loading...

জাতীয় মৎস্য সপ্তাহ উদ্যাপন উপলক্ষে সাতক্ষীরায় সংবাদ সম্মেলন

0
শেখ আমিনুর হোসেন,সাতক্ষীরা ব্যুরো চীফঃ
‘স্বয়ংসম্পর্ণ মাছে দেশ বঙ্গবন্ধুর বাংলাদেশ’এই স্লোগানকে সামনে রেখে জাতীয় মৎস্য সপ্তাহ ২০১৮ উদ্যাপন উপলক্ষে সংবাদ সম্মেলন ও মতবনিময়সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।
বুধবার সকালে সাতক্ষীরা জেলা মৎস্য কর্মকর্তার কার্যালয়ের হলরুমে ১৮-২৪ জুলাই জাতীয় মৎস্য সপ্তাহ উপলক্ষে এ সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়।
জেলা মৎস্য বিষয়ক কর্মকর্তা মো.শহীদুল ইসলামের সভাপতিত্বে সংবাদ সম্মেলনে বক্তব্য রাখেন সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা অধ্যক্ষ আবু আহমেদ, সহসভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল ওয়াজেদ কচি, এনটিভি’র জেলা প্রতিনিধি সুভাষ চৌধুরী, দৈনিক প্রথম আলো’র নিজস্ব প্রতিনিধি কল্যাণ ব্যাণার্জী, দৈনিক জনকণ্ঠের জেলা প্রতিনিধি মিজানুর রহমান, দৈনিক সময়ের খবর পত্রিকার জেলা প্রতিনিধি  রুহুল কুদ্দুস, মানবকণ্ঠ পত্রিকার জেলা প্রতিনিধি অসীম বরণ চক্রবর্তী, বাংলা ভিশন চ্যানেলের জেলা প্রতিনিধি আসাদুজ্জামান আসাদ, সুবর্ণ ভূমির জেলা প্রতিনিধি আব্দুস সামাদ, মোহনা টিভির জেলা প্রতিনিধি মো.আব্দুল জলিল, ডিবিসি চ্যানেলের জেলা প্রতিনিধি এম জিল্লুর রহমান, দৈনিক আমার বার্তা’র ব্যুরো প্রধান শেখ আমিনুর হোসেন, সাংবাদিক রফিকুল ইসলাম শাওন, উর্দ্ধতন বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা মো. নাজমুল হুদা, সিনিয়র উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা (সদর) মো.রাশেদুল হক, সদর উপজেলা সহকারী মৎস্য কর্মকর্তা মো. লুৎফর রহমান প্রমুখ। সংবাদ সম্মেলনে বক্তারা বলেন, ‘জাতীয় অর্থনৈতিক উন্নয়ন, জনগোষ্ঠীর পুষ্টির চাহিদা পূরণ, বৈদেশিক মুদ্রা অর্জন ও দারিদ্র্য বিমোচনের সাতক্ষীরা জেলায় গুরুত্ব অনেক বেশি।
এ জেলায় বার্ষিক মৎস্য উৎপাদন হয় ১লক্ষ ৩১ হাজার ৫১৬ মেট্রিক টন। জনগণের চাহিদা মিটিয়ে প্রায় ৮৯২২৩ মেট্রিক টন মাছ ও চিংড়ি বিদেশে রপ্তানি এবং অন্যান্য জেলায় সরবরাহ করা হয়।
বর্তমানে মৎস্য উৎপাদনে বাংলাদেশের অবস্থান ৪র্থ। চিংড়ি চাষে সাতক্ষীরা দেশের প্রথম স্থানে থাকলেও তা এখন নানাভাবে হুমকির মুখে পড়ছে। এক্ষেত্রে চিংড়ি পোনার ভাইরাস রোধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে হবে।
এজেলায় ৩০৯০ মেট্রিক টন কাঁকড়া উৎপাদন হয়। বৈদেশিক মুদ্রা অর্জনে কাঁকড়া গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখে চলেছে। বাণিজ্যিকভাবে কাঁকড়া চাষের ক্ষেত্রে বন বিভাগের যে নীতিমালা রয়েছে ১০০ গ্রামের নিচে কোন কাঁকড়া ধরা যাবেনা তা সংশোধন করতে হবে।
না হলে বৈদেশিকভাবে কাঁকড়া রপ্তানী হুমকির মুখে পড়বে। কারণ বিদেশে সাধারণত চাহিদা ৬০ গ্রামের কাঁকড়া। মৎস্য উৎপাদনে এ জেলার সম্ভাবনা অনেক বেশি।
এটি আমাদের ধরে রাখতে হবে। বাগদা, গলদা, কাঁকড়া ও সাদা মাছ উৎপাদনে সকলকে সম্মিলিতভাবে এগিয়ে আসতে হবে এবং সাতক্ষীরায় পিসিআর টেস্ট পদ্ধতি চালু করার আহবান জানান বক্তারা।
’ জাতীয় মৎস্য সপ্তাহ ২০১৮ উদ্যাপন উপলক্ষে সাতক্ষীরায় নানা কর্মসূচি গ্রহণ করা হয়েছে। তার মধ্যে বৃহস্পতিবার (১৯ জুলাই) সকাল ১০টায় র‌্যালি, আলোচনাসভা ও মৎস্য অবমুক্তকরণ, শুক্রবার (২০ জুলাই) মৎস্য সেক্টরে সরকারের অগ্রগতি বিষয়ে আলোচনা সভা ও প্রামাণ্যচিত্র প্রদর্শন।
শনিবার (২১ জুলাই) ফরমালিন বিরোধী অভিযান, জেলার মৎস্য বাজারে মৎস্য বিষয়ক আইন বাস্তবায়নে মোবাইল কোর্ট পরিচালনা। রবিবার (২২ জুলাই) বিভিন্ন স্কুল কলেজে মৎস্য চাষ বিষয়ে আলোচনা সভা ও বির্তক প্রতিযোগিতা ও প্রামাণ্যচিত্র প্রদর্শণ, সোমবার (২৩ জুলাই) হাট বাজার ও জনবহুল স্থানে মৎস্য চাষ বিষয়ে উদ্বুদ্ধকরণ সভা। মঙ্গলবার (২৪ জুলাই) জাতীয় মৎস্য সপ্তাহের মূল্যায়ন, পুরস্কার বিতরণী ও সমপানী অনুষ্ঠান।
সংবাদ সম্মেলনে সাতক্ষীরা জেলার কর্মরত বিভিন্ন প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ার সাংবাদিকবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। সমগ্র অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন উর্দ্ধতন বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা মো.নাজমুল হুদা।

loading...