
হে প্রিয়!)
চঞ্চল মনটাকে কি শান্তি দেবে/
.
তুমি আমার চক্ষুর ঘুম কেড়ে নিয়েছ
প্রতি রজনী এপাশ-ওপাশ করে কাটাই!
চক্ষু নিমীলিত করতেই তোমার ফুলকি হাসি
ভেসে ওঠে,তোমার আরক্তিম ওষ্ঠ
চুম্বন করতে আওভান জানায়/
.
আমি কাঁচুমাচু করে নিঃতেজ হয়ে
শুয়ে থাকার ভান করি,
তোমার কাজ্জল রাঙ্গানো চক্ষু
বারংবার কামনার দৃষ্টিতে অবলোকন করে
কটুকাটব্য বলতে তোমার কন্ঠনালী প্রস্তুত হয় /
.
কিন্তু, ভালবাসার মূর্ছনায় তোমার মন বলতে ইতস্ততঃ করে
ইত্যবসরে আমি আবার ঘুমপরী কোলে শুইতে মনস্থির করি!
কিন্তু,ঘুম হয় না
তোমার হাতের কঙ্কণ ভালবাসার বীণা বাজায়?
.
আমি আবার জেগে ওঠি
তোমার কন্ঠহারের চিকনায়ে চক্ষু ঝলসে ওঠে/
মনে আবার ভালবাসা কর্ষণ করে,
আঁজলা পেতে তোমার কাছে অনুকম্পা চেয়েছিলাম কিন্তু তুমি দাও নি!
শারীরিক কৃচ্ছ্রতায় নুয়ে পড়ি/
.
চক্ষু নিমীলিত করতেই কহ্লারময় তোমার গালের টোলের স্মৃতি মনে পড়ে,আমি তখন খিল খিল করে হাসি/
মনে প্রেম কেতন পতপত করে ওঠে?
ভালবাসার বেগ বেড়ে যায়
হাসতে হাসতে চোখ বিবর্ণ হয়ে আসে/
.
আবার ,শুইতে বালিশে মাথা রাখি…
তোমার চূর্ণ কুন্তল ললাট ছুয়ে দিচ্ছে
ভেবিছে মার্জনা
করেছ কিন্তু না! না!
শরীরে শিহরণ জাগালো
তোমার মাজা নৃত্য দেখালো?
.
হঠাৎ তোমার কলকন্ঠ স্বর
একাদিক্রমে কর্ণে আঘাত করতে লাগল
এই ছেলে ঘুম আস না আমায় ভালবাসা দাও!
কে কে বলে চেচিয়ে উঠলাম/
কিন্তু,কোথাও কেউ নেই
পশ্চিম গগন থেকে ফজরের আযান ভেসে আসতে লাগল?

loading...